পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (তৃতীয় ভাগ).djvu/৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


83, পারে না। যদি অগ্রসর হয়, অমিত বলে সন্তানের ডাহাদিগের উপর পড়িয়া, তাহাদিগকে ছিন্ন-ভিন্ন করিয়া হরিধ্বনি করিতে থাকে। যদি কখনও কোন সন্তানের দলকে যবনসৈনিকের পরাস্ত করে, তখনই আর এক দল সস্তান কোথা হইতে আসিয়া বিজেতাদিগের মাথা কাটিয়া ফেলিয়া দিয়া হরি হরি বলিতে বলিতে চলিয়! যায় । এই সময়ে প্রথিতনাম। ভারতীয় ইংরেজকুলের প্রাতঃস্থর্য ওয়ারেন হেষ্টিংস সাহেব ভারতবর্ষের গবর্ণর জেনারেল । কলিকাতায় বসিয়া লোহার শিকল গড়িয়া তিনি মনে মনে বিচার করিলেন যে, এই শিকলে আমি সদ্বীপা সসাগরা ভারতভূমিকে বাধিব । এক দিন জগদীশ্বর সিংহাসনে বসিয়া নিঃসন্দেহে বলিয়াছিলেন—“তথাস্তু । কিন্তু সে দিন এখন দূরে। আজিকার দিনে সন্তানদিগের * ভীষণ হরিধ্বনিতে ওয়ারেন হেষ্টিংস ও বিকম্পি ত হইলেন । ওয়ারেন হেষ্টিংস প্রথমে ফৌজদারীর সৈন্তের দ্বারা বিদ্রোহীনিবারণের চেষ্টা করিয়াছিলেন । কিন্তু ফৌজদারী সিপাহীর এমন অবস্থা হইয়াছিল ষে, তাহারা কোন বৃদ্ধ স্ত্রীলোকের মুখে হরিনাম শুনিলে পলায়ন করিত । অতএব নিরুপায় দেখিয়া ওয়ারেন হেষ্টিংস কাপ্তেন টমাস নামক এক জন সুদক্ষ সৈনিককে অধিনায়ক করিয়| এক দল কোম্পানীর সৈন্ত বিদ্রোহ-নিবারণ জন্য প্রেরণ করিলেন । কাপ্তেন টমাস পৌঁছিয়া বিদ্রোহ-নিবারণের অতি উত্তম বন্দোবস্ত করিতে লাগিলেন। রাজার সৈন্ত, জমীদারদিগের সৈন্য চাহিয়া লইয়। কোম্পানীর সুশিক্ষিত শস্ত্রযুক্ত অত্যস্ত বলিষ্ঠ দেশী বিদেশী সৈন্সের সঙ্গে মিলাইলেন। পরে সেই মিলিত সৈন্য দলে দলে বিভক্ত করিয়া সে সকলের আধিপত্যে উপযুক্ত যোদ্ধৃবর্গকে নিযুক্ত করিলেন। পরে সেই সকল যোদ্ধৃবর্গকে দেশ ভাগ করিয়া দিলেন ; বলিয়া দিলেন—তুমি অমুক প্রদেশে জেলিয়ার মত জাল দিয়। ছাকিতে ছাকিতে যাইবে। যেখানে বিদ্রোহী দেখিবে, পিপীলিকার মত তাহার প্রাণসংহার করিবে । কোম্পানীর সৈনিকের কেহ গাজা, কেহ রম মারিয়া বন্দুকে সঙ্গীন চড়াইয়। সন্তানবধে ধাবিত হইল । কিন্তু সস্তানেরা এখন অসংখ্য, অজেয় ; কাপ্তেন টমাসের সৈন্যদল চাষার কাস্তের নিকট শস্তের ন্যায় কৰ্ত্তিত হইতে লাগিল । হরি হরি ধ্বনিতে কাপ্তেন টমাসের কর্ণ বধির হইয়া গেল । ـسمع كمحصعصعصيه বঙ্কিমচন্দ্রের