পাতা:প্রায়শ্চিত্ত ১৯২০ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৬২ প্রায়শ্চিত্ত সুরমা । আচ্ছা, সে আমি বিভাকে দিয়ে পাঠিয়ে দেব। কিন্তু আমি ভাবছি, কাল রাত্রে যারা পাহারায় ছিল সেই সীতারাম-ভাগবতের কী দশা হবে । উদয়াদিত্য। মহারাজ ওদের গায়ে হাত দেবেন না, সে ভয় নেই। সুরমা । কেন ? উদয়াদিত্য। মহারাজ কখনো ছোটো শিকারকে বধ করেন না। দেখলে না, রমাই ভাড়কে তিনি ছেড়ে দিলেন ? স্বরম। কিন্তু, শাস্তি তো তিনি একজন কাউকে না দিয়ে থাকবেন না। উদয়াদিত্য । সে তো আমি আছি । স্বরম। । ও কথা বোলো না । উদয়াদিত্য । বলতে বারণ কর তো বলব না, কিন্তু বিপদের জন্তে কি প্রস্তুত হতে হবে না ? সুরমা । আমি থাকতে তোমার বিপদ ঘটবে কেন ? সব বিপদ অামি নেব । উদয়াদিত্য। তুমি নেবে? তার চেয়ে বিপদ আমার আর আছে নাকি ? যাই হোক, সীতারাম-ভাগবতের অন্নবস্ত্রের একটা ব্যবস্থা করে দিতে হবে । সুরমা । তুমি কিন্তু কিছু কোরে না । তাদের জন্তে যা করবার ভার সে আমি নিয়েছি। উদয়াদিত্য। না, না, এতে তুমি হাত দিয়ে না । স্বরম। আমি দেব না তো কে দেবে ! ও তো আমারই কাজ । আমি সীতারাম-ভাগবতের স্ত্রীদের ডেকে পাঠিয়েছি। উন্নয়াদিত্য। স্বরম, তুমি বড়ো অসাবধান । স্থরমা । আমার জন্তে তুমি কিছু ভেবে না। আসল ভাবনায় কখা कौ छांब ?