পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ওঠাধর হইতে ভিজিট আদায় করিয়া লইলেন। তখন সবোধ সনৌতির কন্ধে হস্তযুগল অপণ করিয়া বলিল—“আন্দাজটা তুমি কি করেছ বল সত্যি। আমার ভারী কৌতুহল হচ্চে।” সনীতি বলিল—“বিলক্ষণ, নিজের কথা যা বলবার আছে তা বলবেন না, আমায় খালি খালি জেরা করবেন। ভারী মজার লোক ত ! তুমি বল আর না বল, আমি সে কথা বলছিনে ৷” সবোধের কৌতুহল উত্তরোত্তর বধি করিতে সনেীতি সমপণ কৃতকাষ হইল। শেষে সবোধ বলিল—“আচ্ছা, আমিই আগে বলি; কিন্তু তুমি বলবে বল ?” “বলব।” “আমার শনে শুনে যদি বল যে আমিও তাই মনে করেছিলাম।” "আচ্ছা, আমি কাগজে লিখে রাখি। বলা হলে তুমি খালে দেখো।" সনীতি হাসিতে হাসিতে একখানি কাগজে কয়েকটি কথা লিখিল। লিখিয়া বলিল —“বল এইবার।” সবোধ বলিল—“আজ সন্ধ্যেবেলা বহুকাল পরে আবার টারে চন্দ্রশেখর। অনেকদিন থেকে তোমার চন্দ্রশেখর অভিনয় দেখবার সাধ, আজ দুজনে যাই চল।” শনিয়া সনীতি ভারি খসী। লিখিত কাগজখানি হাতে লইয়া মাথা দলাইয়া বলিল—“আচ্ছা, এতে কি লিখেছি এইবার তুমি আন্দাজ কর।” "বাঃ সে কথা ত ছিল না।” "নাই বা ছিল, তব বল না।” “আমি যদি আন্দাজ করি, তবে কি আন্দাজ করলাম সেটা ফের তোমায় আন্দাজ করে বলতে হবে কিন্তু।” “বেশ, আমিও, তোমায় আবার সেটা আন্দাজ করাব। তা হলে আন্দাজ করতে করতে চিরটা জীবন কেটে যাক, আর কি –আচ্ছা, তুমি আমায় যে রকম খসী করেছ, তোমাকে আর কাট দেওয়া উচিত নয়। এই দেখ।” সবোধ কাগজ খলিল। তাহাতে লেখা আছে—“হিজি বিজি কি লিখি ছাই আমি ত কিছুই আন্দাজ করিতে পারিতেছি না। তোমার মনে কৌতুহল সঞ্চার করিবার চেটা করিতেছি মাত্র।” পড়িয়া সবোধ হাসিয়া উঠিল। বলিল—“তুমি ভারি দন্ট।” “কি সাজা দেব ?” “সাজা দেব ? সাজা দিয়েছি - আসল কথা এখনও বলিনি ! তোমাকে মেম সাজাব।” “সে আবার কি কথা গ - সমবোধ বলিল—“না, সত্যি। অনেক দিন থেকে আমার সাধ, মেমের পোষাকে তোমাকে কেমন দেখায় দেখব । তোমার জন্যে একটা পোষাক আনিয়ে রেখেছি ! থিয়েটারে যাব, দুজনে আলাদা আলাদা বসে দেখলে কি সখি হয় ? বক্স রিজাভ করে দুজনে একত্র বসতে হবে । পোড়া বাংগালীর পরিচ্ছদে ত সে হবার যো নেই—দজনে সাহেব মেম সেজে যাই চল ।” সনীতি বলিল—“আ সববনাশ ! সে আমি পারব না। হাজার লোকের সমখে কি আমি বেরতে পারি ?” “ছদ্মবেশে আর লতজা কি ? যে তোমাকে দেখবে সে ত আর তোমাকে তুমি বলে চিনতে পারবে না ! তোমাকে সকলে খাঁটি বিলিতি মেম মনে করবে, আমাকে বরং ট্যাস ফিরিঙ্গির মত দেখাবে। সাহেবেরা হিংসেতে ফেটে মরবে আর ভাববে বিধাতা বানর গলে দিল মোতিম হার।" সুনীতি বলিল—“ষাও যাও ভারি ঠাট্টা শিখেছ। তোমার আর পাগলামি করতে ግe