পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৮৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সুরেন্দ্র হাসিয়া বলিল—“আপনি যা বলছেন, তাই যদি সত্য হয়, তাহলে বেশী বিপদে আর কি পড়ব দাদা ? মরার বেশী ত আর গাল নই! কিছু ভাববেন না-ঠিক কষ্য উদ্ধার করে আসব।” বকুবাব বললেন— যা ভাল বোঝ কর ভাই--দেখো যেন বিপদ-আপদ ঘটিয়ে না। আমার ষেতে বারণ করছ, আমি কি তা হলে ধৰ্ম্মশালাতেই থাকব ?” "না, আপনিও আমাদের সঙ্গে গাড়ীতে যাবেন। বিন্ধ্যাচলের বাজারে নেমে আপনি দাদার বাসায় গিয়ে আমাদের জন্যে অপেক্ষা করবেন। আমি টনকে, বউদিদিকে নিয়ে অল্টভূজা দশ'নে চলে যাব। সন্ধ্য নাগাৎ দাদার বাসায় এসে পৌছব।” বঙ্কবাব মুখ বাঁকাইয়া বলিলেন—“তোমার দাদার বাসায় আমি যাচ্ছিনে ৷” “কেন দাদা ?” "কেন ?—সে কথাওঁ জিজ্ঞাসা করছ ? যে রাক্তি আপনার ভাইয়ের প্রাণ নিতে উদ্যত— সেই খনীর সঙ্গে বসে আমি মিটালাপ করব ? সে আমার দ্বারা কোন মতেই হবে না।” কথাগুলি শুনিয়া সরেন্দ্রনাথের মখে লজ্জায়, দঃখে এতটুকু হইয়া গেল। বিষঃস্বরে বলিল—“আচ্ছা, আপনি তবে সেই হিন্দীনিবাসেই গিয়ে উঠবেন । দাদার সঙ্গে দেখা করে, সন্ধ্যার পর আমি আপনার কাছে যাব এখন।" . আহারাদি শেষ হইলে বঙ্কুরাব গাড়ী ডাকিতে গেলেন, সুরেন্দ্রনাথ একটু নতনতর বেশবিন্যাসে প্রবত্ত হইল। সোঁখীন পাঞ্জাবী কোত্তাটি খালিয়া ফেলিয়া প্রথমে একটা টইলের টেনিস-শার্ট, তাহার উপর একটা গলাখোলা ইংরাজী কোট পরিধান করিল। কোটের বকপকেটে একটা পেন্সিল-গোঁজা পকেট-বাক ভরিয়া দিল। মস্তকের বামভাগে সচরাচর ষেরুপে টেড়ি কাটিত তাহা মছিয়া ফেলিয়া, ঠিক মাঝখানে চেরা সিথি কাটিল— কপালের কাছে দই ধারের চল বরষের সাহায্যে দুইটি শিঙের মত উচ্চ করিয়া দিল । পাপ-শ ছাড়িয়া, সতি মোজার উপর একজোড়া নালবাঁধা হাতীকাণের বটজত পরিল। কারসমৃদ্ধ সোণার পাঁস-নে চশমাযোড়াটি খলিয়া বাগের মধ্যে রাখিয়া দিল। একখানা রঙ্কুবাব ফিরিয়া আসিয়া তাহার চেহারা দেখিয়া অবাক । বলিলেন—“একি সাজ ? গলা-খেলা কোট, এ শার্ট, এ বট পেলে কোথা ? কোনও দিন ভ তোমায় এ সব পরতে দেখিনি !" "চেয়ে-চিন্তে সংগ্রহ করে এনেছি। আজি আমি সে সরেন নই। আজ আমি কে জানেন দাদা ?” “কে ?” শ্যালকের কাণে কাণে সুরেন্দ্র বলিল, “পাটের দালাল।” বকুবাব ভ্রফগল কুঞ্চিত করিয়া বললেন—“কি যে মতলব করেছ, কিছই কবতে । পারছিনে। দেখো ভাই, সাবধান, চালাকি করতে গিয়ে যেন সাধবাবার অভিশাপগ্ৰস্ত হয়ে এস না fr - গাড়ী আসিয়াছিল। ধর্মশালার ভৃত্যগণকে বখসিস করিয়া, জিনিষপত্র গাড়ীতে তুলিয়া ইহারা রওয়ানা হইলেন। সরেন্দ্রের অনুরোধসত্ত্বেও বঙ্কুবাব, গাড়ীর ভিতরে বসিলেন না—কোচরাক্সে উঠিয়া ছাত মাথায় দিয়া, কোচম্যানের পাশে বসিলেন। অস্টম পরিচ্ছেদ দশ বকুযাব বিন্ধ্যাচলের বাজারে নামিয়া গেলেন, গাড়ী অস্টভূজা-অভিমুখে লল । rw অষ্টভুজা-পাহাড়ের নিনে পেপছিলে, সুরেন্দ্রনাথ সাধবাবার আশ্রমটি অনায়াসেই চিনিতে পারল-বুকুবাব উত্তমরপে নিন্দেশ করিয়া দিয়াছিলেন। পাহাড়ে ঠিয়া প্রথমে ই-হারা অষ্টভুজা-মত্তি দশন করিলেন। মন্দিরটি পর্বতগাত্রে খোদিত গহর-বিশেষ।

  • (రి