পাতা:ফিরিঙ্গি-বণিক্.djvu/৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Sy ফিরিঙ্গি বণিক খৃষ্টীয় দ্বাদশ শতাব্দীর প্রারম্ভে এই অনুন্নত মানবসমাজ সহসা সমুন্নতিলাভের উপায় প্রাপ্ত হইল। ইসলামই তাহার পরোক্ষ কারণ । ইসলাম বিবিধ বিদ্যালয়ে জ্ঞানবিস্তারকার্য্যে ব্যাপৃত হইয়া, খৃষ্টান ইউরোপকে মুসলমান ধৰ্ম্মের আশ্রয়দানের চেষ্টা করায়, সমগ্ৰ ইউরোপে এক অজ্ঞাতপূৰ্ব্ব ধৰ্ম্মািন্ধ সমন্ব-পিপাসা প্রবল হইয়া উঠিয়াছিল। খৃষ্টান ইউরোপের যে দেশ যত নিরক্ষর, সেই দেশ তত নরশোণিতলোলুপ হইয়া, অশান্তহৃদয়ে মুসলমানের কণ্ঠচ্ছেদ করিবার জন্য উন্মত্ত হইয়া উঠিল । খৃষ্টধৰ্ম্মের বিমল শাস্তিপিপাসা তিরোহিত হইয়া গেল। জনসমাজ রাজ্য চাহিল না, বাণিজ্য চাহিল না, সম্ভোগ চাহিল না, ঐশ্বৰ্য্য লালসায় অশান্ত হইল না। ;-চাহিল কেবল ক্ষমাশূন্য সীমাশূন্য দয়াশূন্য অগণ্য ধৰ্ম্মযুদ্ধ । এই যুদ্ধোন্মাদ জলে স্থলে ব্যাপ্ত হইয়া পড়িল । ইহাতেই পর্তুগাল মুসলমান-শাসন উৎখাত করিয়া, বাহুবলে স্বাধীন श्श्श्ना ख्ठल । স্বাধীন শক্তি উভয় হস্তে সম্মুখের অন্ধকার ঠেলিয়া, দৃঢ়পদে উন্নতি-সোপানে আরোহণ করিতে শিক্ষালাভ করিল। ত্রয়োদশ শতাদীর মধ্যভাগে পর্তুগাল সম্পূর্ণরূপে মুসলমান-শাসন-পাশ বিচ্ছিন্ন করিয়া, আলফানসো নামধেয় তৃতীয় নরপালকে সিংহাসনে সংস্থাপিত করিল। শান্তি প্ৰত্যাবৰ্ত্তন করিল ; সমৃদ্ধি করতলগত হইল ; যে দেশ রোমকসাম্রাজ্যের নিতান্ত নগণ্য প্রদেশ বলিয়া উপেক্ষিত হইত, তাহাই ইউরোপের প্রধান রােজ্যরূপে পরিচিত হইল। পর্তুগালের ইতিহাসের এই অভিনব অভু্যদয়-যুগের বিস্তুত কাহিনী নানা ভাষায় লিপিবদ্ধ হইয়া সভ্যসমাজে সুপরিচিত হইয়াছে। যাহারা বাহুবলে মুসলমান-শক্তি প্ৰতিহত করিয়া পর্তুগালকে স্বাধীন করিয়া তুলিয়াছিলেন, তাহারা ধৰ্ম্মবীর নামে সুপরিচিত । খৃষ্টান সমাজপতি ধৰ্ম্মাচাৰ্য্য পোপ খৃষ্টধৰ্ম্মের কল্যাণকামনায় নবোদগত ইস্