পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (তৃতীয় ভাগ).djvu/৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ॐद । न} \ ক। আপনার সঙ্গে কি তাহার সাক্ষাৎ হয় না ? उद ! श्शु । ক । আমার কথা কিছু বলেন না ? ভব। না, যে স্ত্রী মরিয়া গিয়াছে, তাহার সঙ্গে স্বামীর আর সম্বন্ধ কি ? ক । কি বলিতেছেন ? ভব । তুমি আবার বিবাহ করিতে পার, তোমার পুনর্জন্ম হইয়াছে । ক । আমার কন্য। অনিয় দাও । ভব । দিব, তুমি আবার বিবাহ করিতে পার । ক । তোমর সঙ্গে ন। কি ? ভব ; বিবাহ করিবে ? ক । তোমার সঙ্গে ন! কি ? ভব । যদি তাই হয় ? ক । সস্ত}মধম্ম কোথায় থাকবে ? ভব । অভল জলে । ক। পরকাল ? ভব । হাতল চলে । 전 1 으 ? ভব । ত তল জল । ক । কিসের জন্ত সব আইল জলে ডুবাইবে ? ভব। তোমার জ্ঞঠ ! দেখ, মনুষ্য হউন, ঋষি হউন, সিদ্ধ হউন, সব তা হু উন, চিত্ত অবশ ; সস্তানধৰ্ম্ম আমার প্রাণ, কিন্তু আজ প্রথম বলি- তুমিই আমার প্রাণাধিক প্ৰাণ ; সে দিন তোমার প্রাণদান করিয়াছিলাম, সেই দিন ইষ্টতে আমি তোমার পদমূলে বিক্রাত । আমি জানিতাম না মে, সংসারে এ রূপরাশি আছে । এমন রূপরাশি আমি কখন চক্ষে দেখিব জানিলে,কখন সন্তান ধৰ্ম্ম গ্রহণ করিতাম ন! ! এ পৰ্ম্ম এ আগুনে পুড়িয় ছাই হয় । ধৰ্ম্ম পুড়িয়। গিয়াছে প্রাণ আছে । আজি চারি বৎসর প্রাণও পুড়িতেছে, আর থাকে না । দাহ ! কল্যাণি । দাহ ! জাল। ! কিন্তু গুলিবে যে ইন্ধন, তাহা অার নাই । প্রাণ মায় । চারি বৎসর সহা করিয়াছি, আর পারিলাম না । তুমি আমার হইবে ? ক । তোমারই মুখে শুনিয়াছি যে, সস্তানধৰ্ম্মের এই এক নিয়ম যে, যে ইন্দ্রিয়পরবশ হয়, তার প্রায় শ্চিত্ত মৃত্যু। এ কথা কি সত্য ? ভব । এ কথা সত্য । ক । তবে তোমার প্রায়শ্চিত্ত মৃত্যু । ভব। আমার একমাত্র প্রায়শ্চিত্ত মৃত্যু ! ক । আমি তোমার মনস্কামনা সিদ্ধ করিলে তুমি মরিবে ? আনন্দমঠ 8어 ভব । নিশ্চিত মরিব । ক । আর যদি মনস্কামনা সিদ্ধ না করি ? ভব ; তথাপি মৃত্যু আমার প্রায়শ্চিত্ত, কেন, না, আমার চিন্তু ইন্দ্রিয়ের বশ হইয়াছে । ক । আমি তোমার মনস্কামনা সিদ্ধ করিব না তুমি কবে মরিবে ? ভব । আগামী যুদ্ধে । ক । তবে তুমি বিদায় হও । পাঠাষ্টয় দিবে কি ? ভবানন্দ সাশ্রলোচনে বলিলেন, “দিব । * আমি মরিয়া গেলে আমায়ু মনে রাখিবে কি ?” কল্যাণী বলিলেন, “রাখিব । ব্রতচু্যত অধৰ্ম্মী বলিয়া মনে রাখিব ।” ভবানন্দ বিদায় হইলেন, কল্যাণী পুথি পড়িতে অামার কন্ত। বসিলেন । পঞ্চম পরিচ্ছেদ ভবানন্দ ভাবিতে ভাবিতে মঠে চলিলেন । ধাইতে যাইতে রাত্রি হইল । পথে একাকী ঘাইতেছিলেন । বনমধ্যে একাকী প্রবেশ করিলেন। দেখিলেন, বনমধ্যে আর এক ব্যক্তি তাহার আগে আগে লুইতেছে । ভবানন্দ জিজ্ঞাস করিলেন, “কে হে s ?" অগ্ৰগামী ব্যক্তি বলিল, “জিজ্ঞাসা করিতে জানিলে উত্তর দিই –আমি পথিক ।” ভব । “বনে ৷” অগ্রগামী ব্যক্তি বলিল, “মাতরম্ " + ভব । আমি ভবানন্দ গোস্বামী । অগ্রগামী । আমি ধারানন্দ । ভব ! পারানন্দ, কোথায় গিয়াছিলে ? ধীর । আপনারই সন্ধানে । ভব । কেন ? ধীর । একটা কথা বলিতে । ভব । কি কথা ? ধীর । নির্জনে বক্তব্য । ভব । এইখানে বল না, এ অতি নির্জন স্থান । ধীর । আপনি নগরে গিয়াছিলেন ? ভব । হা । ধীর । গৌরী দেবীর গৃহে ? ভব । তুমিও নগরে গিয়াছিলে না কি ? ধীর। সেখানে একটি পরমসুন্দরী ধৰতী বাস করে ? -: