পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (ব্রাহ্মণ কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/২৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষষ্ঠ অধ্যায় দ্বাদশ পরিচ্ছেদ (মেলী কুলীন-সমাজের সমালোচনা । ) ঘথন'কুলাচাৰ্য্যগণ দেপিলেন, আর কুলীনগমাজ থাকিতেছে না, বিবিধ দোষে কুলীন-সমাজ ক্রমেই ভারাক্রান্ত হইয়া পড়িতেছে, প্রকৃত কুলবিধি অনুসারে বিচার করিতে গেলে আর কাহার ৪ কুল থাকে না, তখন কৌশলী কুলাচার্যগণ এই শেষ নিয়ম করিলেন—

  • আর গুণ ধীর গুণ তার সঙ্গে যায়। কুল গুণ মহাগুণ পুরুষ ক্রমে পায় ॥ স্বজনাসম্বন্ধ হয় পিণ্ড ঠেকে মাথে। ধৰ্ম্মেব বিচার নাহি কুল রয় যাতে ॥ রগু পিগু বলাৎকার ৰিপৰ্যায় পাই । ঘটকেতে বলে তার দোষ নাহি গাই ॥ দোষ পায় যদি তায় প্রায়শ্চিন্তু ধরে। কুলবেদে প্রায়শ্চিন্তু যদি কুল করে ॥ 蠟 অসং করয়ে সৎ কুলের এই কৰ্ম্ম । লোঙ্গারে করয়ে সোণ পরশের ধৰ্ম্ম ॥” (কুলসার) কুলাচাৰ্য্যগণ কুলীনগণের কুসরক্ষার জন্ত কি উদ্বার ভাব দেখাইলেন। স্বজনাদোষ, পিণ্ডদোষ প্রভৃতি সকল কাৰ্য্য করিলে হিন্দুশাস্বাতসারে দাতিচু্যতি বা সমাজচ্যুতি ঘটে, সুিসমাজে মুখ দেখাইবার পথ থাকে না ! কি আশ্চর্যের বিষয় ! হিন্দুশাস্ত্র লঙ্ঘন করিয়৷ অভ্যস্ত অন্যায় কাৰ্য্য করিলেও মেলী কুলীন শ্রেষ্ঠ সন্মানলাভে বঞ্চিত হইলেন না। রাঢ়ীয় হিন্দুসমাজ অবনতশিরে ঐ সকল ব্রাহ্মণের প্রাধান্ত স্বীকারে বাধ্য। মেলী কুলীনের বিরুদ্ধে কাচারও কোন কথা বলিবাব সাপ্য ছিল না । মেলী কুলীনগণের বিপক্ষদিগকে ঘটকগণ শাসনে রাগিয়াছিলেন । কিন্তু এত করিয়া গু কুলাচার্য্যের সকল মেলী কুলীনের কুলরক্ষা করিতে সমর্থ ইষ্টলেন না ।

পূৰ্ব্বেষ্ট বলিয়াছি, মেল- প্রচলনের পর সর্বদ্বাৰী বিবাহ বন্ধ হওয়ায় ক্রমেই পাত্রাভাৰ ঘটতে লাগিল। প্রকৃতি ও পালটীর সংখ্যা নিতান্ত সীমাবদ্ধ থাকায় ক্রমে ক্রমে चन् *it७ग्नां দায়-হুইল। বিশেষতঃ কোন কোন প্রকৃতি বা পালটার বংশাভাবের সহিত সেই সেই মেলভূক্ত কোন কোন কুলীন-কন্যার চিরদিনের জন্য বিবাহের পথে কাটা পড়িল । বঙ্গদেশের দেশ, কাল, পাত্র ও অবস্থাভেদেই ছউক, অথবা বিধাতার লিপিক্রমেই হউক, পুত্রসস্থান অপেক্ষ কন্যাসন্তানই সাধারণতঃ অধিক জন্মিয় থাকে। झुछे ७को अदिएशब्र কথা বলিতেছি না, উচ্চ হিন্দুসমাজের জনসাধারণের উপর এই কথা বলিতেছি। এখন কাৰিয়া দেখুন, সাধারণতঃষ্ট যখন কষ্ঠার সংখ্যা অধিক, তখন সৰ্ব্বদ্বার বিবাহ প্রচলিত থাকিলেও সময়ে সময়ে পাত্রাভাব হইবার কথা । তাহার উপর দেবীবর ভবিষ্যৎ না ভাৰিয়। কুলীনসমাজকে যে বাধনে বধিলেন, তাহার পরিণাম কিরূপ শোচনীয় হইল, তাহা আর বেশী