পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (বৈশ্য কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/২৮১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১ম অংশ । ] সৌলুক-বংশ ఫిగిసి মাতৃধৰ্ম্ম গ্রহণ করিয়া নাগপুজক হইয় পড়েন ও মাতামহের সন্মানরক্ষার জন্য অনেকে “নাগবংশী” বলিয়া ও পরিচয় দিতে থাকেন। অদ্যপি বেহারের অগরবাল সমাজ “জাত কা নানিহাল নাগবংশী হৈ” অর্থাৎ ‘আমাদের মাতার ঘর নাগবংশী বলিয়াই পরিচয় দিতেছেন । এই কারণে কি অগরবাল কি বৈশ রাজপুত উভয় সমাজেই নাগপূজা প্রচলিত ও নাগবধ একবারে নিষিদ্ধ ; ই হার প্রাণাস্তেও কেহ সপদেহে হস্তক্ষেপ করেন না । খৃষ্টীয় ৪র্থ শতাব্দীতে আর্যাবৰ্ত্তে গুপ্তবংশের অভু্যদয়ে নাগপ্রভাববিলোপের সহিত অগ্রসেনের বংশধরগণ উত্তরাপথে অধিকারচ্যুত হইয়া কেহ কেহ এখানে বৈশুদ্ধৃত্তি আশ্রয় করিয়া রহিলেন, আবার কেহ কেহ দাক্ষিণাত্যে পূৰ্ব্বপুরুষগণের অধিকারে আসিয়া স্ব স্ব অদৃষ্ট পরীক্ষা করিতে থাকেন। দক্ষিণাত্যে বৈশুসম্রাজ্যস্থাপনে তঁহিীদের বংশধরগণ যে প্রধান সহায় হইয়াছিলেন, তাহাতে সন্দেহ নাই। তাহারা পুৰ্ব্বপুরুষ চরিত বৈশুৰুক্তি ছাড়িয়া ক্ষত্রবৃত্তির অনুসরণ করিলেও সকলেই কিছু ক্ষত্রিয়োচিত রাজ্যসম্পদ লাভ করিতে পারেন নাই । যাহার অধিপতি, মহাসামন্ত বা সামস্তুরূপে ভূস্বামী হইয়াছিলেন, তাহাদের বংশধরগণ সাধারণ বৈশুসমাজ হইতে আভিজাত্যে ও বংশমর্যাদায় স্বাতন্ত্র্যরক্ষার জন্য বৈশুরাজপুত্র” নামে একটা স্বতন্ত্র শ্রেণির স্মৃষ্টি করিয়াছিলেন । এই শাখায় স্ব প্রসিদ্ধ চালুক্য বা চোলু *্যবংশের উদ্ভব, তাহ পুৰ্ব্ব অধ্যায়ে সবিস্তার বিবৃত হইয়াছে। দক্ষিণাত্যের শ্রেষ্ঠ রাজবংশের সহিত সম্বন্ধস্থত্রে এবং দক্ষিণাত্যের বৈদিক বি প্রগণের যত্নে উক্ত শ্রেষ্ঠ বৈশুবংশ ক্ষত্রিয়পদে অধিষ্ঠিত হইলেও সকল বৈশুরাজপুর ক্ষত্ৰিয়ত্ব লাভ করিতে পারেন নাই । যাহার রাজপুতনা প্রভৃতি উত্তরাংশে আসিয়া পূর্বেই বাস করেন, তাহারা বৈশুরাজপুত্রের অপভ্রংশে বৈশ রাজপুত” বলিয়া অভিহিত হইলেন । তৎপরে খুষ্টীয় ১৩শ শতব্দে গুজরাটে চেলুক্যবংশ অধিকারচু্যত হইলে তাহার রাজপুতনা ও উত্তরপশ্চিম প্রদেশের নানান্থানে বিস্তৃত হইয়া পড়িলেন, ঐ সকল স্থানে তাহদের বংশধরগণ ‘সোলংখি’ ও ‘বঘেল রাজপুত্তনামে সুপরিচিত, তাহার ক্ষত্রিয়পদে অধিষ্ঠিত চেলুক্যরাজবংশধর বলিয়া এক্ষণে ‘ক্ষত্ৰিয়” বলিয়াই পরিচয় দিয়া থাকেন । কিন্তু বৈশ রাজপুতগণ ক্ষত্ৰিয়ত্বের দাবী রাখেন না। আশ্চর্যের বিষয় মাড়বার রাজ্যে অস্থাপি সোলংখি ও বঘেলদিগের মধ্যে ‘বৈশ রাজপুতশাখা” বিদ্যমান ॥১ গাজিপুর অঞ্চলের বৈশ রাজপুতগণ আজও বঘেলরাজবংশোদ্ভব বলিয়া পরিচয় দিতেছেন ॥২ বঘেল বা ব্যাখ্রপল্লীবংশ গুজরাটের প্রসিদ্ধ চোলুক্যবংশেরই একটী বিশিষ্ট শাখা, তাহ৷ সকলেই অবগত আছেন ॥৩ সুতরাং সোলংখি বা বঘেলরাজপুতগণ যে মাদি বৈশ রাজপুস্তবংশ ও ( > ) Census Report of Marwar, for 1901. ( & ) W. Crookes Tribes and Castes of the N. W. P. and Oudh, Vol. 1. p. 122 ( 9 ). Tod's Rajasthan, Vol. 1, p. 105ff. wo