পাতা:ফিরিঙ্গি-বণিক্.djvu/১৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাণিজ্য-বিস্তার vo করিবার সম্ভাবনা ছিল । সে তাহাতে ব্যাপৃত না হইয়া, জলদসু্যরূপে পণ্য লুণ্ঠন করিত ; লাভের লোভে ফিরিঙ্গি-বণিকের পক্ষভুক্ত হইয়া গোয়া অধিকার করিয়া দিয়াছিল। তাহার নাম এখন বিস্মৃতিগর্ভে বিলীন হইয়া গিয়াছে ; কিন্তু গোয়া নগরী এখনও তাহার স্বদেশদ্রোহের সাক্ষিীরূপে বৰ্ত্তমান আছে। টিমোজা কৃতজ্ঞ ফিরিঙ্গি-বণিকের অধীনে জায়গীর ও রাজপদ প্ৰাপ্ত হইয়াছিল ; কিন্তু এক বৎসরের অধিক তাহার ফলভোগ করিতে পারে নাই ;-এক বৎসরের মধ্যে প্ৰাণত্যাগ করিয়া ইহলোক হইতে অবসর গ্ৰহণ করিয়াছিল । আলবুকার্কের বাণিজ্যনীতি ও টিমোজার বাহুবল যে গোয়া নগরী প্রতিষ্ঠিত করিয়াছিল, তাহা এখন পুরাতন নগরী বলিয়া পরিচিত। সেখানে এখন পুরাতন ধবংসাবশেষ ! কোনও স্থানে অট্টালিকার ভগ্নাবশেষ, কোনও স্থানে ধৰ্ম্মমন্দিরের ভগ্নচুড়া,-সকল স্থানেই শ্মশানের শোক-চিহ্ন ! * একদিন কিন্তু এই গোয়া নগরী “স্বর্ণপুরী” নামে ইউরোপের সকল দেশেই সুপরিচিত হইয়াছিল! পর্তুগীজগণ বলিত,-“যে গোয়া নগরী দর্শন করিয়াছে, তাহার পক্ষে লিসবন নামক পর্তুগালের রাজধানী দৰ্শন করিবার প্রয়োজন নাই।” গোয়া নগরী প্ৰাচ্য ও প্রতীচ্যে সভ্যসমাজের প্রথম সম্মিলনক্ষেত্ৰ । SSDKD DYB DDBSDBB sOKB BBDLDD DDBttB SS SLDDD 0DB পর্তুগালের অত্যুদয় ও অবনতির বিস্ময়াবহ বিচিত্র ক্ষেত্র। গোয়া নগরী ভারতবর্ষের ইতিহাসের চিরস্মরণীয় শ্মশানভূমি । এই মহাশ্মশানে কোটী কোটী ভারতবাসীর ভবিষ্যৎ অভু্যদয় ভস্মসাৎ হইয়া গিয়াছে। সুতরাং ইহার কথা বিস্তৃতভাবে আলোচিত হইবার যোগ্য।

  • There is a modern account of Goa, written in English, by the Rev. Cotteneau de Kloguen and published at Madras in 1831; This coutains a complete historical sketch of Goa from Isog to 182 alid gives a description of all the churches, convents and the publie buildings accompanied by a map. It is in faet a nodern guide to Goa.