পাতা:প্রায়শ্চিত্ত ১৯২০ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Գ8 (t চন্দ্রদ্বীপ । রাজা রামচন্দ্রের কক্ষ রামচন্দ্র মন্ত্রী দেওয়ান, রমাই ও অন্যান্য সভাসদগণ রামচন্দ্র । ( গদির উপর তাকিয়া হেলান দিয়া গুড়গুড়ি টানিতে টানিতে সন্মুখস্থ একজন অপরাধীর বিচার করিতেছেন) বেটা, তোর এত বড়ো যোগ্যতা ! অপরাধী । ( সরোদনে ) দোহাই মহারাজ, আমি এমন কাজ করি নি। মন্ত্রী। বেটা, প্রতাপাদিত্যের সঙ্গে আর আমাদের মহারাজের তুলনা ! দেওয়ান। বেটা, জানিস নে, যখন প্রতাপাদিত্যের বাপ প্রথম রাজা হয় তখন তাকে রাজটিকা পরাবার জন্তে সে আমাদের মহারাজার স্বগীয় পিতামহের কাছে আবেদন করে। অনেক কাদাকাটা করাতে, তিনি তার বঁা-পায়ের কড়ে আঙল দিয়ে তাকে টিকা পরিয়ে দেন। রমাই। বিক্রমাদিত্যের বেটা প্রতাপাদিত্য, ওরা তো দুই পুরুষে রাজা। প্রতাপাদিত্যের পিতামহ ছিল কেঁচো । কেঁচোর পুত্র হল জোক, বেটা প্রজার রক্ত খেয়ে খেয়ে বিষম ফুলে উঠল। সেই জোকের পুত্র আজ মাথা খুড়ে খুড়ে মাথাটা কুলোপান করে তুলেছে, আর চক্র ধরতে শিখেছে। আমরা পুরুষানুক্রমে রাজসভায় ভাড়বৃত্তি করে আসছি, আমরা বেদে – আমরা জাতসাপ চিনি নে ? রামচন্দ্র । আচ্ছা, যা । এ যাত্রা বেঁচে গেলি, ভবিষ্যতে সাবধান থাকিস । [ মন্ত্রী রমাই ও রামচন্দ্র ব্যতীত সকলের প্রস্থান রমাই। আপনি তো চলে এলেন, এ দিকে যুবরাজৰাবাজি বিষম গোলে পড়লেন। রাজার অভিপ্রায় ছিল, কস্তাটি বিধবা হলে হাতের লোহা আর বালা-জুগাছি বিক্রি করে রাজকোষে কিঞ্চিৎ অর্থাগম হয় }