পাতা:ফিরিঙ্গি-বণিক্.djvu/১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


go ফিরিঙ্গি বণিক প্ৰদেশ প্ৰতিধ্বনিত হইত ! এই বাণিজ্যপথ যখন যে জাতির অধিকারভুক্ত হইয়াছে, তখনই সেই জাতি শুল্ক সঞ্চয় করিয়া, পণ্যদ্রব্যের ক্ৰয়বিক্রয়ে অর্থসঞ্চয় করিয়া, অল্পদিনের মধ্যেই সমৃদ্ধ হইয়া উঠিয়াছে। এই বাণিজ্যপথ যখন যে জাতির অধিকার-বিচুত্যুত হইয়াছে, তখনই সেই জাতি দেখিতে না দেখিতে, বায়ুতাড়িত ধূলিপটলের ন্যায় সৌভাগ্যবেলা হইতে ইতস্ততঃ বিক্ষিপ্ত হইয়া পড়িয়াছে ! তাহদের পুরাতন রাজধানীর ধবংসাবশেষ অস্থাপি কত স্থানে এই পুরাকাহিনীর অতীতস্যাক্ষিীরূপে দণ্ডায়মান আছে। এই সকল কারণে ভারতীয় বাণিজ্যপথ করতলগত করিবার প্রবল প্ৰয়াস সকল জাতির মধ্যেই অল্পাধিক মাত্রায় লক্ষিত হইয়াছে। এই পথ কখন কালুর্দীয় রাজ্যের অধিকারে, কখন ইহুদীয় জাতির অধিকারে, কখন বা পারস্য, গ্রীস ও রোমের অধিকারে আনীত হইয়াছে । সেকালে এই সকল পুরাতন জাতি ভারতবর্ষের শিল্পদ্রব্যের ন্যায় বহুমূল্য দ্রব্য উৎপাদনের চেষ্টা করে নাই ; তাহারা কেবল ভারতবর্ষের নিকট ক্রয় করিয়া, অন্যত্র বিক্রয় ও তদ্বারা অর্থে পাৰ্জন করিবার জন্যই, পুরাতন বাণিজ্যপথ অধিকার করিবার আশায়, শত সমরক্ষেত্রে বীরশোণিতে বসুন্ধরা রুধিরাক্ত করিয়াছে। পাশ্চাত্য জাতির এই সকল অন্তর্বিপ্লব ভারতীয় স্থলবাণিজ্যের অপকারসাধন করে নাই ;-বরং বিবিধ জাতির প্রতিদ্বন্দ্বিতীয় ভারতীয় পণ্যদ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি সাধিত করিয়া, ভারতবর্ষের অর্থাগমের পথ উত্তরোত্তর প্রশস্ত করিয়া भ्रिाcछ ! স্থলপথের ন্যায় জলপথেও নানা প্ৰতিদ্বন্দী কলহ-কোলাহলে লিপ্ত হইত। তাহারা কেবল বহন করিবার, কেবল ক্রয়বিক্রয়ের “দালাল” হইবার, কেবল ভারতবর্ষের পণ্যদ্রব্য বিদেশে বিস্তার করিবার অধিকারলাভার্থই কলহ-কোলাহলে লিপ্ত হইত। ইহাতে মিশর ও আরব দেশের লোকে ক্ৰমে ক্রমে সাগরপথে নৌচালন-কৌশল আয়ত্ত করিয়া