পাতা:ফুলমণি ও করুণার বিবরণ.djvu/৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দমন করিয়াছিল, কিন্তু মেম সাহেব সেথ, থাকাতে বাড় কোক কিছু করা গেল না, ও জন্যে ভূত ভাস্কাকে চাপিয়া মারিল 1 । আমি এই সকল কথা শুনিয়া মনের ম:ে ভাবিলাম, হায়ই ! এই লোকেরা কত অমর্থ চিন্তা করে। কিন্তু তাহাদের মৃত বন্ধুর মনস্তা শুনিয়াও পরলোকে তাহার কি গতি হুইবে ? বিষয়ে কেম্বই ভাবিত হইল না । যে পুরুষ এমত সুশীলৰূপে লোক সকল বিদায় করিয়াছিল, তাহার বিষয়ে শুনিলাম, . ফুলমণির স্বামী বটে। কিছুকাল পরে সে মধুর ' জন পিস্তুত ভাইকে লইয়া তাহার কবর দে । নার্থে সকল প্রস্তুত করিতে লাগিল। তখন অ’ বিবেচনা করিয়া দেখিলাম, যে মধুর মায়ের छे{ কড়ির কোন অভাব নাই, অতএব আর কো ৰূপে তাকাদের উপকার করিতে না পারিয়া, আ । পুনৰ্বার আসিব, এই কথা বলিয়া বিদায় হইলা অামি আপন গৃহে পোছিয়া উক্ত ঘটনা সক মনে আন্দোলন করত মৃত্যুর এবং পরলোৱে