পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (কায়স্থ কাণ্ড, প্রথমাংশ, রাজন্য কাণ্ড).djvu/১০১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

कांशैरब्र कांब्रइ-ब्रांबदश्नं। ] झैँोछे)-कोर्र} ' brę শেষ দশায় ললিতাদিত্য পুনরায় উত্তরাপথে যুদ্ধযাত্রা করেন। এই অভিযানেই তাহার মৃত্যু হয়। তিনি ৩৬ বর্ষ ৭ মাস ১১ দিন রাজত্ব করেন। তৎপরে তাহার জ্যেষ্ট্রর কুবলয়াদিত্য রাজা হইলেন। তিনি পরমধাৰ্মিক ও অতিশয় প্রজারঞ্জক ছিলেন। র্তী স্ত্র বৈমাত্রেয় ভ্রাতা ৰজুদিত্য সিংহাসন অধিকার করিবার জন্ত विप्जांशें श्ब्रॉब्लिटनम । बी कूदनब्रांश्नीट्ज़्ब्रहे जब इब्र । बखांडिा ८खारéब्र अशैनडস্বীকার করেন। ইহার দিন পরেই জনৈক মন্ত্রী বিদ্রোহী হইয় তাহার প্রাণসংহারে উদ্যত হইলেন। কাশ্মীর s তাহ জানিতে পারিয়া দলবলসহ তাহার বধসাধনার্থ উদ্যোগী হইয়াছিলেন, কিন্তু শেষে "নবজীবন ক্ষণবিধ্বংসী, পাপের শাস্ত স্বয়ং ভগবান এই ভাবিয়া নিজে রাজ্য পরিত্যাগপূৰ্ব্বক প্রত্ৰজ্য গ্রহণ করেন। " তাহার বানপ্রস্থকালে কাশ্মীর মধ্যে হাহাকার উঠিয়াছিল, তাহার পিতৃমন্ত্ৰী মিত্রশৰ্ম্ম সন্ত্রীক জলে নিমগ্ন হইয়া শোকাবেগ নিবারণ করিয়াছিলেন। কুবলয়াপীড় ১ বৎসর ১৫ দিন মাত্র রাজত্ব করেন। তৎপরে বজাদিত্য রাজা হন। তিনি নিষ্ঠুর, দেবস্বাপহারী, অতিশয় অত্যাচারী ও স্ত্রীবিলাসী ছিলেন। যক্ষ্মারোগে তাহার মৃত্যু হয়। তিনি ৭ বৎসর মাত্র রাজত্ব করেন। তৎপরে তৎপুত্র পৃথিব্যাপীড় ৪ বৎসর ১ মাস ও তদনন্তর তাহার বৈমাত্রেয় ভ্রাতা ੰ ৭ বৎসর মাত্র রাজত্ব করেন। সংগ্রামাপীড়ের মৃত্যু হইলে বজুাপীড়ের কনিষ্ঠপুত্র জয়াপীড় রাজা হইলেন। এই জয়াপীড় বা জয়াদিত্য অশেষ গুণশালী, শাস্ত্রাস্তুরাগী, ব্রাহ্মণভক্ত ও একজন দিগ্বিজয়ী নৃপতি ছিলেন। তিনি নানাস্থান জয়” ཏི་། ། বহু সৈন্ত সমভিৰ্যাহারে প্রাগে উপস্থিত হইয়া ৯৯৯৯৯টা বেগবান অশ্ব ব্রাহ্মণদিগকে দান করেন। এই দানের পর তথায় একটা স্বনামে স্তম্ভ প্রতিষ্ঠা করেন, সেই স্তম্ভের উপর এইরূপ ক্ষেতি হইয়াছিল "যে আশর দ্যায় লক্ষ অশ্ব ব্রাহ্মণকে দান করিতে পরিবে, সে যেন আমার এই স্তম্ভ ভাঙ্গিয়া ফেলে।”* , , তৎপরে তিনি নানা দিগেশ জয়পুৰ্ব্বক গঙ্গাতীরে সৈন্যগণকে বিদায় দিয়া রাত্রিকালে ছদ্মবেশে ভিন্নরাজ্যে অগ্রসর হইলেন। জয়ন্ত নামক গৌড়রাজের অধিকার মধ্যে আসিয়া গুপ্তভাবে ক্রমে ক্রমে পেও বৰ্দ্ধন নগরে প্রবেশ করিলেন। পুরবার্সিবর্গের ঐশ্বৰ্য্য ও রাজধানীর সমৃদ্ধি দর্শনে অতিশয় আনন্দিত হইলেন। এখানে কাৰ্ত্তিকেয়দেবের এক অপূৰ্ব্ব ੱਕ ছিল। মৃত্য দেখিবার অভিপ্রায়ে জয়াদিত্য সেই মন্দিরে প্রবেশ করিলেন। নৃত্যগীতাদিশাস্ত্রেও তাহার অভিজ্ঞতা ছিল। তাহার তেজঃপুঞ্জ কলেবর দেখিয়া দর্শকমাত্রই চমৎকৃত হইলেন। দৈবনৰ্ত্তকী কমলা জয়াপীড়ের অনুপমরূপ দেখিয় তাহাকে রাজা বা রামপুত্র বলির মনে মনে স্থির করিয়া লইল এবং তাল দিয়া তাহার এক অন্তরঙ্গকে কাশ্মীররাজের নিকট পঠাইয়া দিল। জয়াপীড় সহান্তবদনে সেই তাম্বল গ্রহণ করিলেন ও নৃত্য শেষ হইলে কমলার সহিত তাহার আলয়ে আসিলেন । কমলার আতিথেয়তায় কাশ্মীররাজ বস্তুই আনন্দলাভ করিলেন। একদিন তিনি কথায় কথায় কমলার মুখে শুনিলেম যে, প্রতিদিন রাত্রি (४७) ब्राँअखब्रजि* s॥s*७-8११ ॥