পাতা:ফিরিঙ্গি-বণিক্.djvu/৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


文安 ফিরিঙ্গি বণিক কৌশল-উদ্ভাবনে চিরনিবিষ্ট করিয়া, অশ্বপালক রূপে অশ্বশালায় জীবনযাপন করিতে বাধ্য করিত ;-জলপথ উপেক্ষিত হইয়া, ইউরোপের আধুনিক সমুন্নতিলাভের প্রধান পথ চিরকুদ্ধ করিত। এসিয়ার ন্যায় ইউরোপকেও ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র খণ্ডরাজ্যে বিভক্ত হইয়া, ক্ষুদ্র জয়পরাজয় লইয়াই ব্যাপৃত থাকিতে হইত। দৌত্য সফল হইল না বলিয়াই, ইউরোপকে বাধ্য হইয়া নূতন স্থাল-বাণিজ্য-পথের সন্ধান-চেষ্টা পরিত্যাগ করিতে হইল। এই সামান্য ঘটনা বিচ্ছিন্নভাবে পৰ্য্যালোচনা করিলে, ইহা ইউরোপের ইতিহাসের একটি নগণ্য ঘটনা বলিয়া উপেক্ষিত হইতে পারে। কিন্তু আদ্যস্তের সহিত একত্ৰ পৰ্য্যালোচনা করিলে, ইহাকেই আধুনিক পৃথিবীর ইতিহাসের সর্বপ্রধান ঘটনাবলীর সংখ্যাভুক্ত করিতে হয়। মনীষিগণ সেই ভাবে এই দৌত্য-বিবরণী পাঠ করিয়াছিলেন। বলিয়া, ইউরোপা পথভ্ৰান্ত হইবার প্রথম উপক্ৰমেই সাবধান হইতে সমর্থ হইয়াছিল । কৃষ্ণ-সাগর-পথে ভারতীয়-পণ্যদ্রব্য-বহনের অভিনব স্থল-বাণিজ্যপথ আবিষ্কার করিবার আশায়, রাজদূত ব্যতীত নানা ধৰ্ম্মাচাৰ্য্য ও পরিাব্ৰাজকগণও পদব্ৰজে ভূপ্রদক্ষিণে বহির্গত হইয়াছিলেন। তঁহাদের মধ্যে মার্কে পোলোর নাম জগদ্বিখ্যাত । তিনি খৃষ্টীয় ত্রয়োদশ শতাব্দীর শেষাংশে চতুৰ্ব্বিংশতি বৎসর এসিয়াখণ্ডের জলে স্থলে নানা দেশ পৰ্য্যটন করিয়া, ইউরোপে প্ৰত্যাবৰ্ত্তন করেন। তঁহার ভ্রমণ-কাহিনী অদ্যাপি সযত্নে মুদ্রিত ও অধীত হইয়া থাকে। তিনি স্থলপথে চীনদেশ পৰ্য্যন্ত গমন করিয়া, ভারতবর্ষের উপকূলসংলগ্ন সমুদ্রপথে পারস্যরাজ্যে উপনীত হইয়াছিলেন । ভারত-বাণিজ্যের জল স্থল সকল পথেরই সন্ধান লাভ করিয়া, এই বিশ্ববিখ্যাত পরিব্রাজক যখন স্বদেশে প্ৰত্যাবৃত্ত হইলেন, তখন স্থল অপেক্ষা জলপথের কথাই আলোচিত হুইবার সূত্রপাত হইল। কৃষ্ণসাগরতীরে স্থলবাণিজ্য-পথের সন্ধান