পাতা:ফিরিঙ্গি-বণিক্.djvu/৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


श्कॉडिक प्रे পুরাতন সাহিত্যে অদ্যাপি তাহার বিবিধ প্ৰমাণ প্ৰাপ্ত হওয়া যায় । অকুতোভয় নাবিক বর্গের অপরিসীম অধ্যবসায়ে অধিকাংশ সভ্যদেশেই ভারতবাণিজ্যের প্রবল প্রভাব প্ৰতিষ্ঠালাভ করিয়াছিল । অন্য কোনও সভ্যজাতি বাণিজ্যবিস্তারে ভারতবর্ষের প্রতিদ্বন্দী হইবার সাহস প্ৰকাশ করে নাই। ইসলাম অংশলাভের আশায় ভারতবর্ষের অনুগত হইয়াই বাণিজ্য-ব্যাপারে লিপ্ত হইয়াছিল। সে বাণিজ্যে পরস্বাপহরণপ্রবৃত্তির সম্পর্ক ছিল না। ;-জাতিধৰ্ম্মের কলহ-কোলাহল কাহারও শান্তিভঙ্গ করিত না ;-যে পারিত, সে তাহার শক্তিসামৰ্থ্য লইয়া নিরুদ্বেগে বাণিজ্য-ব্যাপারে অর্থেপাৰ্জন করিত । ইউরোপের প্রথম চেষ্টাতে হয় ত এই সুপরিচিত আকাঙ্ক্ষাই বৰ্ত্তমান ছিল ;-ভারতবাণিজ্যের অভিনব জলপথের আবিষ্কার-সাধনের আশায় পর্তুগাল হইতে সমুদ্রযাত্ৰা করিবার সময়ে গামার হৃদয়ে হয় ত এইরূপ আকাঙ্ক্ষাই জাগিয়া উঠিয়াছিল। কিন্তু ভারতভূমিতে পদার্পণ করিবার পূৰ্ব্বেই তাহার সে সাধুসংকল্প তিরোহিত হইয়া গিয়াছিল। আফ্রিকার পূৰ্ব্বোেপকূলে উপনীত হইবামাত্র, তাদ্দেশে ইসলামের আধিপত্য দর্শন করিয়া, গামার খৃষ্টধৰ্ম্মানুরাগ জ্বলিয়া উঠিয়াছিল। যে জাতির প্ৰবল বাহুবলে স্থলবাণিজ্যপথ হইতে ইউরোপ চিরনির্বাসিত হইয়াছে, জলবাণিজ্যপথেও তাহাদিগের প্রবল প্ৰতাপ লক্ষ্য করিয়া, গামা তাহা চূৰ্ণ করিবার উপায় চিন্তা করিতে করিতেই ভারতবর্ষাভিমুখে পোতচালনা করিয়াছিলেন । কালিকটের বন্দরে উপনীত হইবার অল্পকাল পরেই সে গুপ্ত সংকল্প প্ৰকাশিত হইয়া পড়িল । পুরাকালে দাক্ষিণাত্যে কেরল নামক একটি সম্পন্ন রাজ্য বৰ্ত্তমান ছিল। পুরাতন গ্রন্থে তাহার উল্লেখ প্ৰাপ্ত হওয়া যায়।*।। কেরল রাজ্য গঃ কেয়াল দেশের নাম রামায়ণে দেখিতে পাওয়া যায়, পাণিনি এবং কাত্যায়ন কেরলের উল্লেখ করেন নাই, কিন্তু পতঞ্জলি তাহার উল্লেখ করিয়া গিয়াছেন ।