পাতা:ফিরিঙ্গি-বণিক্.djvu/১৪৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাণিজ্য-বিস্তার NAS কৌশল ও জলযুদ্ধের কৌশল-উদ্ভাবনে প্ৰাচ্য ও প্রতীচ্য মানবসমাজ তুল্যভাবে নিযুক্ত হইয়াছিল। যাহারা তাহাতে উৎকর্ষলাভ করিবে, তাহারাই যে উত্তরকালে ভারত-বাণিজ্যের আধিপত্য অধিকার করিতে পরিবে, তাহাতে কাহারও সংশয় ছিল না । সুতরাং ভারতবর্ষের লোকে যাহাতে জলযান নিৰ্ম্মাণ করিভে না পারে, তাহারা যাহাতে জলযাননিৰ্ম্মাণ-কৌশল বিস্মৃত হইয়া যায়, তাহার জন্যই ফিরিঙ্গি-বণিক চেষ্টা করিতে প্ৰবৃত্ত হইলেন। তৎকালে জলযানের সংখ্যা অধিক ছিল না । যে সকল জলযান হিন্দু মুসলমানের পণ্যদ্রব্য বহন করিত, তাহ ধ্বংস করিতে পারিলে, সহসা জলযান পুনর্গঠিত করিবার সম্ভাবনা ছিল না । যুদ্ধ-কলহে ফিরিঙ্গি-বণিক ভারতীয় জলধানসমূহের ধ্বংস করিয়াই নিশ্চিন্ত হইতে পারিলেন না ; পুনর্গঠনের পথ রুদ্ধ করিবার জন্যও যথাসাধ্য চেষ্টা করিতে লাগিলেন । ডিউ নগরের সম্মুখে যে জলযুদ্ধে ফিরিঙ্গি-বণিক জয়লাভ করিয়াছিলেন, তাহাতে ভারতীয় জলযান-গঠন-প্ৰতিভার পরিচয় প্ৰাপ্ত হইয়া, ফিরিঙ্গি-বণিক চিন্তিত হইয়াছিলেন। সন্ধি-সংস্থাপনের সময়ে সে কথা বিস্মৃত হন নাই। কালিকট ও গুজরাটিই জলযান-নিৰ্ম্মাণ-কৌশলে প্ৰসিদ্ধিলাভ করিয়াছিল । সন্ধিসূত্রে এই উভয় স্থলের জলযান-নিৰ্ম্মাণের ক্ষমতা তিরোহিত হইয়া যায়। অবশেষে ১৫৩৪ খ্ৰীষ্টাব্দের সন্ধিপত্রে গুজরাটের জলযান-নিৰ্ম্মাণের ভবিষ্যৎ অধিকারী পৰ্য্যন্ত বিলুপ্ত হইয়া গেল। * খৃষ্টীয় পঞ্চদশ শতাব্দীর প্রারম্ভেও ইউরোপ অপেক্ষ। ভারতবর্ষের জলযান উৎকৃষ্ট বলিয়া বিবেচিত হইত। শত বর্ষের s The same unsparing policy which flogged and sentenced to death the Arabs of Ormuz who ventured to carry arms, also put an end to naval construction at alien Indian harbours.-Hunter's History of British India, vol. I. p. 51.