পাতা:প্রাচীন বাঙ্গলা সাহিত্যে মুসলমানের অবদান.djvu/৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ζ) ο প্রাচীন বাঙ্গলা সাহিত্যে মুসলমানের অবদান সহজিয়ার। এই নারী-ভজন দ্বারা সিদ্ধি-লাভকে ‘লতা-সাধন" বলে । ইহারও আদি খুজিতে আমাদিগকে প্রাচীন বৌদ্ধশাস্ত্রের খনির সন্ধান করিতে হইবে। খৃষ্টপূৰ্ব্ব তিন শতকে লিখিত পালি 'কথা-বথু পুস্তকে দেবগণ এবং সাধু পুরুষেরাও যে রমণীদিগকে অবলম্বন করিতেন, এই àfs: 25t; oto-"Even Infra human beings taking the shape of arhats follow sexual desire.” <f* fi ejè মতাবলম্বী, তাহার বৌদ্ধগণের মধ্যে উত্তর পাঠক-শ্রেণীভূক্ত । মুসলমান কর্তৃক বঙ্গদেশ বিজিত হইবার অনেক পূৰ্ব্ব হইতেই আরব বণিকেরা বাণিজ্য করিবার জন্ত এদেশে আসিতেন । সুফী সম্প্রদায়ের গুরু-স্থানীয় কেহ কেহ খৃষ্টায় নবম শতাব্দীতে এদেশে আসিয়াছিলেন বলিয়া কিম্বদন্তী আছে । কথিত আছে—ঐ সময় সুলতান বায়েজীদ বোস্তামী চট্টগ্রামে আসিয়াছিলেন। চট্টগ্রামের পাচ মাইল উত্তরে নাসিরাবাদ গ্রামের একটি টিলার উপর তাহার স্মৃতি-চিহ্ন আছে। ইনি ৮৭৪ খৃষ্টাব্দে পরলোক গমন করেন । শাহ সুলতান রুমী কন্‌ষ্ট্যাটিনোপলের লোক ; কোন কোচ-রাজাকে ইনি ইসলাম ধৰ্ম্মে দীক্ষিত করেন। ময়মনসিংহ জেলার নেত্রকোণার অন্তর্গত মদনপুরে ইনি সমাধিলাভ করেন। এই সাধক ১০৫৩ খৃঃ অব্দে তদীয় গুরু সৈয়দ শাহ মুখ-খুল অন্তিয়া নামক কোন দরবেশ সমভিব্যহারে মদনপুরে আগমন করেন এবং তদাঞ্চলের এক কোচ-রাজাকে কেরামত দেখাইয়া ইসলাম ধৰ্ম্মে দীক্ষিত করেন। শাহ, সুলতান বলখি একাদশ শতাব্দীর শেষভাগে অথবা দ্বাদশ শতাব্দীর প্রথম ভাগে বগুড়া জেলার রাজা পরশুরাম ও তদীয় কন্যা শীলা দেবীকে যুদ্ধে পরাস্ত করেন। কথিত আছে,--ইনি মধ্য-এসিয়ার বলখের রাজা ছিলেন ; যৌবনকালে রাজ্য ত্যাগ করিয়া ইনি সাধনার পথে অগ্রসর হন। মহাস্থানের রাজা পরশুরাম এবং তাহার কষ্টা শলাদেবী সম্বন্ধে