পাতা:প্রায়শ্চিত্ত ১৯২০ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


δ3 প্রায়শ্চিত্ত না করাই অধৰ্ম । পিতৃব্য বসন্ত রায় নিজেকে মেচ্ছের দাস বলে স্বীকার করেছেন। ক্ষত হলে নিজের বাহুকে কেটে ফেলা যায়, সে কথা মনে রেখে মন্ত্রী। মন্ত্রী । যে আঞ্জে । প্রতাপাদিত্য। অমন তাড়াতাড়ি যে আজ্ঞে বললে চলবে না। তুমি মনে করছ নিজের পিতৃব্যকে বধ করা সকল অবস্থাতেই পাপ । ‘না’ বোলে৷ না, ঠিক এই কথাটাই তোমার মনে জাগছে। কিন্তু মনে কোরো না এর উত্তর নেই । পিতার অনুরোধে ভৃগু তার মাকে বধ করেছিলেন, আর ধর্মের অনুরোধে আমি আমার পিতৃব্যকে কেন বধ করব না ? মন্ত্রী। কিন্তু দিল্লীশ্বর যদি শোনেন তবে – প্রতাপাদিত্য । আর যাই কর, দিল্লীশ্বরের ভয় আমাকে দেখিয়ে না । মন্ত্রী। প্রজারা জানতে পারলে কী বলবে ? প্রতাপাদিত্য। জানতে পারলে তো । মন্ত্রী। এ কথা কখনোই চাপা থাকবে না। প্রতাপাদিত্য। দেখো মন্ত্রী, কেবল ভয় দেখিয়ে আমাকে দুর্বল করে তোলবার জন্যেই কি তোমাকে রেখেছি ? মন্ত্রী। মহারাজ, যুবরাজ উদয়াদিত্য— প্রতাপাদিত্য । দিল্লীশ্বর গেল, প্রজারা গেল, শেষকালে উদয়াদিত্য ! সেই স্ত্রৈণ বালকটার কথা আমার কাছে তুলো না । মন্ত্রী। তার সম্বন্ধে একটি সংবাদ আছে ! কাল তিনি রাত্রে ঘোড়ায় চড়ে একলা বেরিয়েছেন, এখনো ফেরেন নি। প্রতাপাদিত্য। কোন দিকে গেছে ? মন্ত্রী । পুবের দিকে । প্রতাপাদিত) । কখন গেছে ? মন্ত্রী। তখন রাত দেড় প্রহর হবে।