পাতা:ফুলমণি ও করুণার বিবরণ.djvu/১৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৩২ আমি কহিলাম, কৰুণা, এই সকল শু তোমার নিমিত্তে বড় দুখিতা আছি, কিন্তু তোমার নিজ দোষ প্রযুক্ত মটিয়াছে । , প্রথমবার যখন তোমার গৃহে আইলাম, ' আমার বিলক্ষণৰূপে স্মরণ কয় যে নবীন - কথা কহিল, সেই প্রযুক্ত তুমি তাহাকে । মারিয়া মিথ্যাবাদী বলিলা । পিতা মাত । এমত কৰ্ম্ম করে, তবে সস্তানেরা কি প্রকারে , এই কথাতে কৰুণ দীর্ঘ নিশ্বাস ত্যাগ : কহিল, হঁ! কি জানি আমরি দোষ হইয় । কিৰে। কিন্তু ঐ বংশী আমার জ্যেষ্ঠ পুত্র, ৫ পাচ বৎসর পর্যস্ত আমার আর ছেল) হইল । অতত্রব আমি স্নেহপ্রযুক্ত তাহাকে কখন শা করিতে পারিতাম না, এই নিমিত্তে সে এম অবাধ বালক হইয়াছে । আমি বলিলাম, কৰুণা, আমরা যখনি ঈ রের আজ্ঞা লম্বন করি, তখনি আমাদের দুর্ব ঘটে । ঈশ্বর কহিয়াছেন, “ বালককে শাক করিতে নিবৃত্ত হইও না; তুমি দণ্ডদ্বারা তাহা প্রহার কর, তাহাতে তুমি তাহার প্রাণকে নর হইতে রক্ষা করিব।” হিতোপদেশ ২৩:১৩,১৪