পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আমরা ভালবাসিয়া ফেলিয়াছি। হেনরি এমন ভাল, উহার ভূত জীবন নরশোণিতে কলঙ্কিত ? দসাবত্তি করিয়া জীবিকা নিববাহ করিত ? উহার প্রাণদণ্ড হইবে ? হেনরি যে আমাদের পরমাত্মীয়ের মত ! হেনরি যে আমার প্রাণাধিকা কন্যার জীবনদাতা ! উহার ফাঁসী হইবে ? বন্ধ বলিলেন—“এখন কি উপায় ভাবিতেছেন ? এইবেলা পলিস ডাকিয়া উহাকে ধরাইয়া দিন, তাহা হইলে প্রমাণ করা সহজ হইবে যে আপনি যে উহাকে আশ্রয় দিয়াছেন, তাহা না জানিয়া।” আমি উত্তেজিত হইয়া বলিলাম—“হেনরিকে আমি ধরাইয়া দিব ? বরং উহাকে এখনি গিয়া সাধবান করিয়া দিব।" মরিন পা দটা খুব ফাঁক করিয়া দিয়া, চেয়ারের পষ্ঠে এলাইয়া পড়িয়া, যেন ভারি নিরাশ হইয়া বলিলেন—“বাব, আপনি একজন সাঁশিক্ষিত পদস্থ ব্যক্তি হইয়া এমন কথা বলিতেছেন ? আইনের কবল হইতে তাহার ন্যায্য শিকারকে কাড়িয়া লইবেন ? সকলেই যদি আপনার মত এইরুপ ভাবাপন্ন হয় তবে ত এই সবিপুল সুখময় জনসমাজস্বরুপ অট্টালিকা দুইদিনে চণবিচণ হইয়া ধুলিসাৎ হইয়া যায় !" আমি ভারি দমিয়া গেলাম; কথাটা ঠিক বটে। কিন্তু আমি কোন ধৰ্ম্ম বা কোন নীতি অনুসারে আমার কন্যার প্রাণদাতার প্রাণদণ্ডে সহায়তা করব ? মরিসনকে বলিলাম—“হেনরি যদি প্রকৃতই অপরাধী হয়, তাহা হইলে সে রাজদণ্ডের উপযুক্ত সন্দেহ নাই। কিন্তু আমি স্বয়ং আয়োজন করিয়া উহাকে ধরাইয়া দিতে একান্ত অক্ষম।” মরিসন বলিলেন—“আপনি ত বলিয়াছেন যে উহাকে আপনি সাবধান করিয়া দিবেন এবং যাহাতে সে ধত না হয় সে চেস্টা করবেন।” আমি বিস্ময় প্রকাশ করিয়া বলিলাম—“কই তাহা ত অামি বলি নাই! উহাকে সাবধান করিয়া দিব বলিয়াছিলাম বটে, কিন্তু যাহাতে সে ধত না হয় সে চেস্টা করিব এমন কথা কখন বলিলাম?” মরিসন ইহার উত্তর দিবার পর্বেই আবার বললাম—“যদিও ধন্মতঃ বন্ধ জিজ্ঞাসা করিলেন—“কেন ?" আমি গিরিবালার রোগ এবং হেনরি কেমন করিয়া তাহার জীবনরক্ষা করিয়াছে, তাহার সমস্ত ইতিহাস আনপৰিবাক বলিলাম। শুনিয়া তিনি কিরৎশল মৌন হইয়া রহিলেন। আমি জিজ্ঞাসা করিলাম—“কিন্তু এ সকল সংবাদ আপনি পাইলেন কোথা বলন দেখি ?” তিনি বলিলেন—“মনে আছে হেনরি যখন প্রথম আসিয়াছিল । তখন আমি তাহার যাংগুলীপূরিচ্ছদ দেখিয়া অত্যন্ত হাসি এবং তাহার ফোটোগ্রাফ তুলিয়া লই ?” | ੇ আমি লণ্ডনের ‘স্ট্রান্ড ম্যাগাজিন পাঠাইয়া দিয়াছিলাম। উহা ঐ পত্রের িউরিয়সিটির ভিতর মুদ্রিত হইয়াছে। সে ছবি দেখিয়া লণ্ডন-পলিস হেনরিকে চিনিতে পারিয়াছে। হেনরিকে ধত করিবার জন্য কলিকাতার পলিস-কমিসনারকে তাহারা অনুরোধ করিয়াছে। পলিস-কমিসনার আমার কাছে হেনরির ঠিকানা জিজ্ঞাসা করিবার জন্য লোক পাঠাইয়াছিলন।” “আপনি ঠিকানা বলিয়াছেন ?” “কি করিব, আইন অনসারে আমি বলিতে বাধ্য।" শনিয়া আমি অত্যন্ত হতাশ হইয়া পড়িলাম। হেনরিকে বাঁচাইবার আশা ছাড়িয়া দিতে হইল। আহা! বড়া বয়সে বেচারির অদস্টে এই লেখা ছিল ? আর আমার চোখের সমখে তাহাকে হাত-কড়ি লাগাইয়া ধরিয়া লইয়া যাইবে, তাহাঁই ষা কি করিয়া সহ্য করি ! আমি কি তাহার এন্য কিছই করিবার অধিকারী নহি ? আমিই ত তাহার মৃত্যুর কারণ হইলাম। কেন আমি বাহাদরী করিয়া তাহাকে বাঙ্গালীর কাপড় পরাইলাম; & X