পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (বৈশ্য কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/৩২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


9 bo বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস १२थु-कt७ ।। পাচুরিয়া কুঠিবাড়ীর সাহাবংশ–এই বংশীয়ের বলিয়া থাকেন যে, মোগলবাদশাহের রাজত্বকালে তাঙ্গদের পূর্বপুরুষ পশ্চিমাঞ্চল হইতে বাণিজ্যোপলক্ষে ঢাকাজেলার অস্ত র্গত থলসি গ্রামে জাসিয়া বাস করেন। কিছুকাল পরে, তাহার বংশধর মহাদেব সাহ ফরিদপুর জেলার দেউলি গ্রামে উঠিয়া আসেন। ১২৭৩ সালে গোয়ালনে রেলওয়ে লাইন বসাইবার সময় তাহদের বাড়ী রেলরাস্তায় পড়িয়া যায়, তাহাতে গিরিধর ও ঈশ্বরচন্দ্র দুই ভ্রাতা প্রথমে সছলাইল গ্রামে, তৎপর পদ্মার তরঙ্গে গ্রামভঙ্গ হষ্টলে তাহারা শীতলপুরে ( ডাকনাম গড়ের দ্বারে) এবং ১২৯৪ সালে এই গ্রামও নদীগর্ডশায়ী হইলে তাংরি বর্তমান কুঠিপচুরিয়া গ্রামে আসিয়া বাস করেন। এই বংশ ১২৩৭ সনে কলিকাতায় আসিয়া স্থতা ও লবণের চালানি কাজ করিয়া যথেষ্ট লাভবান হন। পুরাতন গোয়tলদে ইহাদের সর্বপ্রথম ও সৰ্ব্ব প্রধান লৰণের কারৰার ছিল। এই বংশে গিরিধর সাহ! সমাজসংস্কার ও নfন সৎকাৰ্য্য করিয়া প্রসিদ্ধ হইয়াছেন। এই বংশের চুড়াকরণ ও কর্ণবেধ সংস্কারে একটু বিশেষত্ব আছে। চূড়াকরণের পূর্বদিবসে অধিবাস, রাত্রিকালে খামাপূজা, তৎপরে চূড়াকরণের দিবস গ্রাতে ঘোড়শোপচারে স্বৰ্য্যপুজা, পূৰ্ব্বাহে ষষ্ঠ পূজা, নান্দীমুখশ্ৰাদ্ধ, চুড়াকরণ ও কর্ণবৈধ অনুষ্ঠিত হয়। অপর কোন পুঞ্জাপাৰ্ব্বণে বলি প্রথা না থাকিলেও এই সময় শুমাপূজা উপলক্ষে তিনট ও ষষ্ঠীপূজায় একটা ছাগ বলি দেওয়া হইয় থাকে। স্বৰ্য্যপূজায়ও একট খেতবর্ণ ছাগের কেবল দক্ষিণ কর্ণের কিয়দংশ কাটিয়া ছাড়িয়া দেওয়া হয়। কোণীবাড়ীর সাহাবংশ—এই বংশে গোবিন্দচন্দ্র সাহ। একজন প্রসিদ্ধ ব্যক্তি ছিলেন । তিনি একজন সমাজ-সংস্কারক, পরম বৈষ্ণব ও অতিথিসৎকারপ্রিয় ছিলেন । সাগরকান্দীর পোদfরবংশ—এই বংশ অতি গ্রাচীন । এই বংশীয় বদনচন্দ্র পোদারের নাম উল্লেখযোগ্য । পূৰ্ব্বোক্স বীরেন্দ্র সাহ সমাজ ব্যতীত পালন, ঢাকা, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, কোচবিহার, রঙ্গপুর, ত্রিপুর, নোয়াখালী, বরিশাল প্রভৃতি জেলায়ও বীরেন্দ্র শ্রেণির সৌসুকগণের বসবাস আছে। এই সকল স্থানের বরেন্দ্রগণের মধ্যে পূৰ্ব্বোক্ত বারেঙ্গগণের মত একই প্রকার আচার ব্যবহার, সামাজিক রীতিনীতি ও ধৰ্ম্মানুষ্ঠানাদি এবং গোত্র, উপাধি প্রভৃতি প্রচলিত। স্থানভেদে, আভিজাত্যভেদে ও অবস্থাভেদে কোন কোন স্থানে একের সহিত অপরের বৈবাহিক সম্বন্ধ প্রচলিত নাই। এমন কি এক সমাজের লোক অপর সমাজ অপেক্ষ স্ব স্ব শ্ৰেষ্ঠত ঘোষণা করিতেও কুষ্ঠিত নহেন। এই সমাজস্থ সৌণুকগণ এক্ষণে অনেকেই ‘খদবণিকৃ’ বলিয়৷ পরিচয় দিতেছেন। অতঃপর এক এক জেলার সংক্ষিপ্ত পরিচয় দিতেছি—