পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


नो ?” সত্যেন্দ্র বলিল—“আপনি যা শুনেছেন ওটা ভুল। ইংরেজদের মধ্যে ওবিয়ে খুবই স্বাধীনতা আছে। দেখবেন, কালেক্টর সাহেব এসে তদন্ত করে যখন প্রকৃত ঘটনা অবগত হবেন, তখন আমাদের দোষী বলে মনে করবেন না।” সরেশবাব একট অবিশ্বাসের হাসি হাসিলেন। বলিলেন—“সে যাহোক, এ রকম অবস্থায় দুজনকে কখনই এক জায়গায় রাখে না—আমি তার দই একটা দন্টান্ত জানি।” যাইবার জন্য সত্যেন্দ্র গারোথন করিল। সরেশবা তাহার সঙ্গে সঙ্গে ফটক অবধি ఇక్గా বিদায়কালে সত্যেন্দু বলিল—“দেখন—একটা কাজ করলে হয় না ?” ייל קלן* “আমি যদি কালই ধরন বদলির জন্যে দরখাস্ত করি—তা হলে এ ব্যাপারটা চাপ পড়ে না ?” “পড়লেও পড়তে পারে। তাই করবে নাকি ?—অবশ্য অপমান হয়ে বদলি হওয়ার চেয়ে নিজে দরখাস্ত করে বদলি হওয়া শতগণে ভাল।” “আমি ভেবেচিতে দেখি। যেমন হয় কাল এসে আপনাকে বলব।”—বলিয়া সত্যেন্দু বিদায় প্রার্থনা করিল। সরেশবাব হাসিতে হাসিতে বলিলেন—“সবচেয়ে ভাল করে চাপা পড়ে—যদি তুমি মিস মজুমদারকে বিয়ে করে ফেল।” সত্যেন্দ্র বলিল—“সে অসম্ভব।” “ভগবান তোমার এই সমিতি চিরদিন রাখনে”—বলিয়া সরেশবাব সত্যেন্দ্রের করমদন করিলেন। পঞ্চম পরিচ্ছেদ সবালার বাসটি হাসপাতাল হইতে অধিক দর নহে। ফটক পার হইয়া সমান্য একটা বাগানের মত। বাগান পার হইয়া বারান্দাযন্ত একখানি বাহিরের ঘর। এই ঘরের এক পাশের ভিতরে প্রবেশ করিবার দুবার। বাহিরের ঘরখানি দিব্য সাজানো। এ সমস্ত আসবাব ছবি প্রভৃতি পজার ছটির থাকে—"বিলটা আমায় দিলেন না?” সত্যেন্দ্র বলে—“খুজে দেখব।”—কিন্তু সে বিল কোথায় যে গিয়াছে, কিছুতেই আর খাজিয়া পাওয়া যাইতেছে না! . সবালা আজ আসমানি রঙের একখানি রেশমী শাড়ী পরিয়াছে। গায়ে শেওলা রঙের মখমলের একটি জ্যাকেট। এ দুটিও সত্যেন্দ্রের উপহার। শাড়ীর প্রান্ত একটি সোণার “মনে রেখ” ব্লোচ দিয়া আবদ্ধ। এ রোচটি সত্যেন্দ্র দেয় নাই—সবালা কলিকাতা হইতে আনিয়াছিল। " টেবিলের কাছে বসিয়া কুষ্ঠিত রেশমের শেড়যন্ত একটি সেখীন ল্যাপের সাহায্যে সবালা একখানি বাঙ্গলা ডিটেকটিভ উপন্যাস পাঠ করিতেছিল। সত্যেন্দ্র প্রবেশ করিতেই সে দাঁড়াইয়া উঠিয়া বলিল—“আসন। আজ .এত দেরী যে ? আমি ভেবেছিলাম বুঝি ভুলেই গেলেন।” অন্যদিন হইলে, ভুলিয়া যাইবার অসম্ভবতা-সচক একটা উত্তর সত্যেন্দ্র দিত এবং সবালা,তাহাই আশাও করিয়াছিল, কিন্তু আজ তাহার মখ দিয়া সে কথা বাহির হইল না ! তাহাকে নিরক্তের দেখিয়া সবালা জিজ্ঞাসা করিল—“কোথায় ছিলেন এতক্ষণ ?” “ডেপুটিবাবরে ওখানে”—বলিয়া সত্যেন্দ্র উপবেশন করিল। আজ আর দুইজনে গলপ ভাল জমিল না। সবালা যতই তাহাকে কথা কহাইতে চেণ্টা করে, একাক্ষর উত্তর ভিন্ন আর বড় কিছই বাহির করিতে পারে না। সত্যেন্দ্রের ჯ&ya