পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সন্ধাংশ বলিল—“শোন নীলদা—আমি প্রথম থেকেই সমস্ত কথা তোমায় খোলাখালি বলি। মুলধন আমার-বন্ধি আমার-কেবল মেহনং তোমার। তোমায় আমি শন্য অংশীদার করে নিতে রাজি আছি। তা না করে, একটা নিন্দিতট বেতনও ঠিক করে দিতে পারতাম কিন্তু দলটি কারণে তা আমার মনঃপত নয়। প্রথমতঃ—আমি এ চাইনে যে তুমি হবে আমার বেতনভোগী চাকর--আর আমি হব তোমার মনিব । দ্বিতীয়তঃ, অংশীদার হলে তুমি যেমন প্রাণপণে ব্যবসাটির উন্নতি-চেণ্টা করবে, বাঁধা মাইনে হলে তুমি কখনই তা করবে ন-পেরে উঠবে না ; না-না--তুমি প্রতিবাদ কোরো না, আমি মনুষ্য-চরিত্র বেশ ভাল করেই জানি: এই বয়সে অনেক দেখেছি, অনেক ঠকেছি, অনেক ঠেকে তবে শিখেছি। বাঁধা মাইনে হলে তুমি যে ইচ্ছে করে আলস্য করে আমার কাজে অবহেলা করবে, তা আমি বলছিনে। কিন্তু তোমার উদ্যমের উপরেই যদি তোমার লাভের তারতম্য লিভার করে, তা হলে তোমার উদ্যম উৎসাহ আপনিই বেড়ে যাবে।” নীলমণি মাথা হেস্ট করিয়া বলিল—“তা, তুমি যেমন ভাল বোঝ —সে আরও যেন কি বুলিব বলিব করিল, কিন্তু সঙ্কোচবশতঃ চপ করিয়া রহিল। সাধাংশ তাহার মনের কথা বুঝিরা বলিল—“সব কথা এখন থেকে পরিকার হয়ে থাক। বলেছি মূলধন আমার, মাথা অমাব, তোমার মেহনৎ। সুতরাং লাভের অং তোমার অপেক্ষা বেশীই আমি দাবী করব। লাভের প্রতি টাকায় চার আনা তোমার, ব্যুরো আন আমার হবে। যদি বিশ হাজার লালু হয়, তা হলে তোমায় পাঁচ হাজার হল । ধদি অত না হয়-দশ হাজার হয়,—তাও না হয় আট হাজারও হয়—তব তোমার দ্য হাজার থাকবে। এখানকার চাকরির চেয়ে ত ভাল হবে--কি বল ?” নীলমণির মনে দুই প্রতিকল শক্তি যুগপৎ স্বীয় প্রভাব বিস্তার করিতে চেটা করিতেছিল । পুথম ধনীল-স-দ্বিতীর সংশয়বন্ধি। কোথায় পয়ষট্টি টাকা আর BBBBBBB BBmSBB BBB BBB BBBBS BBB BB BBDDSBB ধ্ৰুবাণি পরিতাজা” ইত্যাদি যাহা হউক কটেসটে দইবেলা দমঠা জটিতেছে-এ চাকরি ছাড়িয়া, সে অভ্রের খনিতে গেলে যদি শেষে তাও যায় ? ব্যবসায়ে যেমন লাভ আছে, তেমন লোকসানও ত আছে। সুধাংশ; ত বড় বড় লাভের অঙ্কের কথাই বলিতেছে —কি পরিমাণ লোকসান হইলে ব্যবসায়ের অবস্থা কি প্রকার দাঁড়াইবে, তাহার উল্লেখ ত একবারও করিতেছে না ! নীলমণিকে এই প্রকার চিন্তাপরায়ণ দেখিয়া সাধাংশ বলিল—“কি বল নীলদা " নীলমণি বলিল--"ভেবে তোমায় বলব।" সন্ধাংশ উত্তেজিতস্বরে বলিল—“ননসেন্স। এত ভাবনা চিন্তা কিসের ? বকে সাহস কর—করে চাকরির মুখে মার ঝioী। সাহস নেই বলেই ত বাঙ্গালীর কিছ হয় মা-কেরাণীগিরি ভরসা। তোমার কাজ নয়; আচ্ছা আমি বউদিদিকে জিজ্ঞাসা করি” -বলিয়া—বউদিদি বউদিদ” করিয়া সাধাংশ, খালি পয়ে রান্নাঘরের বারে উপস্থিত নীলমণির স্তী তখন কমলালেবর পায়স চড়াইয়াছিলেন। সাধাংশ আসিতেই ঘোমটা টানিয়া দিলেন। সাধাংশ চেকাটের বাহিরে বসিয়া নিজ বক্তব্য রেলের গাড়ীর বেগে সকল শনিয়া বউদিদি কমলাকে দিয়া বলিলেন—ঠাকুরপো, আজ রারিটা সময় দিন —‘ওঁর সংেগ পরামর্শ করিয়া কলা যাহা হয় জানাইব। আহারাদির পর সাধাংশ পোষাক পরিতে পরিতে বলিল—“কাল তাহলে কখন আমি : י"כ - `ੰਸ਼ ত আমার প্রবেশ নিষেধ ?” “এক কাজ কর! কাল ঠিক সাতটার সময় আমার হোটেলের সমথে দড়িয়ে থেক । আমি চ খেয়ে বেরব। লালদীঘির ধরে বেড়াতে বেড়াতে দুজনে কথাবাৰ্ত্ত হবে।” ১৮৯