পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


“বেশ—আমি আসব।” পরদিন অবধারিত সময়ে নীলমণি হোটেলের সম্মখে গিয়া দাঁড়াইল৷ সুধাংশ বাহির হইয়া আসিল। নীলমণি বলিল—“মত হয়েছে—চাকরি ছেড়ে তোমার সঙ্গেই যাব।” দুইজনে লালদীঘির ধারে বেড়াইতে বেড়াইতে এ বিষয়ে আরও অনেক কথাবাত্তা কহিতে লাগিল। সন্ধাংশ বলিল—“আজকের দিনটে আপিস থেকে কোন রকমে ছটি নিয়ে আমার সঙ্গে বেরতে পার?” "কেন ?” "একখানা মোটর-কার কিনবো, দুটো ঘোড়া কিনবো, আর তোমার জন্যে গোটাকতক ইংরেজি সন্ট তৈরী করাতে হবে।" - নীলমণি হাসিয়া বলিল—“আমার জন্যে ইংরেজি সটে?" “সেখানে কি তুমি ধতি পরতে পাবে? সব্বনাশ! জমাদারেরা, কলিরা তোমায় তা হলে গ্রাহ্যই করবে না। সেখানে আমি বড়সাহেব—তুমি ছোটসাহেল । রীতিমত টাইলে থাকতে হবে। ভেখ না হলে কি ভিক্ষে মেলে নীলদা ?” “কিন্তু এখন ত আমার হাতে টাকা নেই!” “আমার কাছে আছে। আমি দেব এখন—তোমার হিসেবে খরচ লিখে রাখব।” বেলা বারোটার সময় বড়বাবকে বলিয়া-কহিয়া বাকী দিনটাকুর জন্য নীলমণি ছুটি লইল। সন্ধাংশর সহিত ঘরিয়া সমস্ত দিন বাজার করিল। পাঁচ হাজার টাকা মল্যের একখানা মোটরকার কেন হইল-দহাজার সাধাংশ নগদ দিল—বাকী তিন হাজার, মাসে পাঁচশত করিয়া ছয় মাসে পরিশোধ করিবে কড়ার-পত্র লিখিয়া দিল। বাইশ শত টাকায় একটা শাদা একটা লাল ঘোড়া কিনিল। নীলমণির জন্য যে স্টগলি ফরমাস দেওয়া হইল, তাহারও মল্য একশত টাকায় উপর। দিনাতে সাধাংশ বলিল—“এখন তবে আসি ভাই। আমি কালই খনিতে চলে যাব। পয়লা জানুয়ারী থেকে কাজ আরম্ভ করতে হবে। তুমি কালই কমত্যাগ-পত্র দাখিল করে দিও। একমাস পরে আমার কাছে আসবে। এই একখানা পাঁচশো টাকার নোট রাখ। সন্টগুলোর দাম দিও; আর যা যা কেনবারটেনবার দরকার হয়, কিনে নিয়ে যেও । যাবার সময় একটা সেকেণ্ড ক্লাস কামরা রিজাভ করে যেও; পয়সা বাঁচাবার জন্যে নীচ ক্লাসে যেও না যেন—খবরদার। এ পাঁচশো টাকায় যদি না কুলোয়, আমায় টেলিগ্রাফ কোরো—আমি আরও টাকা পাঠিয়ে দেব। এখন আমার হাতে আর বেশী নেই। বউদিদিকে আমার প্রণাম দিও। বোলো, সময় অভাবে তাঁর সঙ্গে আর দেখা করতে পারলাম না। ধানবাদেই আবার দেখা হবে। এখন তবে আসি ভাই—গড়বাই।” সন্ধাংশর নবাবী কাণ্ডকারখানা দেখিয়া নীলমণি অবাক হইয়া গিয়াছিল। ট্রামে উঠিয়া—আজ সে প্রথম শ্রেণীতে উঠিল—কেবলই তাহার মনে হইতে লাগিল—“কে জানে, শীঘ্ন হয়ত এমন দিন আসিবে, যখন আমিও সুধাংশুর মত এইরুপ লম্বা হাতে কলিকাতার বাজারে টাকা ছড়াইতে পারিব। সুধাংশ যে , বাণিজ্যে বসতে লক্ষয়ীঃএকথা খুবই ঠিব।” তৃতীয় পরিচ্ছেদ

=್ಲಿ आन्तम

অপরাহুকাল। পাহাড়ের নিকট তাহার সেই বাগল খানির পশ্চাতের বরাদায় સ્વઃ কেদারায় পড়িয়া নীলমণি একখানি খনিজবিদ্যার ইংরেজী পন্তেক পাঠ করিতেছিল। তাছার স্মী নিকটে একখানি চেয়ারে বসিয়া খোকার জন্য পশমের গলাবন্ধ বনিতেছেন। • هو "