পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (তৃতীয় ভাগ).djvu/৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আনন্দমঠ * শাস্তি । আবার নেক্লাবে কোথা ? সাহেব । মেলামে—টোম্‌ কব, আয়৷ ইয়াসে ? শান্তি । কা’ল এসেছি”সাহেব । সাহেব ! ও লোক আজ নিকেল গিয়া হোগা । শাস্তি মনে মনে ভাবিতেছিল যে, “তোমার বাপের শ্রাদ্ধের চাল যদি আমি না চড়াই, তবে আমার রসকলি কাটাই বৃথা । কতক্ষণে শিয়ালে তোমার মুণ্ড খাবে, আমি দেখ বে৷ ” প্রকাশ্বে বলিল, “সাহেব, তা সাহেব, হতে পারে, আজ বেরিয়ে গেলে যেতে পারে । অত খবর আমি জানি না, বৈষ্ণবী মাল্লষ, গান গেয়ে ভিক্ষা-শিক্ষা করে খাই, আত খবর রাখি নে । ব’কে ব’কে গলা শুকিয়ে উঠলো, পয়সা দাও, —উঠে চলে যাই । আর ভাল ক'রে বকসিস দাও তো, না হয় পরশু এসে বলে যাব ।” সাহেল বানাৎ করিয়া একটা নগদ টাকা ফেলিয়৷ দিয়া বলিল,--“পরশু নেহি বিধি ” শান্তি বলিল, “দূর বেটা, বৈষ্ণবী বলু, বিবি কি ?” এডওয়ার্ডস • পরশু মেক্তি, আজ রাৎকে। হামকে খবর মিলুন চাতিয়ে । শান্তি । বন্দুক মাথায় দিয়ে সরাপ টেনে সরিষের তেল নাকে দিয়ে সূমো ; আজ আমি দশ কোশ রাস্ত যাব-আসবে।—ওকে খবর এনে দেব ! ছুঁচে বেট কোথাকার ! এড। ভূঁচে। বেট কেঙ্কা কয়তা হ্যায় ? শাস্তি । যে বীর—ভারি জাদরেল । equ. Great General esta cos ser eros— ক্লাইবক মাফিক। লেকেন আজ হামকে খবর মিলনে গছিয়ে । শওরূপেয়া বকসিস দেঙ্গে । শান্তি । শও দাও, আর হাজার দাও, বিশ ক্রোশ এ দুখানা ঠেঙ্গে হবে না । এড । ঘোড়ে পর ? শাস্তি । ঘোড়ায় চড়তে জানলে আর তোমার তাবুতে এসে সারেঙ্গ বাজিয়ে ভিক্ষে করি ? এড় । গদী পর লে যায়েগা ! শান্তি । কোলে বসিয়ে নিয়ে যাবে, আমার লজ্জা নাই ? এর্ড। ক্যা মুস্কিল পান্‌শে রূপেয়া দেঙ্গে । শান্তি ! কে ষাবে, তুমি নিজে ষাৰে ? সাহেব তখন অঙ্গুলিনির্দেশপুৰ্ব্বক সম্মুখে দণ্ডায়মান লিণ্ডলে নামক এক জন যুবা এনসাইনকে দেখাইয়া তাহাকে বলিলেন, “লিগুলে, তুমি যাবে?” লিণ্ডলে শাস্তির রূপ-যৌবন দেখিয়া বলিল, “আহলাদপূর্বক ৷” ৬৩ ৷ তখন ভারি একটা আরবী ঘোড়া সজ্জিত হইয়l. আসিলে লিণ্ডলেও তৈয়ার হইল । শাস্তিকে ধরিয়া ঘোড়ায় তুলিতে গেল। শাস্তি বলিল, “ছি, এত লোকের মাঝখানে ? আমার কি আর কিছু লজ্জা নাই ? আগে চল, ছাউনি ছাড়াই ।” লিণ্ডলে ঘোড়ায় চড়িল । ঘোড়া ধীরে ধীনে ক্টাটাইয়া চলিল । শাস্তি পশ্চাৎ পশ্চাৎ ষ্টাটিয়া চলিল । এইরূপে তাহারা শিবিরের বাহিরে আসিল । শিবিরের বাহিরে আসিলে নির্জন প্রান্তর গ’ইষণ শান্তি লিণ্ডলের পায়ের উপর প। দিয়া এক লাফে ঘোড়ায় চড়িল । লিণ্ডলে হাসিয়া বলিল, “তুমি যে পাক ঘোডসওয়ার ।” শান্তি বলিল, “আমরা এমন পাকা ঘোড়সওয়ার যে, তোমার সঙ্গে চড়িতে লজ্জ করে । ছিঃ ! রেকবি পাযে দিয়ে ঘোড়ায় চড়া !" একবার বড়াই করিবার জন্ত লিণ্ডলে রেকর্ণব হক্টতে প। লক্টল । শান্তি আমনি নিৰ্ব্বোধ ইংরেজের গলদেশে হস্তীর্পণ করিয়া ঘোড়া হইতে ফেলিয়া দিল । শান্তি তখন অশ্বপুষ্ঠে রীতিমত আসন গ্রহণ করিয়া ঘোড়ার পেটে মলের ঘা মারিয়া, বায়ুবেগে আরবীকে ছটাইয়! দিল । শাস্তি ঢারি বৎসর সস্তানসৈন্সের সঙ্গে সঙ্গে ফিরিয়া অশ্বারোহণ-বিদ্যাও শিখিয়াছিল । তা ন৷ শিখিলে জীবানন্দের সঙ্গে কি বাস করিতে পারিত ? লিণ্ডলে পা ভাঙ্গিয়া পড়িয়া রহিলেন । শান্তি বায়ুবেগে অশ্বপুষ্ঠে চলিল । ষে বনে জীবানন্দ লুকাইয়া ছিলেন, শাস্তি সেইখানে গির জীবানন্দকে সকল সমাচার অবগত করাইল । জীবানন্দ বলিলেন, “তবে আমি শীঘ্র গিয়া মহেন্দ্রকে সতর্ক করি । তুমি মেলার গিয়া সত্যানন্দকে খবর দাও । তুমি ঘোড়ায় যাও— প্ৰভু যেন শীঘ্র সংবাদ পান ।” তখন দুই জনে দুই দিকে ধাবিত হইল। বলা বৃথা, শাস্তি আবার নবীনানন্দ হইল । ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ এডওয়ার্ড পাকা ইংরেজ । ঘাটিতে ঘাটিতে তাহার লোক ছিল । শীঘ্র তাহার নিকটে খবর পৌছিল যে, সেই বৈষ্ণবীটা লিণ্ডলে সাহেবকে ফেলিয়া দিয়া আপনি ঘোড়ায় চড়িয়া কোথায় চলিয়া গিয়াছে । শুনিয়াই এডওয়ার্ড বলিলেন, “An imp of Satan I Strike the tents.”