পাতা:বঙ্গদর্শন-প্রথম খন্ড.djvu/৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


पबद*(१, tवt, १९१० ) ব্ল্যাম্ৰাচাৰ্য বৃহন্নাঙ্গল చిని | দর নামে এক অতি প্রাচীন ব্যামকে সভাপতি করিলেন। জমিতোর মহাশয় লীলাসন গ্রহণ পূর্বক স্বভার কার্য্য আরম্ভ করিলেন। -তিনি সভ্যদিগকে সম্বোধন করিয়া কহিলেন – “অদ্য আমাদিথুের कि उड निन । भ्रा আমরা যত 'অরণ্যবাসী মাংসাভিলাষী ব্যাঞ্জকুলতিলক-সকল পরস্পরের মঙ্গল সাধনার্থ এই অরণ্যমধ্যে একত্রিত . হইয়াছি। আহ ! কুৎসাকারী, খলস্বভাব অন্যান্য পশুবর্গে রটন করিয়া থাকে যে, আমরা বড় অসামাজিক, এক এক বনেই বাস করিতে ভাল বাসি, श्रांभांटमब्र भtथा शैका नाझे । किरू श्रला আমরা সুসভ্য ব্যাভ্রমণ্ডলী একত্রিত হইয়া সেই অমূলক নিন্দাবাদের নিরাকরণ করিতে প্রবৃত্ত হইয়াছি । এক্ষণে সভ্যতার যেরূপ দিন দিন তীবৃদ্ধি হইতেছে, তাছাতে আমার সম্পূর্ণ আশা আছে যে, শীঘ্রই ব্যাস্ত্ৰেৰ সত্যজাতির অগ্রগণ্য হইয় উঠবে। এক্ষণে বিধাতার নিকট প্রার্থনা করি যে, আপনার দিন দিন এইরূপ জাতিহিতৈষিত প্রকাশ পূর্বক পরম হুখে নানাবিধ পণ্ডছনন করিতে থাকুন।” গেভ মধ্যে লাল চটচটারব।) “এক্ষণে হে ভ্ৰাতৃবৃন্দ । আমরা যে প্রয়োজন সম্পাদনার্থ সমবেত হইয়াছি, তাহ সংক্ষেপে বিবৃত করি। আপনার সকলেই অবগত আছেন যে, এই স্বন্দর-বনের ব্যাঘ্রসমাজে বিদ্যার চর্চা ক্রমে লোপ পাইতেছে। আমাদিগের বিশেষ অভিাষ হইয়াছে, আমরা বিম্বান হুইৰ । কেননা আজিকালি সকলেই বিজ্ঞান হইতেছে। আমরাও হইব। বিদ্যার আলোচনার জন্য এই ব্যাস্ত্রসমাজ সংস্থাপিত হইয়াছে। এক্ষণে,আমার বক্তব্য এই যে, । আপনারা ইহার অনুমোদন করুন।” সভাপতির এই বকৃত সমাপ্ত হইলে, | সভ্যগণ হাউমাউ শব্দে এই প্রস্তাবের অনু- | মোদন করিলেন। তখন যথারীতি কয়েকট । প্রস্তাব পঠিত এবং অনুমোদিত হইয়া সভ্যগণ কর্তৃক গৃহীত হইল । প্রস্তাবের সঙ্গে । সঙ্গে দীর্ঘ দীর্ঘ বক্তৃত হইল, তাহ ব্যাকরণশুদ্ধ এবং অলঙ্কারবিশিষ্ট বটে, তাহাতে শৰা বিন্যাসের ছটা বড় ভয়ঙ্কর ; বক্তৃতার চোটে স্বন্দরবন কঁপিয়া গেল । পরে সভার অন্যান্য কাৰ্য্য হইলে, সভা- | পতি বলিলেন, “আপনার জানেন যে, | এই স্বন্দরবনে বৃহন্নাঙ্গল নামে এক অতি ৷ পণ্ডিত,ব্যাঘ্র বাস করেন। অদ্য রাত্রে তিনি আমাদিগের অনুরোধে মনুষ্য চরিত্র সম্বন্ধে । একটি প্রবন্ধ পাঠ করিতে স্বীকার | করিয়াছেন।” মন্থয্যের নাম শুনির কোন কোন নবীন | সভ্য ক্ষুধা বোধ করিলেন । কিন্তু তৎকালে | পৱিক ডিনরের স্বচন না দেখিয়া নীরব হইয়া | রছিলেন। ব্যাসাচার্য বৃহন্নাঙ্গল মহাশয় সভাপতি কর্তৃক আহত হইয়া, গর্জন পূৰ্ব্বক গাত্ৰোখান করিলেন এবং পথিকের | ভীতিবিধায়ক স্বরে নিম্নলিখিত প্রবন্ধট পাঠ | করিলেন ;– “সভাপতি মহাশয় । বাঘিনীগণ । এৰং ভদ্র ব্যাঘ্রগণ ? মনুষ্য এক প্রকার দ্বিপদ জন্তু। তাহার | পক্ষবিশিষ্ট নছে, মুতরাং তাহাদিগকে পাখী । বলা যায় না।, বরং চতুষ্পদগণের সঙ্গে তাহা ।