পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (বৈশ্য কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/২৮৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२भ अ१५ । } সৌন্দুক-বংশ २४*<> “রাজা নাছি রাজপটে শূন্ত সিংহাসন । যেই পারে সেই মারে লয় প্রাণধন ॥” এ সময় শূরসেন ও পঞ্চালের অধিপত্য লইয়। হর্ষবৰ্দ্ধনের অনুরক্ত সামন্ত-রাজগণের মধ্যে দারুণ সমরানল প্রজলিত হইয়াছিল, সেই সমর প্রসঙ্গের আভাসও কুলপরিচয়ে রহিয়াছে। বলিতে কি ৬৪৯ খৃষ্টাব্দ হইতে প্রায় অৰ্দ্ধশতাব্দ কাল উত্তর-ভারতে রাষ্ট্রবিপ্লব চলিয়াছিল, এই সময় গৌড়মগধের গুপ্তরাজবংশ অনেকটা প্রবল হইয়াছিলেন, কিন্তু র্তাহীদের আধিপত্য অধিক কাল স্থায়ী হইতে পারে নাই । চীন-ইতিহাস হইতে জান মায় যে, ৭•৩ খৃষ্টাব্দ পর্য্যন্ত নেপাল ও উত্তর-ভারতের কতকাংশ তিব্বতের শাসনাধীন ছিল । শেষোক্ত বর্ষে নেপালের লিচ্ছবিবংশ ও উত্তর ভারতীয় রাজন্তবর্গ বিদ্রোহী হইয়া স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। খৃষ্টীয় ৮ম শতাব্দীর প্রারম্ভে মথুরা ও পঞ্চাল হরিচন্দ্ৰ-যশোবর্ষদেবের শাসনাধীন হইয়া পড়িয়াছিল। যশোবৰ্ম্মের অভু্যদয়ে ব্রাহ্মণ প্রভাব ও বৈদিক ধৰ্ম্মামুরাগ উত্তর-ভারতে বিশেষ ভাবে প্রসারিত হইতেছিল। বাকৃপতির গৌড়ৰধকাব্যে বর্ণিত হইয়াছে যে, কমলায়ুধ-যশোবন্ধদেব গৌড় (মগধ) জয় করিয়া গৌড়পতিকে বধ করিয়াছিলেন এবং সেই ঘটনার স্মরণার্থই ‘গৌড়বধ’ নামক প্রসিদ্ধ প্রাকৃত কাব্য রচিত হইয়াছিল। যশোবর্ষদেবের হস্তে গৌড় বা মগধপতি নিহত হইলেও গৌড়-মগধে যশোবর্ষার অধিকার স্থায়ী হইতে পারে নাই । গৌড়পতিকে বিনাশ করি য়া প্রত্যাগমনের সঙ্গে সঙ্গে প্রজ{সাধারণ পালবংশীয় গোপালকে সিংহাসনে প্রতিষ্ঠিত করিয়াছিল। পালবংশের প্রতিষ্ঠাতা ১ম গোপালের অভু্যদয়ে ও প্রজাসাধারণের যত্নে গৌড়মগধে শ্রমণভক্তি ও বৌদ্ধধৰ্ম্মামুরক্তি পুনরুজ্জীবিত হইতেছিল। এই সময়েই উত্তররাঢ়ে আদিশূর’ উপাধিধারী মহারাজ জয়ন্তশূরের অভু্যদয় । অল্পদিন মধ্যেই মহারাজ আদিশূর গৌড় বা বরেজ অধিকার করিয়া পৌণ্ড,বদ্ধনে রাজধানী প্রতিষ্ঠা করিলেন। ভাস্থারই উৎসাহে ও ঐকাস্তিক যত্নে গৌড়ভূমে বৈদিক ধৰ্ম্মের পুনরভূদয় হইয়াছিল । কান্তকুজই তৎকালে শূরসেন ও পঞ্চাল প্রদেশের রাজধানী এবং বৈদিক ব্রাহ্মণগণের কেন্দ্রস্থলী, তাই বৈদিক ধৰ্ম্মপ্রচারার্থ কান্তকুজ হইতেই তাছাকে সাগ্নিক ব্রাহ্মণ আনাইতে হইয়াছিল। রাজতরঙ্গিণী ও হরিমিশ্রের রাঢ়ীয়-কুলকারিক পাঠে আমরা জানিতে পারি যে তাছার জামাত কাশ্মীরপতি জয়াদিত্যের সাহায্যে গোঁড়াধিপ। আদিশূর পঞ্চগৌড়ের অধিপতিগণকে যুদ্ধে পরাজয় করিয়াছিলেন। ৬৫৪ শকে অর্থাৎ ৭৩২ খৃষ্টাব্দে আদিশূর প্রথমে কান্তকুজ হইতে বৈদিক ব্রাহ্মণ আনয়ন করেন। এ সময়ে কান্তকুজের সিংহাসনে কমলায়ুদ্ধ-যশোবর্মদেব ও কাশ্মীরের সিংহাসনে দিগ্বিজয়ী ললিতাদিত্য অধিষ্ঠিত ছিলেন । সম্ভবতঃ গৌড়ে সাগ্নিক ব্রাহ্মণাগমন ও তাছাদের যত্নে ব্রাহ্মণপ্রভাব বিস্তারোপলক্ষে সমগ্র গৌড়মণ্ডলে এক তুমুল আন্দোলন উপস্থিত হইয়াছিল, kBBBBBB BBBB BBBBBBBS BDDBB BBBB D BBBDD BDDD DDDDB

  • "cवन १i१iन*|tक छू cभौtज़ १िथाः गभाशङ|ः ।” (ब्रांौद्र कूणकांड्रिका)