পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (তৃতীয় ভাগ).djvu/২৩৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8లి সত্যসত্যই ডাকাইতি করি, কিন্তু আপনার উপর ডাকাইতি করিবার আর কোন উদ্দেশু নাই, কেবল সাগরের প্রতিজ্ঞা রক্ষা । এখন সাগর বাড়ী যায় কি প্রকারে ? প্রতিজ্ঞ ত রক্ষা হুইল । ব্রজ । আসিল কি প্রকারে ? নিশি । রাণীজির সঙ্গে । ব্র । আমিও ত সাগরের পিত্রালয়ে গিয়াছিলাম —সেখান হইতে আসিতেছি। কই, সেখানে ত রাণীজিকে দেখি নাই ? নিশি। রাণীজি আপনার পরে সেখানে গিয়াছিলেন । ত্র । তবে ইহার মধ্যে এখানে আসিলেন কি প্রকারে ? নিশি । আমাদের ছিপ দেখিয়াছেন ত ? পঞ্চাশ বোটে ? ব্র । তবে আপনারাই কেন ছিপে করিয়া সাগরকে রাখিয়া আসুন না ? নিশি । তাতে একটু বাধা আছে। সাগর কাহাকেও না বলিয়া রাণীর সঙ্গে আসিয়াছে—এখন অন্ত লোকের সঙ্গে ফিরিয়া গেলে সবাই জিজ্ঞাসা করিবে, "কোথায় গিয়াছিলে ? আপনার সঙ্গে ফিরিয়া গেলে উত্তরের ভাবনা নাই । ব্র । ভাল, তাই হইবে । আপনি অনুগ্রহ করিয়া ছিপ হুকুম করিয়া দিন । “দিতেছি”বলিয়া নিশি সেখান হইতে সরিয়া গেল । তখন সাগরকে নির্জনে পাইয়া ব্রজেশ্বর বলিল, “সাগর । তুমি কেন এমন প্রতিজ্ঞ করিয়াছিলে ?” মুখে অঞ্চল দিয়া–এবার ঢাকাই রুমাল নহে— কাপড়ের যেখানটা হাতে উঠিল, সেইখানটা মুখে ঢাকা দিয়া সাগর কাদিল—সেই মুখর। সাগর টিপিয়া টিপিয়া, কঁাপিয়া কঁাপিয়া, চুপি চুপি ভারি কান্না কাদিল । চুপি চুপি—পাছে দেবী শোনে । কান্না থামিলে, ব্রজেশ্বর জিজ্ঞাসা করিল, “সাগর ! তুমি আমায় ডাকিলে না কেন ? ডাকিলেই সব মিটিয়া যাইত ।” সাগর কষ্টে রোদন সংবরণ করিয়া চক্ষু মুছিয়া বলিল, “কপালের ভোগ, কিন্তু আমি নাই ডাকিয়াছি, তুমিই বা আসিলে না কেন ?” ব্র । তুমি আমায় তাড়াইয়া দিয়াছিলে—না ডাকিলে ষাই কি বলিয়৷ ? এই সকল কথাবার্তা যথাশাস্ত্র সমাপন হইলে ব্ৰজেশ্বর বলিল, “সাগর ! তুমি ডাকাইতের সঙ্গে কেন আসিলে ?” বঙ্কিমচন্দ্রের গ্রন্থাবলী সাগর বলিল, “দেবী সম্বন্ধে আমার ভগিনী হয়, পূৰ্ব্বে জানা-শুনা ছিল । তুমি চলিয়া আসিলে সে গিয়া আমার বাপের বাড়ী উপস্থিত হইল। আমি কঁাদিতেছি দেখিয়া সে বলিল “কাদ কেন ভাই, তোমার শু্যামচাদকে আমি বেঁধে এনে দিব । আমার সঙ্গে দুই দিনের তরে এসে । তাই আমি আসিলাম । দেবীকে সম্পূর্ণ বিশ্বাস করিবার আমার বিশেষ কারণ আছে । তোমার সঙ্গে আমি পলাইয়া চলিলাম, এই কথা আমি চাকরাণীকে বলিয়া আসিয়াছি । তোমার জন্য এই সব আলবোলা, সন্ট্রক প্রভৃতি সাজাইয়া রাখিয়াছি--একবার তামাকটামাক খাও, তার পর যেও ” ব্ৰজেশ্বর বলিলেন, “কই, যে মালিক, সে ত কিছু বলে না ।” . . দেবী আসিল তখন সাগর দেবীকে ডাকিল । না-নিশি আসিল । নিশিকে দেখিয়া ব্ৰজেশ্বর বলিল, “এখন আপনি ছিপ হুকুম করিলেই যাই ।” নিশি। ছিপ তোমারই । কিন্তু দেখ, তুমি রাণীর বোনাই—কুটুম্বকে স্বস্থানে পাইয়া আমরা আদর করিলাম ন!—কেবল অপমানই করিলাম, এ বড় দুঃখ থাকে । আমরা ডাকাইত বলিয়। আমাদের কি হিন্দুয়ানী নাই ? ত্র । কি করিতে বলেন ? নিশি। প্রথমে উঠিয়া ভাল হইয়া বসে । নিশি মসনদ দেখাইয়া দিল । ব্রজেশ্বর শুধু গালিচায় বসিয়াছিল । বলিল, “কেন, আমি বেশ বসিয়া আছি ।” তখন নিশি সাগরকে বলিল, “ভাই, তোমার সামগ্ৰী তুমি তুলিয়া বসাও । জান. আমরা পরের দ্রব্য ছুই ন৷ ” হাসিয়া বলিল, “সোনারূপ ছাড়া ।” ত্র । তবে আমি কি পিতল-কঁাসার দলে পড়িলাম ? নিশি। আমি ত তা মনে করি, পুরুষমানুষ স্ত্রীলোকের তৈজসের মধ্যে ; না থাকিলে ঘর-সংসার চলে না,—তাই রাখিতে হয় । কথায় কথায় দকৃড়ি হয়-মাজিয়া ঘষিয়া ধুইয়া ঘরে তুলিতে নিত্য প্রাণ বাহির হইয়া যায়। নে ভাই সাগর, তোর ঘটী-বাটি তফাৎ কবৃ—কি জানি, যদি সকুড়ি হয় । ব্ৰ । একে ত পিতল কাসা—তার মধ্যে আবার ঘটী-বাটি। ঘড়াটা-গাভুটার মধ্যে গণ্য হইবারও কি 6षांश्री नई ?