পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (কায়স্থ কাণ্ড, প্রথমাংশ, রাজন্য কাণ্ড).djvu/৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

चांत्रेि कांग्लाइ-जबांछ । ] রাজস্থ্য-কাণ্ড \ల్సి অজাতশত্রু চম্পায় আসিয়া রাজধানী করেন। এ সময়ও এখানে বৌদ্ধপ্রভাৰ ছিল, কিন্তু অয়দিন পরেই গণধর স্বধৰ্শ্বস্বামী জামীর সহিত চম্পায় আসিয়া জৈনধৰ্ম্ম প্রচার করেন। ইহার কিছুকাল পরে अर्वीब्र শিষ্য বৎসগোত্রসস্তৃত শয্যম্ভব এখানে আসেন, তাহার নিকট জৈনধর্মের উপদেশ গুনিয়া বহলোক জৈনধৰ্ম্মে দীক্ষিত হইয়াছিলেন। জৈনশাস্ত্ৰমতে বীরমোক্ষের ৬০ বর্ষ পরে অর্থাৎ ৪৬৭ খৃষ্ট-পূৰ্ব্বাদে ১ম নদের অভিষেক । ইহারই চারি বর্ষ পরে অর্থাৎ ৪৬৩ খৃষ্টপূর্বাৰে গণধর জন্বস্বামী মোক্ষলাভ করেন। ১ম নদের পর আরও ৭ জন নন্দ রাজত্ব করেন, কল্পকপুত্র শকটালের ভ্রাতৃগণ র্তাহাদের মন্ত্রিত্ব করিয়াছিলেন। তৎপরে ৯ম নন্দ রাজা হইলে শকটাল তাহার মন্ত্রী হইলেন। এই শকটালের পুত্র জৈনাচাৰ্য্য স্থলভদ্র। স্থলভদ্রের কিছু পূৰ্ব্বে জৈনদিগের শেষ শতকেবলী ভদ্রবাহর अङ्कानग्न । गमञ्च ভারতেই তাহার শিয়ুপ্রশিস্য ছড়াইয়া পড়িয়াছিলেন। তাহার কাশুপগোত্রীয় চারিজন প্রধান শিষ্য ছিল, তন্মধ্যে প্রধান শিষ্যের নাম গোদাস। এই গোদাস হইতে চারিটি শাখার স্বষ্টি, এই চারিশাখার নাম তাম্রলিপ্তিকা, কোটবর্ষীয়, পুও বৰ্দ্ধনীয় ও দাসী কৰ্কটীয়া।" এই অতি প্রাচীনকালে চারিট শাখার নাম হইতেই প্রতিপন্ন হইতেছে যে, দক্ষিণ, উত্তর, পূৰ্ব্ব ও পশ্চিম সমস্ত বঙ্গেই জৈনদিগের শাখাপ্রশাখা বিস্তৃত হইয়াছিল। - মৌর্য্যসম্রাট্রগণের ইতিহাস পাঠ করিয়াও আমরা জানিতে পারিয়াছি, তাহারা সকলেই এক সময়ে জৈনধৰ্ম্মে অনুরক্ত ছিলেন। মৌর্য্যাপি চন্দ্রগুপ্ত শ্রতকেবলী ভদ্রবাহর নিকট জৈনধৰ্ম্মে দীক্ষিত হন। অশোক প্রথমে আনুষ্ঠানিক বৈদিকধর্ণের কতকটা পক্ষপাতী হটলেও মধ্যে জৈনধৰ্ম্মে দীক্ষিত হইয়াছিলেন, শেষে তিনি একজন গোড়া বৌদ্ধ হইলেও তাছার পৌত্র দশরথ জৈন আজীবকগণের প্রতি অনুরক্ত ছিলেন, দশরথের শিলালিপি হইতেই তার পরিচয় পাইতেছি। এরূপস্থলে অতি প্রাচীনকাল হইতেই বাঢ়বঙ্গে বিশেষভাবে জৈনপ্রভাব ও তৎসঙ্গে বৌদ্ধসংস্রব ছিল, তাহাতে সন্দেহ নাই। চীন-পরিত্রাজকগণের বর্ণনা হইতেও আমরা বেশ বুঝিতে পারি যে, সম্রাটু অশোক এ অঞ্চলে বৌদ্ধধৰ্ম্ম-প্রচারের বিশেষ আয়োজন করিয়াছিলেন । তিনি উত্তর, পশ্চিম ও পূৰ্ব্ববঙ্গে." ধৰ্ম্মরাজিক প্রতিষ্ঠা করিয়াছিলেন, সম্ভবতঃ পুষ্যমিত্রের যত্নে তাহার অধিকাংশই বিলুপ্ত হয়। কেবল ভীমপ্রবাহ পদ্মা ও বলেশ্বরের তরঙ্গভীতি পূৰ্ব্ববঙ্গের ধৰ্ম্মরাজিক রক্ষা করিতে সমর্থ হইয়াছিল, মুসলমান আমলে সেই ধৰ্ম্মরাজিক বিলুপ্ত হইলেও ঢাকা জেলুস্থ স্বপ্রসিদ্ধ ধামরাই গ্রাম আজও সেই ধৰ্ম্মরাঙ্গিকার স্মৃতি বজায় রাখিয়াছে। g বাহ হউক, উত্তর ও পশ্চিমবঙ্গে গুপ্তাধিকার বিস্তারের সহিত কতকটা বৈদিক ও (১) হেমচঞ্জের পরিশিষ্টপৰ্ব্ব e;ঙ১ । (२) *जन कब्रएब जहेब ।। " (७) वब्रांदब्र ●शश्च ८१iनिङ वशंब्रांज मलबtषब्र चक्रं★iननलिनि अडेण ।