পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৯২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নানা গ্রন্থ রক্ষিত আছে—তাহার মলাটগুলি সোণা রপোর পাতে মোড়া, হীরা মেতি চনী পান্না খচিত। কালিদাস একখানি পুথি তুলিয়া লইয়া বলিলেন, “এটা কি গো ? বেশ চকচক করছে ত " রাজকন্যা বললেন, “ও একখানি কাব্য ।” কালিদাস জিজ্ঞাসা করিলেন, “কাব্য কি ? এতে কি হয় ?” রাজকন্যা বলিলেন, “পড়তে হয় ।” কালিদাস বলিলেন, “পড়তে হয় ? ও?—বঝেছি—ক-খাঁর বই। আমি ছেলেবেলায় ক-খ শিখেছিলাম, এখন ভুলে গেছি।" রাজকন্যা কোনও উত্তর না দিয়া, বিরক্তিভরে কক্ষান্তরে চলিলেন। কালিদাসও পশ্চাৎ পশচাং চলিলেন। তিনি যাহা দেখেন, তাহারই সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করেন—“এটা কি গেী ? এতে কি হয়?” রাজকন্যা মনে ভাবিতে লাগিলেন, "এই মগধের রাজপত্র। যাহা দেখিতেছে, সবই ইহার পক্ষে নতন ঃ জীবনে এ কি কিছুই দেখে নাই ?” পরে রাজকন্যা চিত্রশালায় প্রবেশ করিলেন। বড় বড় চিত্রকরগণ কর্তৃক অঙ্কিত রামায়ণ মহাভারতাদির নানা চিত্র তথায় শোভা পাইতেছে। কালিদাস যে ছবিই দেখেন, তাহারই সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করেন—“এটা কি গো ?”—রামায়ণ মহাভারতের কোন চিত্রই কালিদাস চিনিতে পারলেন না। অবশেষে নবদম্পতী একখানি বান্দাবন-চিত্রের সম্মখে আসিয়া দড়িাইলেন। শ্রীকৃষ্ণ কদমতলায় বসিয়া রাধিকার মাত্তি ধ্যান করিতেছেন—কিয়ন্দরে বড় বড় গর চরিতেছে। এই প্রথম কালিদাস উচ্ছসিত হইয়া উঠিলেন। বলিতে লাগিলেন—“আহা !—কিবে গাইগনি! কিবে বাট —আঃ, ইচ্ছে করছে একটা বোগানো নিয়ে চ্যাঁকচোঁক করে দধ দই।” রাজকন্যা জিজ্ঞাসা করিলেন, “দ্ধ দইতে জান নাকি ?” কালিদাস বলিলেন, “তা আর জানিনে —গর চরিয়ে আর দধে দুয়েই ত এত বড়টা হলাম!” রাজকুমারী বিস্মিতভাবে স্বামীর মাখের পানে চাহলেন। কৌশলে তাঁহার পরিচয় জিজ্ঞাসা করিলেন। কালিদাসের জন্মেতিহাস, চড়ামণির সহিত তাঁহার সাক্ষাৎ ও কথোপকথন—সকল বক্তান্ত শনিয়া, ললাটে করাঘাত করিয়া নিকটস্থ পর্যাঙ্কপ্রান্তে তিনি বসিয়া পড়িলেন। তখন সহসা সেই বাল্যকালের কথা-চড়ামণির সহিত কলহ—তাঁহার মনে পড়িয়া গেল। বঝিলেন, চড়ামণিই তাঁহার এই সববনাশ ঘটাইয়াছে। ক্ৰোধে ক্ষোভে অভিমানে রাজকন্যা আত্মহারা হইয়া পড়িলেন। সব্বাঙ্গে যেন বশিচক দংশনের জবালা অনুভব করিতে লাগিলেন। মনে হইতে লাগিল—এই মুখ বাবরের সঙ্গে চিরজীবন কি করিয়া আমি কাটাইব ! অদরে ভিত্তিগাত্রে একখানি তরবারি ঝুলিতেছিল, সেই দিকে হঠাৎ রাজকন্যার দটি পড়িল। চক্ষের পলকে তিনি উঠিয়া সেই তরবারি গ্রহণ করিয়া, কালিদাসের শিরশেছদন করিতে উদ্যত হইলেন । কাসিদাস দই লফে পিছাইয়া গিয়া বলিলেন, "এ কি! আমায় কার্ট কেন ?" রাজকন্যা প্রবলভাবে নিঃশ্বাস ফেলিতে ফেলিতে বলিলেন, “তোমার হাত থেকে নিম্প্রকৃতি পাবার জন্যে ” কালিদাস বললেন, “বাং—মজার লোক তুমি! আমি মরলে তুমি বিধবা হবে না ?” "বিধবা হব সেও ভাল। সারাজীবন তোমায় নিয়ে জলে পড়ে মরার চেয়ে, বিধবা হয়ে থাকাও ভাল।” 峰 কালিদাস বললেন কেন আমার তুলে পড়ে মবে কেন? আমার অপরাধ ?”