পাতা:প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়ের গল্পসমগ্র.djvu/৯৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পনাবার অগ্রসর হইলেন। কিয়ন্দর গিয়া মটিয়া বলিল, “এই পশ্চিমপাড়া আরম্ভ হল বাব। কোন বাড়ীতে ষাবেন ?” বাবটি বলিলেন, "চল না, দেখা যাক।” মটিয়া ভাবিল, বাবটি বোধ হয় কোনও ভদ্রগহসেথর বাড়ী অতিথি হইবেন—তা সে যেখানেই হউক। কিয়ন্দর গিয়া সে বলিল, “এইটে বিদ্যেভূষণ মশায়ের বাড়ী, তিনি মঙ্গত পণ্ডিত।” আর কিয়ন্দরে গিয়া বলিল, “এই চাটষোবাড়ী। আগে এরাই ছিলেন গাঁয়ের জমিদার।” বাব তথাপি দাঁড়ান না দেখিয়া, মটিয়া অগ্রসর হইল । আরও কিছদর গিয়া বাবটি আবার দাঁড়াইলেন। চতুদিক জঙ্গলে ঘেরা একখানি ভাঙ্গা বাড়ী, অধিকাংশই পড়িয়া গিয়াছে, এখানে ওখানে এক-আধটা দেওয়াল মাত্র দাঁড়াইয়া আছে। বাবটি সেই ভগ্নাবশেষের পানে একদস্টে চাহিয়া রহিলেন। মটিয়াও কিয়ন্দরে গিয়া দাঁড়াইয়া রহিল। শেষে বিরক্ত হইয়া বলিল, “কতক্ষণ দাঁড়াব বাবা ? কোথায় যেতে হবে চলন।” বাবটি তাড়াতাড়ি চাদরের প্রান্তে চক্ষমাজনা করিয়া বলিলেন, “আয়, চাটয্যেবাড়ীতে যাব।” "চাটয্যে-বাড়ী ত ছাড়িয়ে এলাম। সেইকালে বললেই হত।”—বলিয়া মটিয়া ফিরিল। চট্টোপাধ্যায়-ভবনে প্রবেশ করিয়া বামদিকে বৈঠকখানা। বাবটি সেই বৈঠকখানায় গিয়া উঠিলেন। বরান্দায় এক ভূত্য বসিয়া তামাক খাইতেছিল, সে ইহাকে দেখিয়া হয়কটি নামাইল। বাব জিজ্ঞাসা করিলেন, বাড়ীতে কে আছেন হে ?” ভৃত্য বলিল, “কত্তাবাব আছেন।” “রমণকৃষ্ণবাব ?” ভৃত্য একটা বিস্মিত হইয়া, ইহার মুখপানে চাহিয়া বলিল, “আজ্ঞে না, তিনি ত সবগে ।” “তবে কে, হদয়কৃষ্ণ বাব আছেন ?” ভূত্য বলিল, “আজ্ঞে না, তেনারও কাল হয়েছেন। রিদয়কিষ্ট বাবর মধ্যম পত্তির বিনয়কিট বাবুই এখন মালিক। জ্যেষ্ঠ পত্তির অতুলকিট বাব ও গত হয়েছেন।” বাবটি বলিলেন, “বটে। তাঁরাও গত হয়েছেন ? বিনয়বাব বাড়ী আছেন ত ?” ভূত্য বলিল, “আজ্ঞে না, তিনি ঘমেনুচ্ছেন।” ইহা শনিয়া, বাবটির ওষ্ঠপ্রান্তে একট হাসি দেখা দিয়া তৎক্ষণাৎ মিলাইয়া গেল। আর অধিক বাক্যব্যয় না করিয়া তিনি বৈঠকখানা ঘরে প্রবেশ করিলেন। মটিয়ার মাথা হইতে বাক্স বিছানা নামাইয়া লইয়া, বখশিস দিয় তাহাকে বিদায় দিলেন। জতা খালিয়া চৌকির উপর পা তুলিয়া বসিয়া ভৃত্যকে বললেন, “ওহে, তোমার নামটি কি বাপ ?” “আজ্ঞে, আমার নাম কেটধন মণ্ডল। আমরা সগোপ।” “সগোপ ? বেশ বেশ। তা, একছিলিম তামাক খাওয়াতে পার বাবা ?” “আজ্ঞে, পারি বইকি ! ব্রাহ্মণের হকো ?” কিয়ৎক্ষণ পরে কৃষ্ণধন কলিকায় ফ দিতে দিতে হকোটি আনিয়া জিজ্ঞাসা করিল, “বাব কোথা থেকে আসছেন ?” "উপস্থিত কলকাতা থেকে।" “নিবাস ?” আগন্তুক হাত বাড়াইয়া হকাটি লইয়া বললেন, “তোমার বাব ঘাম থেকে উঠেছেন?” “আজ্ঞে হ্যাঁ।” “কি করছেন ?” “ঘুমিয়ে উঠে కళ్ళెలా করছেন।”