গ্রন্থাবলী দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ তখন কোম্পানীর অনেক রেশমের কুঠী ছিল। শিবগ্রামে ঐরূপ এক কুঠী ছিল । ডানিওয়ার্থ সাহেব সেই কুঠার ফাক্টার অর্থাৎ অধ্যক্ষ ছিলেন । তখনকার কুঠীসকলের রক্ষার জন্য সুব্যবস্থা ছিল। ডানিওয়ার্থ সেই জন্য কোনপ্রকারে প্রাণরক্ষা করিতে পারিয়াছিলেন । কিন্তু র্তাহার স্ত্রী-কন্যাদিগকে কলিকাতায় পাঠাইয়। দিতে বাধ্য হইয়াছিলেন এবং তিনি স্বয়ং সন্তানদিগের দ্বার। উৎপীড়িত হুইয়াছিলেন । সেই প্রদেশে এই সময়ে কাপ্তেন টমাস সাহেব দুই চারি দল ফৌজ লইয়। তশরিফ আনিয়াছিলেন । এখন কতকগুলো চোয়াড়, হাড়ি, ডোম, বাগ দী, বুনো, সন্তানদিগের উৎসাহ দেখিয়া, পরদ্রব্যাপহরণে উৎসাহী হইয়াছিল । তাহার কাপ্তেন টমাসের রসদ আক্রমণ করিল। কাপ্তেন টমাসের সৈন্যের জন্য গাড়ী গাড়ী বোঝাই হইয়া উত্তম ঘি, ময়দা, মুরগী, চাল যাইতে ছিল—দেখিয়া ডোমবাগ দীর দল লোভ সংররণ করিতে পারে নাই । তাহার। গিয়া গাড়া আক্রমণ করিল, কিন্তু কাপ্তেন টমাসের সিপাহীদিগের হস্তস্থিত বন্দুকের দুষ্ট চারিট গুত। খাষ্টয়া ফিরিয়া আসিল । কাপ্তেন টমাস তৎক্ষণই কলিকাতায় রিপোর্ট পাঠাইলেন যে, আজ ১৫৭ জন সিপাই লইয়া ১৪,৭০০ বিদ্রোহী পর। জয় কর। গিয়াছে । বিদ্রোহীদিগের মধ্যে ১১৫৩ জন মরিয়াছে, ১২২৩ জন আহত হইয়াছে, ৭ জন বন্দী হইয়াছে। কেবল শেষ কথাটি সত্য । কাপ্তেন টমাস দ্বিতীয় ব্লেনহিম বা রসবাকের যুদ্ধ জয় করিয়াছি মনে করিয়া গোপ দাড়ি চুম্রাক্টর নির্ভয়ে ইতস্ততঃ বেড়াইতে লাগিলেন এবং ডানিওয়ার্থ সাহেবকে পরামর্শ দিতে লাগিলেন যে, আর কি, এক্ষণে বিদ্রোহুনিবারণ হইয়াছে, তুমি স্ত্রী-পুলদিগকে কলিকাতা হইতে লইয়া আইস । ডানিওয়ার্থ সাহেব বলিলেন, “তা হইবে, আপনি দশ দিন এখানে থাকুন, দেশ আর একটু স্থির হউক, স্ত্রী-পুত্ৰ লইয়া আসিব ।" ডানিওয়ার্থ সাহেবের ঘরে পাল মটন মুরগী ছিল। পনীরও তাহার ঘরে অতি উত্তম ছিল । নানাবিধ বন্য পক্ষী তাহার টেবিলের শোভা সম্পাদন করিত । শ্মশ্রমান বাবুচ্চিাট দ্বিতীয় দ্রৌপদী ; সুতরাং বিন। বাক্যব্যয়ে কাপ্তেনটমাস সেইখানে অবস্থিতি করিতে লাগিলেন । এ দিকে ভবানন্দ মনে মনে গর-গর করিতেছে ; ভাবিতেছে, কবে এই কাপ্তেন টমাস সাহেব বাহাদুরের মাথাটি কাটিয়া, দ্বিতীয় সম্বরারি বলিয়া উপাধি ধারণ করিবে ; ইংরেজ যে ভারতবর্ষের উদ্ধারসাধন জন্য