পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৮৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রকমই হবে। আপনাদের কার কাছে বোধ হয় সেকেণ্ড ক্লাসের টিকিট নেই “ . সেকেণ্ড ক্লাসের ত নহেই—কোনও ক্লাসের টিকিট কাহারও কাছে ছিল না। ইহারা নৈহাটিতে সঙ্কীত্তন কবিবেন বলিয়া, কাঁচড়াপাড়া হইতে নৈহাটির ইন্টারমিডিয়ট টিকিট কিনিয়াই সকলে আসিয়াছিলেন। এই কথা শুনিয়া অনেকেরই মখে ভীতিলক্ষণ প্রকাশ পাইল। একজন সাহস করিয়া বলিলেন--"আপনাদের কাছে কোন ক্লাসের টিকিট আছে - ק 6""ཨྰཿ ༈ ། বলিল, ”টিকিট দেখবেন ? দাঁড়ান-গাড়ী থামক—পলিশ ডেকে আপনাদের ভাল করেই টিকিট দেখাব। আমার পাশে যিনি বসে রয়েছেন, ইনি কার দী আপনারা জানেন ? ইনি যাঁর সন্ত্রী, তিনি মনে করলে, আপনাদের প্রত্যেককে একটি বছর করে জেলে পাঠাতে পারেন। ঘাঘ দেখতে এসেছিলেন এবার ফাঁদ দেখন।” বাবরা পরস্পর বলবিলি কয়িতে লাগিলেন—“উনি বোধ হয় কোনও জজ ম্যাজিস্টেটের সত্রী।” একজন বিনীত সবরে বলিলেন—“আমরা ত কোনও অসদভিপ্রায়ে আসিনি।” “কি অভিপ্রায়ে এসেছিলেন, আদালতে প্রমাণ করবেন।” হরসন্দরবাব এতক্ষণ নীরবে দাঁড়াইয়া ছিলেন। ব্যাপার এ পর্যন্ত গড়াইলে, আর নীরব থাকা তিনি নিরাপদ বিবেচনা করিলেন না। বঝিলেন সেই পাগলা বাড়ীর কথা শনিয়া বাসতবিকই অত্যন্ত অন্যায় করিয়া ফেলিয়াছেন। এখন ইহাদের খোসামোদ ভিন্ন আর উপায় নাই। সঙ্কীত্তন করিতে আসিয়া পুলিশ হাজতে বন্ধ হওয়া মোটেই প্রীতিকর নয়। এই ভাবিয়া অবগণ্ঠনবতী সীলোকটিকে লক্ষ্য করিয়া তিনি উচ্চৈঃস্বরে বললেন —“আমাদের একটা মস্ত ভুল হয়ে গেছে—দয়া করে আমাদের মাফ করুন। পরের স্টেশনেই আমরা সকলে নেমে যাব। আপনার পায়ে পাঁড় আমাদের ক্ষমা করন-ঈশ্বর জানেন—আমাদের কোনও মন্দ অভিপ্রায় ছিল না।” কথা শেষ হইতে না হইতেই –চাদরটাকা মাতৃ-ক্রোড়পথ শিশু চীৎকার করিয়া উঠিল —“বাবা ।” - - হরসন্দরবাব বলিয়া উঠিলেন—“কে? খোকা ?” চাদরের ভিতর হইতে “ব-ব-ব" একটা শব্দ হইল-কে যেন খোকার মুখ চাপিয়া ধরিয়াছে। খোকা সজোরে জুতাসন্ধ পা দটি ছড়িতে লাগিল। মা ও ছেলেতে রীতিমত খণ্ডযুদ্ধ আরম্ভ হইল। মীর গায়ের আবরণ খলিয়া ছিড়িয়া ছেলে লাফাইয়া পড়িল। হরসন্দরবাব দেখিলেন—তাঁহার স্ত্ৰী-পরিধানে তসরের শাড়ী, কপালে রক্তচন্দনের ফোঁটা, গলায় সিন্দর ও চন্দনলিপ্ত ফলের মালা—অচল হইতে কতকগলা চন্দনমাখা ফল ও বিল্বপত্র গাড়ীর মেঝেতে ছিটাইয়া পড়িল। হরসন্দরবাব সতভিত। খোকা আসিয়া তাঁহার জানু ধরিয়া দড়িাইল অপর ভদ্রলোকগণ অবাক হইয়া এই দশ্য দেখিতে লাগিলেন । হরসন্দরবাব বললেন, “খোকা, কোথা গিয়েছিলি বাবা?” খোকা উৎসাহের সহিত শিরশচালনা করিয়া বলিল, “থাকুলেল পজো দিতে। আমি গিয়েছিলাম, মা গিয়েছিল, মছি গিয়েছিল । থাকুলেল মাথায় বলো বলো দটো ছাপ—ফেসি। বেশ ভাল থাকুল।” পঙ্কজিনী মাথায় গায়ে চাদর পনরাবত করিয়া কাঠ হইয়া বসিয়া রহিল। শরৎশশী তদুপ। যতক্ষণ সে মনে করিয়াছিল কেহ আমাকে চিনিবে না, ততক্ষণ সে বাচালতা প্রকাশ করিয়াছিল। এখন ধরা পড়িয়া লজ্জায় সে মতবৎ। দণ্ডায়মান অন্যান্য বাধাগণ এই ব্যাপার দেখিয়া, কেহ ব্যংগ কেহ সহানুভূতির দটিতে হরসন্দরবাবর পানে চাহিয়া রাঁহলেন । , ট্রেণের গতিবেগ হ্রাস হুইতেছিল—ক্লমে বারাকপরে আসিয়া দাঁড়াইল। অন্যান্য বাবগণ টপ টপ করিয়া নামিয়া গেলেন। হরসন্দরবাব ”হা জগদীশবর!”—বলিয়া ఫిలీపి