পাতা:বঙ্গদর্শন-প্রথম খন্ড.djvu/৫২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


@歌8 বিষবৃক্ষ । (বঙ্গদর্শন,মাঃ, ১২৭৯) ছিলাম যে, তুমি দুই এক দিন মধ্যে | দেখিলাম—তুমি মাতায় হাত দিয়া বসিয়া বাট আসিবে। সেই প্রত্যাশায় আমি আছ। বড় সাধ হইল, তোমার পায়ে পরশ্ব দিন এখানে আসিয়াছিলাম । লুটাইয়া পড়ি—কিন্তু আবার কত ভয় এখন আর তিন ক্রোশ পথ হাটিতে ক্লেশ হইল –তোমার কাছে যে অপরাধ হয় না-পথ হাটিতে শিখিয়াছি। পঃশ্ব | করিয়াছি--তুমি যদি ক্ষম না কর ? তোমার আসা হয় নাই, শুনিয়া ফিরিয়া | আমি ত তোমাকে কেবল দেখিয়াই তৃপ্ত। গেলাম, আবার কালি ব্রহ্মচারির ; কপাটের আড়ালে হইতে দেখিলাম ; সঙ্গে সাক্ষাতের পর গোবিন্দপুরে ভাবিলাম, এই সময়ে দেখা দিই । দেখা আসিলাম । যখন এখানে পহছিলাম, দিবার জন্য আসিতেছিলাম-কিন্তু দুয়ারে তখন এক প্রহর রাত্রি। দেখিলাম, আমাকে দেখিয়াই তুমি অচেতন হইলে । তখনও খিড়কী দুয়ার খোলা। গৃহমধ্যে সেই অবধি কোলে লইয়া বসিয়া আছি । প্রবেশ করিলাম—কের আমাকে দেখিল ৷ এ স্থখ যে আমার কপালে হইবে, তাহ না। সিড়ির নীচে লুকাইয়া রছিলাম। আমি জানিতাম না। কিন্তু ছি! তুমি পরে সকলে শুইলে সিঁড়িতে উঠিলাম। আমায় ভালবাস না। তুমি আমার মনে ভাবিলাম, তুমি অবশ্য এই ঘরে গায়ে হাত দিয়াও আমাকে চিনিতে শয়ন করিয়া আছ। দেখিলাম, এই পার নাই—আমি তোমার গায়ের দুয়ার খোলা ! ভূয়ীরে উকি মারিয়া বাতাস পাইলেই চিনিতে পারি।”