পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (ব্রাহ্মণ কাণ্ড, দ্বিতীয়াংশ).djvu/১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> 8Հ বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস • বাদসাহ উদয়নারায়ণের নিকট হইতে তাহিরপুর ব্যতীত অন্যান্ত পয়গণ কাড়িয়া লয়েন। এই উদয়নারায়ণই বারেস্ত্র কুলীন ব্রাহ্মণগণের মধ্যে নিরাবিল পক্টর সৃষ্টি করিয়া ছিলেন। র্তাহার পৌত্র নন্দনবাসী সিদ্ধশ্রোত্রিয় রাজা কংসনারায়ণ কুলীনগণের আশ্রয়দা ও বলিয়। বারেন্দ্র-সমাজে বিশেষ সন্মানিত হইয়াছিলেন। ংলঞ্জ উদয়ণাচার্য্যের নিয়ম অনুসারে কুলীন-কন্যার শ্রোত্রিয়ের সঙ্গে বিবাহু হইতে পারিত না এবং কুলানদিগের বিবাহে কুশবারি সংযুক্ত প্রতিজ্ঞা করিতে হইত, কেবল বাগদানে কার্য হইত না। এই নিয়মের জন্য বহু কুলীনের কুল নষ্ট হইল এবং তাহার কাপ - হইতে লাগিলেন। রাজা কংসনারায়ণ দেখিলেন ষে এরূপ প্রথা চলিলে কুলানের বংশ একেবারে লুপ্ত হইবে। তিনি বহু অর্থ ব্যয় করিয়া কাপ ও কুলীনদিগকে একত্র করিয়া দিলেন। তিনি কাপ ও কুলীনের মধ্যে কন্য। আদান প্রদান ও কুলীনে শ্রোত্রিয়ের কন্যা গ্রহণ বিধিবদ্ধ করিলেন। কংসনারায়ণ স্বীয় বংশের কন্ত। কাপে প্রদান করিলেন । নাটোরের মহারাজ রামজীবনের পুত্র কালিকাপ্রসাদ কংসনারায়ণের প্রপৌত্র রাজ লক্ষ্মীনারায়ণের কন্যাকে বিবাহ করেন। . রাজা কংসনারায়ণের পুত্র নরেন্দ্রনারায়ণ রায় সম্পত্তির দশ আনার উত্তরাধিকারী হয়েন। নরেন্দ্রনারায়ণের কন্যা উমাদেবীর সহিত আনন্দীরাম রায়ের বিবাহ হয়। নরেঞ্জের কোন তাহিরপুর বংশের পুত্রসস্তান না থাকায় আনন্দীরাম ঐ দশ আনা সম্পত্তির অধিকারী প্রতিষ্ঠাত বিনোদরাম হইলেন। তিনি নিঃসন্তান থাকায় তাহার ভ্রাত্তা ৰিনোদরামরায় তাহার মৃত্যুর পর সম্পত্তি প্রাপ্ত হয়েন। বিনোদরাম বুদ্ধিমান ও বিচক্ষণ ব্যক্তি ছিলেন। বর্তমান তাহিরপুর-রাজবংশের তিনিই প্রতিষ্ঠাতা। বিনোদরামের পুত্ৰ বীরেশ্বর রায়। বীরেশ্বরের দুই পুত্র চন্দ্রশেখরেশ্বর ও মহেশ্বর। বীরেশ্বর অত্যন্ত অমিতব্যয়ী ছিলেন বলিয়। অনেক টাক। ধার রাখিয়া পরলোক গমন করেন। জ্যেষ্ঠপুত্র চন্দ্রশেখর বিশেষ চেষ্টা করিয়া অতি অল্পকাল মধ্যে পিতৃঋণ পরিশোধ করেন। ইনি নৈষ্টিক সদাচারী ব্রাহ্মণ ছিলেন, ১৮৫৪ খৃষ্টাব্দে ইনি রামপুর-বোম্বালালিয়াতে “সদাব্রত” স্থাপন করেন। এই সদাব্রত হইতে বহুলোকের দৈনিক আহার, মাসিকবৃত্ত্বি ও পৌষ সংক্রান্তির অনেক টাকা দান করা হয় । চন্দ্রশেখর প্রজারঞ্জক ছিলেন। চন্দ্রশেখর ও মহেশ্বরের মধ্যে সৌভ্রাত্র ছিল। তাহাদের রাজা উপাধি না থাকিলেও প্রজার ভাহাদিগকে রাজা বলিয়া ডাকিত। aw চঞ্জশেখরের পুত্ত্বের নাম শশীশেখরেশ্বর। মহেশ্বরের চারিপুত্র-জগদীশেখর, তারকেশ্বর, বিশ্বেখর ও কাশীশ্বর । তারকেশ্বর ও বিশ্বেশ্বল্প এখনও জীবিত আছেন। চক্ৰশেখর কনিষ্ঠ मtइव८३ब्र शृज*१. ভ্রাতার সন্তানসংখ্যা অধিক দেখিয়া সম্পত্তির অৰ্দ্ধেকাংশ ব্যতীত আরও পাচ হাজার টাকার সম্পত্তি মহেশ্বরের পুত্রদিগকে প্রদান করেন। কিন্তু র্তাহারা ঋণগ্রস্ত হই। বহু সম্পত্তি নষ্ট করিয়া ফেলেন। - هر উদয়ন'রক্ষণ কংসনারায়ণ