পাতা:বঙ্গদর্শন-প্রথম খন্ড.djvu/৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


వీtు 3 o fa 1) ( ३श्लङ्ग*, *शः, প্রভৃতি সামান্য যন্ত্র সকল ইহার উদাহরণ। মৃদঙ্গ, বোধ হয় দেশীয় যন্ত্র ; সাওতাল হইতে প্রাপ্ত । সেতার এই মত নহে। যেমন প্রাচীন কবিগণই উৎকৃষ্ট কবি, তেমনি প্রাচীন হিন্দু-গীত-প্রণালীও আশ্চৰ্য্য। গীতে কেবল বুদ্ধির প্রাথর্য্য, কল্পনা, ভাব ও মনোযোগ আবশ্যক। প্রাচীনের এই সকল | বিষয়ে মহাবল-বিশিষ্ট ছিলেন, সহজেই গীতের অসাধারণ উন্নতি করিয়াছিলেন। - নাভি, কণ্ঠ এবং তালু, সুরের তিন স্থান পৌরাণিকের নির্দেশ করিয়াছেন। এক এক স্থলসমুৎপন্ন স্বরকে এক এক গ্রাম কহে । এক এক গ্রামে সাত সাত মুর অর্থাৎ সারি গা মা পা ধী নী। প্রথম পঞ্চম ও সপ্তম মুর ব্যতীত অপর সকল স্বরের তীব্রতা ও কোমলতা থাকাতে, সে সকলকে অৰ্দ্ধ সুর বলিয়া গণনা করা হইয়াছে। সহজেই সংলগ্ন স্বরের সংখ্যা ১২টা মাত্র । প্রাচীনের তীব্র ও কোমল অর্থাৎ অৰ্দ্ধ স্বর সকলকে এত ভাগে বিভাগ করিয়াছেন যে, তাহ ভাবিলে আশ্চর্য্য বোধ করিতে হয়। ইহা তাহাদের বুদ্ধি ও মনোযোগের এবং বিচার শক্তির পরিচয় বটে, কিন্তু বারটা ক্ষরই সহজসাধ্য এবং সামান্যতঃ | অবশ্যক । সকল গীতে সকল সুরের আবশ্যক হয় | না। কোন গীতে সাত, কোন গীতে তিন, , কোন গীতে পাচ ইত্যাদি আবশ্যক হয় । বিভাগের গীত সকল পুনশ্চ সময়, ভাব | এবং লাবণ্য অনুসারে রাগ রাগিণী আখ্যায় | শ্রেণীভুক্ত হইয়াছে। প্রাচীন হিন্দুদিগের | এক অদ্ভূত ক্ষমতা এই দেখা যায় যে, | জয়ীম বুদ্ধি ও তর্ক কৌশলে তাহারা কি ধৰ্ম্ম- | শাস্ত্র, কি তর্কশাস্ত্র কি অপর বিদ্যা, সকলকেই | পুঙ্খানুপুঙ্খ বিচার পূর্বক প্রণালীবদ্ধ করিয়া | গিয়াছেন ; আবার প্রত্যেক ভাগকে দেহ- | বিশিষ্ট ও পরিচ্ছদবিশিষ্ট করিয়া শ্রেণীভুক্ত | করিয়াছেন । সঙ্গীতেরও তদ্রুপ । যেমন | ভাষার দ্বারা কথা কহিয়া ভাক প্রকাশ করা | যায়, চিত্ৰকৰ্ম্মের দ্বারা চিত্তের ভাবকে অবয়ব | দেওয়া যায়, নিরর্থ-শব্দময় স্বরের দ্বারাও সেই | রূপ হইতে পারে। তজ্জন্য অতি চমৎকার | নিয়ম-সকলের বিধান হইয়াছে। . পূৰ্ব্বেই | কথিত হইয়াছে যে, সুর কণ্ঠভঙ্গীর চরমোৎ- | কর্ষ। কণ্ঠভম্বী বিশেষে মনের কোন বিশেষ । ভাব ব্যক্ত হয়। এমত অবস্থায় সহজেই বুঝা । যাইতেছে যে, কতকগুলিন স্থর বাছিয়া বাছিয়া | একত্রিত করিলে কোন একটি বিশেষ মানসিক । ভাব সুস্পষ্ট হইয়া ব্যক্ত হইবে। এইরূপ স্বর | সমুহের সমষ্টিকে রাগ রাগিণী কহে। এক | একটী রাগ বা রাগিণীর দ্বারা এক একটী | পৃথক চিত্তবিকার বা নৈসর্গিক দৃশ্য অতুৰ্ব্বত | হয়। বসন্ত সময়ের অনুরূপ বসন্ত রাগ, বর্ষার | অনুরূপ মেঘ রাগ, শোকের অনুরূপ জয় | জয়ন্তী, বিরহের অনুরূপ ললিত ইত্যাদি।. | কোন কোন ইউরোপীয় পণ্ডিত বলেন যে, } প্রাচীন কালে ভারতবর্ষে লিপিবিদ্যা ছিল না,• | • ম্যক্ষ মূলয় এই কথা বলেন।. গোগড় কয় | टtश्ब्र &थध्रुि!म कब्रिड्रांtझन ।

|