পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কণ্ঠস্বর। জুতা পায়ে দিয়া পটপট করিয়া ছটিয়া আসিয়া সে বলিল-“বাবা থায়েব কাকা এতেথে।” নীলমণি বলিল—“কোথা রে ?” “এখানে নয়। ইত্তিথান থেকে মাতল গালীতে ভোঃ পোঁ ভোঃ পোঁ কলে নিদেল বাংলায় এতেথে।" - মা বলিলেন—“তুই দেখঙ্কি মকি ?” SBBSBBB DD BBB BBBBB DDTTBB BBBS BBB BBS BBB BD আমায় দেখে নমোল ঘলতে লাগল।” জননী হাসিয়া বলিলেন—“তুই কি ঘরেলি ?" সরলা বিষয়সবরে বলিল—“আমি কি ঘলবে? আমাল কি নমোল আছে ?"-পিতার দিকে ফিরিয়া সংকুচিত হইয়া নিৰ্ম্মস্বরে বলিল—“বাবা, আমাকে একখানি নমাল কিনে দেবে ? অাল একখানি মোতল-কাল ?" নীলমণি বলিল—“এক সঙ্গে অত টাকা পাব কোথা মা ? এখন বরং একখানি রমাল কিনে দেব, মোটর-কার পরে হবে।" পিতার জান দটি ধারণ করিয়া আবদারের বরে সরলা বলিল—“না, বাবা-বেথাঁ তাকা না থাকে, এখন বলং একখানি মোতল-কাল কিনে দাও; নমোল পলে হবে।" এই কথা শুনিয়া সরলার পিতামাতা হাসিয়া লটাইতে লাগিলেন। সরলাও সেই সঙ্গে সঙ্গে হাসিতে লাগিল, কিন্তু তাহার হাসির মধ্য হইতে একটা সন্দেহ যেন উকি মারিতেছিল-ভাবটা যেন—“তোমরা হাসছ যখন, আমিও না হয় হাসি—কিন্তু হাসির এমনই কি কারণ উপস্থিত হয়েছে ?” হাসি থামিলে, গহিণী বলিলেন—“আহা দিও ওকে একখানি মোটরকার কিনে। একখানি ছোটখাট কার কত হলে হয় ?” “দহাজার।” "আহা—তা দিও। সাহেবকাকার মোটরখানি দেখে মেয়ের নাল পড়ে। ও আমায় চপি চাপি ওর মনের গোপন প্রাথনোটি কতদিন জানিয়েছে। তোমায় লজায় বলতে পারত না—আজ বলে ফেললে।" নীলমণি বলিল—“আচ্ছ—এবার কলকাতায় গিয়ে একখানি এনে দেব না হয়। সব টাকা ত একসঙ্গে দিতে হয় না-কিল্পিত কিঙ্গিত দিলেই চলে।" . সেই একদিন—আর এই একদিন । ঠিক একটি বৎসর পাবে”—এই সরলার জন্যই মীলমণি এক টাকা মল্যের এটি মেমপতুল আনিতে চাহিয়াছিল—নিজেদের অবস্থা স্মরণ করিয়া গহিণী টাকাটি দিতে অস্বীকার করিয়াছিলেন! -

क्लफुथ' अब्रिट्झन

নীলমণির বাগলা হইতে সাধাংশর বাগলাটি প্রায় অন্ধমাইল ব্যবধান। সাধাংশ জাসিয়াছে শনিয়া নীলমণি তাহার সঙ্গে সাক্ষাৎ মানসে প্রস্তুত হইতেছিল, এমন সময় দধাংশর ভৃত্য একখানা পত্রসহ এককুড়ি কাঁকড়া, একশোটা কমলালেব এবং এক টকার ੀਮ প্রভৃতি তরকারীপাতি আনিয়া দাঁড়াইল। পরে লেখা ছিল, বিশেষ প্রয়োজন আছে লীলমণি যেন শীঘ্ন গিয়া সাক্ষাৎ করে। কাঁকড়া কপি প্রভৃতি দেখিয়া নীলমণি স্মীকে বলিল—“তবে ভয়ারও রান্না এইখনেই কল্প-রাত্রে তাকে খেতে নিয়ে আসব এখন।" গহিণী বলিলেন—“তা বেশ।" মীলমণি তখন সজিত হইয়া, ছড়ি হাতে করিয়া বড়সাহেবের বাংগলা অভিমুখে পদछालमा दर्गझल । - পে'ছিয়া দেখিল, সন্ধাংশার চেহারা অত্যন্ত খারাপ হইয়া গিয়াছে। তাহার মাখ • ১৯২