পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৯১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কিনিয়া লইয়া যাইবে। আড়তে পেপছিয়া নিতাই দেখিল, চাকরবাকর সকলে চলিয়া গিয়ছে, কেবল আপিস ঘরে টিম টিম করিয়া একটি লণ্ঠন জলিতেছে, আর তাহার দাদা গালে হাত দিয়া টেবিলের নিকট একাকী বসিয়া আছেন। निष्ठाझे छाकिळा, "मामा ।” স্বর শনিয়া অদ্বৈত হঠাৎ চমকিয়া উঠিল। বলিয়া উঠিল, “কে, নিতাই ? এত রাত্রে কি ?” নিতাই বলিল, "দাদা, সেই টাকাগুলো ত আজ—” অদ্বৈত বলিল, “আচ্ছা, সে আমি বাড়ী যাবার সময় নিয়ে যাব এখন।” নিতাই বলিল, “যদি ভুল হয়ে যায়, তা হলে কিন্তু—” অদ্বৈত বিরক্ত হইয়া বলিল, "আঃ–ভুল হবে কেন? টাকা আজ রাত্রেই পাবে—পাবে। এখন বাড়ী যাও।” দাদার ভাবভঙ্গি দেখিয়া নিতাই একটা আশ্চর্য হইল। “আচ্ছা তা হলে যাই।”— বলিয়া আপিস ঘর হইতে সে বাহির হইল। অদ্বৈত ডাকিয়া বলিল, "ওহে শোন। একটা কথা শোন ।” নিতাই পুনঃপ্রবেশ করিয়া বলিল, “আজ্ঞে ?” “বাড়ী গিয়ে, আমার জন্যে এক কলসী জল গরম করতে বোলো ত। গিয়েই আমি চান করব ।” - নিতাই বলিল, “এত রাত্রে স্নান করবেন ?” “হাঁ্য—হ্যাঁ—চান করব।” “আপনার শরীর ভাল আছে ত ?” “বেশ আছে—বেশ আছে—চট করে বাড়ী যাও।” এই সময় দোকানের একজন কমচারী খালি গায়ে একটা কেরোসিনের টিন হাতে করিয়া আপিস ঘরে প্রবেশ করিল। নিতাইকে দেখিয়া চমকিয়া উঠিয়া সে ব্যক্তি বলিল, “কে. ছোটবাব; ” নিতাই বলিল, “এত রাত্রে তেল কিনতে গিয়েছিলে নাকি : সে বলিল, ”আজ্ঞে না । কতকগুলো কাঠে উই লেগেছিল, তাই সেগুলোতে খানিক কেরাচিন ছড়িয়ে দিয়ে এলাম।”—বলিয়া সে ব্যক্তি অদ্বৈতবাকর পানে চাহিয়া রহিল। অদ্বৈত বলিল, “নিতাই তুমি যাও চট করে, দেরী কোরো না।” নিতাই বাড়ী আসিয়া পেপছিল। গোলাপ বলিল, “আমার মালা কই ?” নিতাই বলিল, “ঐ ষাঃ—ভুলে গেছি।” আহারাদি করিয়া নিতাই তাহার বন্ধ, হৃদয় মাল্লকের বাটীতে গেল ; সেখান হইতে উভয়ে বারকোপ দেখিতে যাইবে । وي - অনেক রাত্রে ডাকাডাকি হাঁকাহাকিতে বাড়ীর সকলের ঘুম ভাঙ্গিয়া গেল। ছটিয়া শয়নকক্ষ হইতে বাহির হইয়া সকলে শুনিল, সব্বনাশ হইয়াছে, আড়তে আগন লাগিয়া গিয়াছে। নিতাই তখনও ফিরে নাই। খালি গায়ে খালি পায়ে অদ্বৈত আড়তের দিকে ছটিল। রাত্রি তখন দুইটা। বাড়ীর অনেকেই, কত্তার পশ্চাৎ পশ্চ,ং ছটিল। স্ট্র্যান্ড রোডে পৌছিয়া আড়তের দিকে চাহিয়া সকলে দেখিল, অগ্নিদেব শত শত লোলরসনা বিস্তার করিয়া, ভৈরব হঙ্কোরে নত্য করিতেছেন । রাস্তায় অসম্ভব ভীড় ঠেলিয়া, অদ্বৈত আড়তের সম্মখে পেপছিয়া পাগলের মত আগনের পানে চাহিতে লাগিল। বাক চাপড়াইতে চাপড়াইতে বলিতে লাগিল, “হায় হায় হায়, কি সববনাশ হয়ে গেল—কি সব্বনাশ হয়ে গেল ! হায় হায় হায় ।” లృతి