পাতা:বঙ্গদর্শন-প্রথম খন্ড.djvu/৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বঙ্গদর্শন, জৈঃ, ১২৭৯ । উদ্দীপন । @> ছেন,তিনিই অস্তরে কবি। যে হাঁসে নাই, কাদে নাই, সে মনুষ্য নয় ; জীবন্ত পুতুল। মুম্বুধ্যমত্রেই অন্তরে অন্তবে কবি। সংসারে • নানা রস ছড়ান রহিয়াছে, অবস্থানুসারে তিক্ত মিষ্ট লবণ আস্বাদন করিতে হইতেছে। মঞ্চর্য যদি কুশিক্ষায় অরসিক, অভাবুক না চষ্টয়া থাকে, তাহাকে কবি হইতেষ্ট হইবে । কবিত্ব মন্ত্রস্যের স্বভাবধৰ্ম্ম । উদ্বীপন সে রূপ নহে, ইহা বিশেষ বিশেষ অবস্থায়.বিশেষ বিশের রূপে পরিণত, বৰ্দ্ধিত ও পুষ্ট হয় । প্রাচীন ভারতের একগতিস্রোতে ইঙ্গর বীজ মৃত্তিক আশ্রয় করিতে পাবে নাই । স্রোতের বলে কয়বার চরে লাগিয়াছিল ও সেই কয়বারই বীজ অঙ্কুরিত, লত। পল্পবিত পুপিতা এবং বোধ হয়, ফলভবেও অবনত হইয়াছিল । পুবাবৃত্তেব কোন কোন স্থানে এষ্টরূপ ঘটনা হয়, তাহাও সামাদের দেখা বিশেষ কৰ্ত্তব্য। কিরূপ মৃত্তিকায়, কিরূপ জলবায়ুতে বীজ অঙ্কুবিত ও লতা বদ্ধিত হয়, গঙ্গা না জানিলে, কখনই আমরা কৃষিকার্যো সফলতা লাভ করিতে পারি না ; সেই কৃষিকার্য্যও এখন বিশেষ আবশ্যক । প্রাচীন ভারতের একগলিস্রোতোবাহিনীতে আমরা বড় অধিক দিন বা অধিক বাব সঞ্চরণ করি নাই। ভারত নদী বিপুল ; চব দেখিয়াই, আমরা আমাদের ক্ষুদ্র তরি সেই প্রবাহে বিসর্জন করিতেও ভরসা পাই । নাবিক পাই নাই, পাইলট পাই নাই, সুতরাং কয়টি বৃহৎ চরে লাগাইয়া, সেই একটি দেখিয়াই প্রত্যাবৃক্ক হইতে হইয়াছে। ক্ষুদ্র দ্বীপ হার কখনই লক্ষ্যে পড়ে নাই। যদি কখন | অবতার। দক্ষিণবিজয়ই রামায়ণ যুদ্ধ । যখন ; দূরে একটি কাল মেঘের মত মধ্যে মধ্যে নাই। আর পাঁচ জন সঙ্গী পাইলেও বা ভরসা হয় । তা কে কোথায়, কাহাকেও দেখি না । তখন ভয়ে বিযাদে বাগ শ্রীতে বলিতে 枣颈 名一 “তরি নাহি দেখি আর, চারিদিকে অন্ধকার । বুঝি প্রাণ যায় এবাব, ঘূর্ণিত জলে ।” এই রূপ অবস্থায়, এক বার এক জন বিলাতি পাইলটের সঙ্গে দেখা হয়। র্তাহাকে দেখিয়া মনে কিছু ভরসা হয় । সাহেবের নৌবিদ্যায় কিছু পটু, তাহান্সে জাতিতে ইংরেজ, সাহসও বিলক্ষণ আছে। পাইলট অগ্রে অগ্ৰে চলিলেন, তামরা সঙ্গে সঙ্গে চলিলাম। • স্রোত্বে বিপরীত দিকে যাওয়াই আমাদের উদ্দেশ্য ছিল । সাহেব আমাদিগকে বলিলেন, ঐ যে দুরে চর দেখিতে পাইতেছ, এটি মহাভারত আর তার এদিকে এই যে দেখিতেছ, এইটি রাদায়ণ । আমরা শিহরির উঠিলাম। দ্বাপরের পর, ত্রেত যুগ হইল, এ যে ঘোব কলি! সাহেবের প্রতি এক বাবে অশ্রদ্ধা জন্মিল। তখন সেই পূর্বের গানের মোহুড়াটি গাইয়া ফিরিয়া আসিলাম ;-— “কোথা আনিলে হে— ভুলালে হে—॥--” - সেই অবধি আর কাহারও সঙ্গে ভারত নীতে | যাই না । পরশুরামের ক্ষত্রিয়প্রাদুর্ভাবদমনসঙ্গা, আমরা পৌরাণিক আখ্যায়িক ব্যতীত স্ত:ে কিছুই জানি না । কিন্তু তাহর পর দুম দেখিয়া থাকি, ভরসা করিয়া যাইতে পারি ।