পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (কায়স্থ কাণ্ড, ষষ্ঠাংশ, দক্ষিণরাঢ়ীয় কায়স্থ কাণ্ড, প্রথম খণ্ড).djvu/৭৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अ&ांल्लेौन कूल&इ ] দক্ষিণরাষ্ট্ৰীয় কণয়স্থকাণ্ড । ぐの> बहन ! **वडी गकियबीब ७ बनज चौकश्रन डॉशब्रहे चश्वडौं रहेबांग्इन। cनशैवत्र রাঢ়ীয় ব্রাহ্মণকুলাচাৰ্য্য ছিলেন। তাহার সময়ে সমগ্র গৌড়দেশে কায়স্থগণের অসাধারণ প্রভাব । তাহাদিগকে রাষ্ট্ৰীয় ব্রাহ্মণসমাজের অযুগত ও ভক্ত করিবার উদেখে তিনি ঐৰূপ স্বপূর্ণ কুলকারিকার স্বাক্ট করিয়াছিলেন। পরবর্তী কুলজগণ কতকটা গুহার অনুকরণ করিলেও সৰ্ব্বাংশে অনুকরণ করেন নাই, তাই পঞ্চ বিপ্রের সহিত পঞ্চ কায়ুস্থের শিষ্যত্ব বজায় রাখতে গিয়া উদ্ধৃত কুলকারিকায় সকলে এক মত নহেন। দেবীবর ভট্টশরায়ণাদি যে পঞ্চজন ব্রাহ্মণকে আদিশূরের সভায় আগমন করেন লিখিয়াছেন, প্রকৃত প্রস্তাবে সেই পাঁচ জন কান্তকুজ হইতে আদিশূরের সভায় শুভাগমন করেন নাই । হরিমিশ্র, এড় মিশ্র প্রভৃতি প্রাচীন রাঢ়ীয় বিপ্র-কুলকারিক অনুসারে ভট্টনারায়ণদি পঞ্চবিপ্রের পিতারাই এ দেশে আসিয়াছিলেন । তাহাদের নাম-শাণ্ডিলাগোত্রে ক্ষিতীশ, কাশুপগোত্রে বীতরাগ, বাৎস্তগোত্রে কুধানিধি, সাবর্ণগোত্রে সৌভরি ও ভরদ্বাজগোত্রে মেধাতিথি। দেবীবর ও তদনুবর্তী পরবর্তী কলাচাৰ্য্যগণ রাঢ়ীয় ব্রাহ্মণের সহিত পঞ্চকায়স্থ বীজপুরুষগণকে জড়াইবার জন্য যেরূপে পরিচয় দিয়াছেন তাহা প্রাচীন কুলগ্রন্থ বা ইতিহাস-সম্মত নহে । উক্ত পঞ্চব্রাহ্মণ ও পঞ্চকয়ন্থের পরবর্তী বংশধরগণকে লইয়া গোঁড়াধিপ বল্লালসেনের সভায় যে কুলবিধি প্রচলিত হইয়াছিল তাহার বিবরণ পাঠ করিলে সকলে জানিতে পরিবেন, ভট্টনারায়ণাদি পঞ্চৰিপ্র ও দশরথ বসু আদি পঞ্চকায়স্থ কেহই সমসাময়িক নহেন। প্রাচীন কুলপঞ্জিক। আলোচনা করিলে দেখা যায়, ভট্টনার যুণের অধস্তন ১০ম ও ১১শ পুরুষ এবং মকরন ঘোষের অধস্তন ৫ম পুরুষ, কাশ্যপ দক্ষের অধস্তন ৮ম পুরুষ, দশরথ বস্থর অধস্তন ৫ম পুরুষ, সাবর্ণ বেদগর্ভের অধস্তন ১২শ পুরুষ ও কালিদাস মিত্রের অধস্তন ৮ম পুরুষ, বাৎস্ত ও ছান্দড়ের ১১শ পুরুষ এবং যৌদগ্য পুরুষোত্তম দত্তের ৬ষ্ঠ পুরুষ, ভরদাজ ইহর্যের অধস্তন ১২শ পুরুষ ও দশরথ গুহের অধস্তন ৫ম পুরুষ রাজা বল্লালসেনের কুলবিধির সময়ে বিদ্যমান ছিলেন । এরূপ স্থলে পঞ্চব্রাহ্মণ বীণ ও পঞ্চকায়স্ক বীজী যে এক সময়ের লোক নহেন এবং পরস্পরে পূৰ্ব্বে কোন সম্বন্ধ ছিল না তাহাই প্রতিপন্ন হইতেছে। ইরিমিশ্রের প্রাচীন কারিকায় লিখিত আছে, “পঞ্চ মুশ্ৰুষকীঃ পূৰ্ব্বং কায়স্থ। ইহ চাগতাঃ” অর্থাৎ ক্ষিতীশাদি পঞ্চবিপ্রের সহিত ৫ জন কায়স্থ-শিষ্য আসিয়াছিলেন। এই পঞ্চকারস্থের নাম উক্ত প্রাচীন গ্রন্থে নাই, উগিদের পরিচয় দিবার কোন প্রয়োজনও ছিল না। সম্ভবতঃ পরবর্তী কুলাচাৰ্য্যগণ নিজ ইচ্ছামত নাম বসাইয়া লইয়াছেন। মহারাজ আদিশূরের সভায় ৭ পঞ্চকায়স্থ উপস্থিত ছিলেন, সে কথা বরেন্দ্র ও উত্তররাঢ়ীয় কায়স্ত-কুলগ্রন্থেও "5" নায়। কিন্তু তাছাদের কোনও পরিচয় পাওয়া যায় না।