পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সাধাংশ হা হা করিয়া হাসিয়া বলিল—“তা বলবে বইকি! স্মৃতিশক্তিটা করে কত প্রখর-আজ দাপরেবেলাই ত তার পরীক্ষা হয়ে গেছে।”—বলিতে বলিতে উভয়ে গহে প্রবেশ করিল ! উপরে উঠিয়া সুধাংশ বালল—“নীলদা, এই বাড়ীতে থাক কি করে ?” “কি করব ভাই—এর চেয়ে ভাল বাড়ী পাই কোথায় ?” চেয়ারে, বসিয়া সাধাংশ বলিল—“তোমার ছেলেপিলে কাটি ?” “দটি মেয়ে, একটি ছেলে। তোমার কাটি ?" সাধাংশ হাসিয়া বলিল--"আমি ছেলেমেয়ে কোথা পাব ? আমি কি বিয়ে করেছি ?” নীলমণি সবিস্ময়ে বলিল—“আজও বিয়ে করনি ? বল কি হে! বিয়ে করলে না কেন ?” "ফরসং পাইনি। পরের ছেলে মেয়েকেই আদর করে বেড়াই। তোমার ছেলে নীলমণি, কমলা ও সরলাকে ডাকিয়া আনিল। মেয়ে দটি আসিয়া সন্ধাংশকে প্রণাম করল। চেয়ারের দই দিকে দাঁড় করাইয়া মিষ্ট কথায় সাধাংশ তাহাদিগকে আদর করিতে লাগিল। শেষে বলিল—“তোমাদের ভাইটি কই?" সরলা বলিয়া উঠিল “খোতা ধমত্তে ।” সন্ধাংশ নীলমণির পানে চাহিয়া বলিল—“কি বলে ?” নীলমণি উত্তর করিল—“ও বলছে খোকা ঘামাচ্ছে। দেখনা মেয়ের পাঁচ বছর বয়স হল, এখনও জিভের জড়তা ভাঙ্গলো না। অন্য সব বগ ছেড়ে ত-বগাই বেশী ব্যবহার কেন ?” সাধাংশ, বলিল—“তা হোক দুখক বছরে সেরে যাবে। মেয়েটি থব চটপটে।" “ভারি বন্ধি ওর এক একটি কথা কয় যেন আশী বছরের বড়ি । এত খবরও রাখে ও-মাঝে মাঝে আশচয্য করে দেয়।” বড় মেয়েটিকে লক্ষ্য করিয়া সাধাংশ বলিল—“যাও ত মা, তোমার বাবার একখানি ধতি আমায় এনে দাও ত। আমি পাৎলন ছাড়ি।” । কাপড় ছাড়িয়া বলিল—“নীলদা, কবল-টবল, শতরঞ্চি-টতরঞ্চি নেই ? তাই পাত মা। বাঙ্গালীর ছেলে—একটা বসবো, একটা গড়াব—এ চেয়ারে কি পোষায় ? সারাদিন ঘরে ঘরে শরীরটে ভারি ক্লান্ত হয়ে পড়েছে।” টেবিল চেয়ার দেওয়ালের কোণে সরাইয়া, ওঘর হইতে শতরঞ্জ বালিশ অনিয়া নীলমণি পাতিয়া দিল। চরাটের পারটি কাছে ধরিয়া বলিল—“খাবে?” সন্ধাংশ একটি তুলিয়া লইয়া, আলোকে ধরিয়া সেটি ঘরাইতে ঘরাইতে বলিল—“তামাক-টমাক রাখ না ? দিনরাত চরট খেয়ে খেয়ে আর ভাল লাগে না।” “হ্যাঁ—তামাক আছে বইকি।”—বলিয়া নীলমণি বাহির হইয়া গেল। সন্ধাংশ ডাকিল—“ও কমলা-ও সরলা।”—বালিকাবয় আসিয়া সন্ধাংশুর কাছে বসিল। সুধাংশ বলিল—“আমি তোদের কে হই জনিস ?” কমলা বলিল—“কাকা হন। সরলা বলিল—“থায়েব কাকা।” সাধাংশ হাসিয়া বলিল—“দর পোড়ারমুখী। সায়েব আমার কোনখানটা দেখলি ?” “না, আপনি থায়েব। উলথনেল হোতেলে থাকেন।” “সে খবরটিও পেয়েছিস ?”—বলিয়া সাধাংশ সরলার গালটি টিপিয়া দিল। সরলা উৎসাহিত হইয়া বলিল—“ভোঃ পেীঃ কোলে বাঁথি বাদিয়ে হাওয়া গালীতে আথেন ।” একটু পরেই, গড়গড়াটি হাতে করিয়া, জলন্ত কলিকায় ফ দিতে দিতে নীলমণি প্রবেশ করিল। সন্ধাংশ বলিল—“নীলদা, তুমি কি নিজে হাতে তামাক সাজলে ? ঝি Styత్రి