পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (বৈশ্য কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/১৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


X 5.8 বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস [ বৈশু-কfও । হাস লিখিবার কোন উপাদান পাওয়া যায় না। শিলালিপি প্রভৃতি হইতেই যে ጰ টুকু বুঝিতে পারা যায়, তাহাতেই স্পষ্ট জানিতে পারি যে, মৌর্য্যবংশ ধংসের কারণ দোর্দণ্ড প্রভাপ সৈন্তব্যুহের সহায়তায় মৌর্য্যবংশীয় চন্দ্রগুপ্ত শিশোদবংশ (রাণবিংশ ) দশটি দ্বারা অলঙ্কৃত বলিয়া এই শ্লোকে বর্ণিত হইয়াছে। সেই দশটি গুণের মধ্যে ইহাদিগের গোত্র বৈজবাপ বেদ যজু এবং উপবীতে ‘তিন গ্রন্থি এই তিনটি গুণেরও উল্লেখ আছে। গোত্রে যত প্রবর থাকে,উপবীতস্থত্রে তত গ্রন্থি দেওয়া হয় । তাই তিন গ্রন্থি হইতে ইহাদিগের তিন প্রবরের পরিচয় পাওয়া যাইতেছে। গোত্রগ্রবরনিবন্ধকদম্ব নামক গ্রন্থে "আত্ৰেয় গাবিষ্ঠির, এবং পৌৰ্ব্বতিখ’ বলিয়। এই প্রবরত্রয়ের উল্লেখ আছে । স্বত্রকার কাত্যায়ন ও লৌগাক্ষি রাণবংশের এই গোত্র এবং প্রবরের সমর্থন করিয়াছেন। নাগরব্রাহ্মণদিগেরও বৈজৰাপগোত্রপরিচয় ত্রয়োদশ শতাব্দীর লিপি হইতে ও জানা যায় } কোডিনার হইতে নানাকের যে প্রশস্তি পাওয়া গিয়াছে, তাহাতে লিখিত আছে— “ত্রেতাধূমপবিত্ৰিতোম্বরচরং স্বাধ্যায়ঘোষোত্তরং স্থানং তীর্থমনোহরং নগরমিভ্যাস্তে কিলীনশ্বরং । জাৰ্য্যোপাসনায়া বৃষপ্রিয়তয়া যচ্চ দ্বিজেন্দ্রশ্রিয়। ব্যক্তং বকি ফণীন্দ্রভূষণভূতে দেবস্ত সংস্থাপনং ॥ গুঞ্জনাম গ্রামস্তদস্তিকে বৈজবপগোত্রাণাং শ্ৰীকরণব্যাপারাৎ প্রণিতচেলুক্যৰূপদত্তঃ ” প্রথম চারি চরণে বলা হইতেছে যে নগরনামে একটি অনশ্বর তীর্থস্থান ছিল। এখানে বহু শ্ৰীসম্পন্ন দ্বিজেন্দ্র বাস করিতেন। শেষের চরণদ্বয়ে বলা হইয়াছে যে, এই নগরতীর্থের নিকটবৰ্ত্তী গুঞ্জনোমক গ্রামে বৈজবীপবংশীয় লোকদিগের বাস ছিল । ইহাদিগের শ্ৰীকরণব্যাপারে সন্তুষ্ট হইয়া চোলুক্যরাজ এই গ্রাম ইহাদিগকে প্রদান করিয়াছিলেন। এই শ্লোকে নগরবাসী ( নাগর ) ব্রাহ্মণদ্বিগকে বৈজবীপবংশীয় বলা হয় নাই সত্য, কিন্তু গুগ্লাবাণীদিগকে বলা হইয়াছে। এখন নগরই যে বড়নগর, তাহ সহজেই বুঝতে পারা যায়। এখনও বড়নগরের চারি মাইল দক্ষিণপশ্চিমে গুঞ্জাগ্রাম বিদ্যমান আছে। এত কাছাকাছি থাকতে গুঞ্জাবাসী বৈজবাপগোষ্ট্ৰীয় ব্রাহ্মণেরা ও যে ‘নাগর’ ব্রাহ্মণ বলিয়া পরিচিত ছিলেন, ইহ সহজেই বুঝিতে পারা যায়। কিন্তু প্রশস্তি আলোচনা করিয়া জানা যায় যে, গুঞ্জ আনন্দপুরের (অর্থাৎ বড়নগরের ) অংশবিশেষ বলিয়া বিবেচিত হইত। ইহা হইতে গুঞ্জ ব্রাহ্মণেরাও নাগরব্রাহ্মণ ছিলেন, ইহা সুন্দরব্রুপেই প্রতিপন্ন হয়। বর্তমান নগরবংশীয় ব্রাহ্মণদিগের মধ্যেও বৈজবfপগোত্রের লোক দেখিতে পাওয়া যায়। পুৰ্ব্বেক্ত বিচার হইতে দেখা যাইতেছে যে মেবারের রাণবংশ ব্রাহ্মণ। কিন্তু যে সকল প্রমাণের উপর নির্ভর করিয়া এইরূপ বিচার করা হইতেছে, তাহা ত্রয়োদশ শতাব্দীর শেষ