পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৮৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পদব্রজেই বাসায় যাওয়া সিথর করিল। পকেট হইতে পাইপটি বাহির করিয়া তাহাতে তামাক ভরিল। দন্তে তাহা চাপিয়া ধরিয়া, ওভারকোটের কলারটা বেশ করিয়া উঠাইয়া দিয়া, তাহার বোতাম বন্ধ করিল। একটা থামের আড়ালে সরিয়া গিয়া দই তিনটি কাঠি খরচ করিয়া পাইপ ধরাইল। তাহার পর ছাতা মাথায় দিয়া রাস্তায় নামিয়া পড়িল। সবিস্তৃত সরকারী বাগান—তাহার ভিতর দিয়া যাইলে পথ একটা সংক্ষিপ্ত হয়, সেই জন্য শরৎ পাকে প্রবেশ করিল। আকাশ যে দিন পরিকার থাকে-রৌদ্র উঠিলে ত কথাই নাই--সেদিন সেই পাকের ভিতর শিশুরাজ্যের মেলা বসিয়া যায়। যাবতী নাসরি গভর্ণেসগণ চটলবেশে সাঁজত হইয়া, মানিবের ছোট ছোট ছেলেমেয়েগালিকে এখানে হাওয়া খাওয়াইতে লইয়া আসে। এক একখানি বেষ্টিতে দুই তিনজন যাবতী বসিয়া মনের সুখে গল্পগজব করে, ছেলেমেয়েগুলি চারিদিকে হাস্য কলরবের সহিত ছাটাছটি খেলা করিতে থাকে। অনেক স্ত্রীলোক এই পাকে বেড়াইতে আসে ;–পরেষের সংখ্যা কম। আজ কিন্তু পাকটি জনশন্যে। ফলগাছগুলি নিতান্ত নিজীব; অধিকাংশ বড় গাছগুলির পাতা ঝরিয়া গিয়াছে, কেবল এখানে ওখানে দুই একটি ওক-ব্যক্ষ আছে, তাই একটু সবুজ রঙ চক্ষে পড়ে। পাখী—তাহারা শীত পড়িতেই পলাইয়া গিয়াছে। বরফ যেমন পড়িতেছিল, তেমনি পড়িতে লাগিল। পথের উপর আধ হাত উচ্চ. পেজ তুলার মত বরফ জমিয়াছে, কঙ্করগুলি সম্পাণভাবে সমাহিত। শরৎকুমার সেই বরফ মাড়াইয়া ঘস ঘস শব্দে চলিতেছেঃ অহার বটেজ তার চাপে, এক একটি করিয়া ছাঁচ তৈয়ার হইয়া যাইতেছে, আবার নতন বরফ পড়িয়া সে গৰ্ত্তগুলিকে ভরিয়া দিবার চেষ্টা করিতেছে। বাতাসে বরফ উডিয়া তাহার ওভারকোটের গায়ে আসিয়া বসিতেছে, কিন্তু কাপড় ভিজিতেছে না। ছাতার উপর বরফ জমা হইয়া ছাতাকে ভারি করিয়া তুলিতেছে। ছাতা হইতে, ওভারকোট হইতে, বরফ ঝাড়িয়া ফেলিয়া শরৎ আবার অগ্রসর হইতেছে । এই মনুষ্যহীন পশপেক্ষিবজিত পাকের প্রায় মাঝামাঝি আসিয়া শরৎকুমার যাহা দেখিল, তাহাতে সে অতিমাত্রায় বিস্মিত হইল। দেখিল, পথপাবে প্রকাণ্ড একটি ওকব্যক্ষ, তাহার নিনে একখানি বেঞ্চি, সেই বেঞ্চির উপর একটি শাদা-কালো রঙের কুকুরছানা পশ্চাতের পা দখানির উপর উব হইয়া বসিয়া, শীতে ঠক ঠক করিয়া কাঁপিতেছে। শরৎ সেখানে দাঁড়াইল। কুকুরটি তাহাকে দেখিয়া, চারি পায়ে ভয় দিয়া সেই বেঞ্চির উপর দাঁড়াইয়া উঠিল এবং প্রাণপণে লাগলটি আন্দোলিত করিতে লাগিল। তাহার ভাবটা যেন—“ওগো, আমার বড় বিপদ ; শীতে যে মারা যাইতে বসিয়াছি, আমায় রক্ষা কর।” - .3 শরৎ কুকুরটির নিকটবত্তী হইয়া, তাহার মাথায় দুইটি অঙ্গলির মদ আঘাত করিয়া zifrīzi, "Hello, whose little doggieare you?” (şfs grą zostạfè ?) কুকুর-ছানা তাহার লম্বা জলসিক্ত কাণ দুইটি পশ্চাৎভাগে গটাইয়া ব্যাকুলনয়নে শরৎকুমারের প্রতি চাহিয়া রহিল। ভাবটী যেন—"ঈশ্বর কি আমার কথা কহিবার ক্ষমতা ' দিয়াছেন যে উত্তর দিব ? যারই কুকুর হই না কেন, এখন আমার প্রাণ ত বাঁচাও !” কুকুরটির গায়ে বড় বড় লোম। কাই দুইটির অগ্রভাগ, চক্ষর চারিধার, পিঠে একথান এবং লাঙ্গলের মলদেশ কালো-বাকী সমস্ত অংশ শাদা। গাছের পাতা হইতে বরফ - ঝরিয়া তাহার গায়ে পড়িয়ছে, গায়ের গরমে সে বরফ গলিয়াছে, জলে কুকুরটি ভিজিয়া বিড়ালটি হইয়া দাঁড়াইয়াছে। চক্ষ দুইটি লাল টক টক করিতেছে। বয়স চারি পাঁচমাসের অধিক হইবে না। দেখিতে বড় সন্দের। শরৎকুমার চারিদিকে চাহিয়া- দেখিল—যদি কুকুরের মালিককে কোথাও দেখিতে পাওয়া যায়। কিন্তু পতনশীল তুষারে দটিচক্র অবরুদ্ধ। শ্রবণচক্লের মধ্যে যদি কেহ રજ4