পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৭৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ফটিতেছে। গহস্বামীর আজ্ঞায়, পাঁচ মিনিটের মধ্যে ভূত্য আরও দই পেয়ালা চা প্রস্তুত করিয়৷ আনিল । সন্ধ্যার পর রাজেন্দ্রনাথের বাড়ীতে চায়ের সদাব্রত। যেই আসুক, তাহারই জন্য চা প্রস্তুত। গলপ করতে করিতে রাজেন্দ্রনাথ মাঝে মাঝে ঘড়ির পানে চাহিতেছে । বাহিরে পদশব্দ শুনিলেই বারের পনে চাহিয়া দেখে। তাহার এই ভাব লক্ষ্য করিয়া শরদিন্দ বলিল— "আজ তিনকড়িবাব এখনও এলেন না ?” রাজেন্দ্র বলিল—“হ্যাঁ তাই ত ভাবছি। আজ এখনও এল না কেন ? আটটা বাজে প্রায় !” আটটা বাজিবার পর্বে তিনকড়ি আসিয়া প্রবেশ করিল। আজ তাহার মুখখানি বৈশ হাসি হাসি । রাজেন্দ্র কলিল—“কি হে, আজ এত দেরী য ? তিনকড়ি একখানি চেয়ার টানিয়া বসিয়া বলিল—“আজ আপিস থেকে বেরতেই দেরী হয়ে গেল। আজ একটা শুভসংবাদ আছে ভাই।" সকলে উৎসকে হইয়া তিনকড়ির মুখের পানে চাহিল। রাজেন্দ্র জিজ্ঞাসা করিল-“কি বল, বল ।” “আমার মাইনে বেড়েছে।” রাজেন্দ্রনাথ সজোরে টেবিল চাপড়াইয়া বলিল—“হররে ; কত ? কত বাড়লো ?” তিনকড়ি বলিল—“ ২৫ টাকা বেড়েছে।" রাজেন্দ্রনাথের মখে আনন্দ-জ্যোতি ফুটিয়া উঠিল। বলিল—“ব্ল্যাভো ! এস আজ আর এক এক প্লেয়ালা চা খাওয়া যাক ওরে রামধনিয়া—আওর চা লে আও 1" উপস্থিত সকলেই আনন্দ করিতে লাগিল। শরদিন্দ বলিল—“শুধ চা খেয়েই কি আমরা ছাড়ব ? রীতিমত ভোজ চাই। তিনকড়িবব খাওয়াচ্ছেন কবে বলুন।" রাজেন্দু বলিয়া উঠিল—‘তিনকড়ির হয়ে আমিই খাওয়াব। কবে খাবেন বলন।” অধর বলিল—“সমুখের এই শনিবারে।” “বেশ—তাই হবে ” নতন পেয়ালা চা পান করিতে করিতে মহা-উৎসাহের সহিত ভোজ সম্বন্ধে পরামর্শ চলিতে লাগিল । মাসের ত্রিশটি দিন সন্ধ্যাবেলায় তিনকড়ি রাজেন্দের সঙ্গেই বসিয়া কাটায়। আপিস হইতে ফিরিয়া হাতমখ ধাইতে যে দেরী—তারপরই এখানে ছটিয়া আসে। এইখানেই সে প্রতি সন্ধ্যায় চা-পান করে। জলযোগও এইখানেই সম্পন্ন হয়। এই নিয়মই বহনবৎসর হইতে চলিয়া আসিতেছে। বাল্যকাল হইতেই রাজেন্দ্রনাথ ও তিনকড়ির মধ্যে প্রগাঢ় বন্ধত্ব। রাজেন্দ্র যদিও ধনীর সন্তান এবং তিনকড়ির পিতা সমান্য চাকুরিজীবী ছিলেন, তথাপি উভয়ের বন্ধত্বে কোনও ব্যাঘাত হয় নাই। দুইজনে প্রায় সমবয়সী, বাল্যকালে একই বিদ্যালয়ে পাঠ করিত, একসঙ্গেই প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীণ হইয়া কলেজের পাঠ আরম্ভ করে। বি-এ পড়িবার সময়, কয়েক দিন অগ্রপশচাৎ উভয়েরই বিবাহ হয়। তখন হইতেই উভয়ের বন্ধত্ব আরও ঘনীভূত হইয়া উঠিল। নিজ নিজ নবীনা প্রেয়সীর গুণগান পরস্পরের কণে অবিশ্রাম গঞ্জন করিয়া কিছুতেই ইহাদের তৃপ্তি হইত না; এবং উক্ত মহাশয়াগণের পিতৃগৃহে অবস্থানকালীন কাহারও একখানি প্রেমলিপি আসিলে, যতক্ষণ সেখানি সে বন্ধকে না দেখাইতে পারিত ততক্ষণ ছটফট করিতে থাকিত ! এই সময় হইতেই এ দুইজনের বন্ধত্বের নিবিড়তার আরও একটি কারণ উপস্থিত Bk SBBB uDBBB BBB BBS BBBB BB BBB BBBB BBBBS BBBB সেটি দেখাইবার জন্য ছটিত সে সব দিনে, কবিতা প্রকাশের চে-টাও যে ইহারা না করিয়ছিল এমন নহে। উভয়েই অনেকগুলি করিয়া কবিতা কয়েকটি মাসিকপত্রে পাঠাইয়া ఎళీ -