পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (তৃতীয় ভাগ).djvu/৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুর্থ পরিচ্ছেদ প্রতাপ সুন্দরী বড় রাগ করিপ্লাই শৈবলিনীর বজর হইতে ঢলিমা আসিয়াছিল । সমস্ত পথ স্বামীর নিকটে শৈবলিনীকে গালি দিতে দিতে আসিয়াছিল । কখনও “অ ভাগ,” কখনও "পোড়ারমুখ। কখনও "চলোমুখী” ইত্যাদি প্রিয় সম্বোধনে শৈবলিনাকে অভিহিত করিয়া স্বামীর কৌতুকবৰ্দ্ধন করিতে করিতে আসিতেছিল । ঘরে আসিয়া অনেক র্ক দিয়াছিল । তার পর চন্দ্রশেখর আসিয়৷ দেশতাধি হইয় গেলেন । তার পর কিছু দিন আমনি আমনি গেল । শৈবলিনার ব| চন্দ্রশেখরের কোন সংবাদ পাওয়! গেল ন! ! তখন সুন্দরা ঢাকাই শাটী পরিয়৷ গহন পরি৩ে বসিল । পূৰ্বেই ব’লয়াছি, সুন্দরা চন্দ্রশেখরের প্রতি বাসি কিন্ত এবং সম্বন্ধে ভগিনী । তাঙ্গার পিতা নিতান্ত অসঙ্গsিশলী মঙ্গেল ! সুন্দর সচরাচর পিত্রালয়ে থাকিতেন ; তাহার স্বামী শ্ৰীনাথ প্রস ও ঘরজামাই ন৷ ইয়ও কখনও কথন ও শ্বশুরবাড়া আসিয়া থাকি তেন । শৈবলিনীর বিপংকালে মে শ্রীনাথ বেদগ্রামে ছিলেন, তাহার পরিচয় পূৰ্ব্বেই দে প্রয়। ইষ্ট রাষ্টে । BBBBS BBB KSggSS LLLLL BBS BB BB অকস্মণ । সুন্দরীর অব এক কনিষ্ঠ ভগিনী ছিল । তাহার নাম রূপসী । রূপসী শ্বশুরবাড়ীতেই থাকি ত । সুন্দরা ঢাকাই শাটী পরিয়। অলঙ্কর সন্নিবেশ পূৰ্ব্বক পিতাকে বলল, “আমি রূপসীকে দেখিতে যাইব, ৩iহার বিষয়ে বড় কু স্বপ্ন দেখিয়ছি ।" সুন্দরীর পিত। কুষঃকমল চক্রব ষ্টা কত৷র বশীভুত, একটু আপটু আপত্ত্বি করিদ্র সম্মত হইলেন । সুন্দর পাপসীর শ্বশুরালয়ে গেলেন-ঐীনাথ স্বগৃষ্ঠে গেলেন । রূপসীর স্বামী কে ? সেই প্রতাপ । শৈবলিনকে বিবাহ করিলে, প্রতিবাসিপুত্র প্রতাপদে চন্দ্রশেখর সৰ্ব্বদ দেখিতে পাইতেন । চন্দ্রশেখর, প্রতাপের চরিত্রে অত্যস্ত প্রীত হইলেন । সুন্দরীর ভগিনী রূপসী বয়স্থা হইলে তাহার সঙ্গে প্রতাপের বিবাহ ঘটাইলেন । কেবল তাঁহাই মহে, চন্দ্রশেখর কাসেম অলি পার শিক্ষাদাত। —তাহার কাছে বিশেষ প্রতিপন্ন । চন্দ্রশেখর নবাবের সরকারে প্রতাপের চাকরী করিয়া দিলেন। প্রতাপ স্বীয় গুণ দিন দিন উন্নতি লাভ করিতে লাগিলেন । এক্ষণে প্রতাপ জমাদার । তাহার বৃহৎ অট্টালিকা এবং দেশবিখ্যাত নাম । স্বনীবীর শিবিক তাহার পুরীমধ্যে প্রবেশ করিল। রূপসী তাহাকে দেখিয় প্রণাম করিয়া সাদরে গৃহে .” চন্দ্রশেখর స్పీ) লষ্টয়া গেল। প্রতাপ আসিয়া স্থালীকে রহস্ত সম্ভাষণ করিলেন । পরে অবকাশমতে প্রতাপ সুন্দরীকে বেদগ্রামের সকল কথ। জিজ্ঞাস করিলেন । অন্তান্ত কথার পর চন্দ্রশেখরের কথা জিজ্ঞাস করিলেন । সুন্দরী বলিলেন, “আমি সেই কথাই বলিতেই আসিয়াছি, বলি শুন ।” * এই বলিয়া সুন্দরী চন্দ্রশেখর ৭ৈবলিনীর নির্বাসনবৃত্তাস্ত সবিস্তরে বিবৃত করিলেন শুনিয় প্রতাপ বিঘ্নিত ও স্তব্ধ হইলেন ; কিঞ্চিং পরে মাথা তুলিয়া প্রতাপ কিছু রুক্ষভাবে সুন্দরীকে বলিলেন, “এত দিন আমাকে এ কথ। বলিয়া পাঠাগু নাই কেন ?" স্থ । কেন, তোমাকে বলিয়। কি হইবে ? প্র । কি হইলে ? তুমি স্ত্রীলোক, তোমার কাছে বড়াই করিদ ন। আমাকে বলিয়। পাঠাইলে কিছু উপকার হইতে প।রিত । সু । তুমি উপকার করিবে কি না, তা জানিব কি প্রকারে ? প্র । কেন, তুমি কি জান না-আমার সর্বস্ব চন্দ্রশেখর হইতে ? স্থ । কিন্তু শুনিয়াছি, লোকে বড়মাষ্ট্রয় হইলে পুলকথ। তুলিস মায় । প্রতাপ কুদ্ধ ইষ্ট। অপার এবং বাকশূঙ্গ হইয়া উঠিয়৷ গেলেন, রাগ দেখিয়! সুন্দরীর বড় আহলাদ হইল । পরদিন প্রতাপ এক প{টক ও এক ভূত)মাত্র সঙ্গে লষ্ট। মুঙ্গের যাত্র করিলেন । ভূতের নাম রামচরণ । প্রভাপ কে খায় গেলেন, প্রকাশ করিয়া গেলেন না"; কেপল রূপসাপে বলিয়। গলেন, “আমি চন্দ্রশেখরী শৈবলিনার সন্ধiন করতে চলিলাম । সন্ধান না করি। কিরিব না ।" সে গুহে ব্ৰহ্মচারী দলনাকে রাখিয় গেলেন, মুঙ্গেরে সেই প্রত!পের বসি । সুন্দরী কিছু দিন ভগিনীর নিকটে থাকিয়া, আকাঙ্ক মিট!ষ্ট শৈবলিনাকে গালি দিল ; প্রাতে, মপাঙ্গে, সায়হে সুন্দরী রূপসীর নিকট প্রমাণ করিতে বসিত সে, শৈবলিনীর তুল্য পাপিষ্ঠ। হতভাগিনী আর গুথিবীতে জন্মগ্রহণ করে নাই । এক দিন রূপসী বলিল, “ত। ত সত্য, তবে তুমি তার জঙ্গ এত দৌড়াদৌড়ি করিয়া মরিতেছ কেন ?" সুন্দরী বলিল, “তার মুণ্ডপাত করিব বলে— তাকে ধমের বাড়ী পাঠাৰ ব’লে—তাব মুখে আগুন দিব বলে" ইত্যাদি ইত্যাদি ।