পাতা:প্রায়শ্চিত্ত ১৯২০ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রায়শ্চিত্ত ૨છે বসন্ত রায়ের প্রবেশ প্রতাপাদিত্য চমকিয়া উঠিয়া দণ্ডায়মান বসন্ত রায় । আমাকে কিসের ভয় প্রতাপ ! আমি তোমার পিতৃব্য, তাতেও যদি বিশ্বাস না হয়, আমি বুদ্ধ, তোমার কোনো অনিষ্ট করি এমন শক্তিই নেই । ( প্রতাপ নীরব ) প্রতাপ, একবার রায়গড়ে চলো— ছেলেবেলা কতদিন সেখানে কাটিয়েছ, তার পরে বহুকাল সেখানে যাও নি । প্রতাপাদিত্য । ( নেপথ্যের দিকে চাহিয়া সগর্জনে ) খবরদার । ওই পাঠানকে ছাড়িস নে ! { দ্রুত প্রস্থান বসন্ত রায়ের প্রস্থান প্রতাপ ও মন্ত্রীর পুনঃপ্রবেশ প্রতাপাদিত্য । দেখো মন্ত্রী, রাজকার্যে তোমার অত্যন্ত অমনোযোগ দেখা যাচ্ছে । মন্ত্রী। মহারাজ, এ বিষয়ে আমার কোনো অপরাধ নেই। প্রতাপাদিত্য । এ বিষয়ের কথা তোমাকে কে বলছে ? আমি বলছি রাজকার্যে তোমার অত্যন্ত অমনোযোগ দেখছি । সেদিন তোমাকে চিঠি রাখতে দিলেম, হারিয়ে ফেললে । আর একদিন, মনে আছে, উমেশ রায়ের কাছে তোমাকে যেতে বলেছিলুম, তুমি লোক দিয়ে কাজ সেরেছিলে । মন্ত্রী। আজ্ঞে মহারাজ– প্রতাপাদিত্য। চুপ করো। দোষ কাটাবার জন্তে মিথ্যে চেষ্টা কোরো না। যা হোক তোমাকে জানিয়ে রাখছি, রাজকার্ষে তুমি কিছুমাত্র মনোযোগ দিচ্ছ না। যাও, কাল রাত্রে যারা পাহারায় ছিল তাদের কয়েদ করো গে ।