পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (ব্রাহ্মণ কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/৩০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


રોઝe বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস মন্দির নির্মাণ করিয়া তাৎ একটার মধ্যে পাষাণময়ী কালীমূৰ্ত্তি ও অপরটাতে এক প্রকাও শিবমূৰ্ত্তি প্রতিষ্ঠা করেন। ১২৪৮ সালে অগ্রহায়ণ মাসে ( ৪০ বর্ষ বয়সে ) ইনি লোকান্তর প্রাপ্ত হন। স্ব প্রসিদ্ধ রসসাগর ইহার সভায় থাকিতেন । , গিরিশচন্দ্রেব মৃত্যুর পর তাঙ্গার দত্তক পুত্ৰ শ্ৰীশচন্দ্র রাজা হইলেন। ইনি বিষয় বৃদ্ধি করিবার জন্ত বিশেষ চেষ্টত ছিলেন । বহুদিন হইল, नशैब्रॉब्रांप्खाब অন্তর্গত উখড়া পরগণ৷ নিলাম হইয়া গিয়াছিল। এখন শ্রীশচন্দ্র বহু যত্নে তাহার বহু অংশ উদ্ধার করিলেন। রাজা ঈশ্বরচন্দ্র ও গিরীশচন্দ্র ইংরাজ গবমেন্টের নিকট অহঙ্কার করিয়া পৈতৃক উপাধির প্রার্থী হন নাই। কিন্তু রাজা শ্ৰীশচন্দ্র অতিশয় চতুর ছিলেন । তাছার প্রার্থীকুসারে ১৮৪৮ খৃষ্টাব্দে তিনি মহারাজ-উপাধির ফরমাণ লাভ করিলেন । ১৮৫• খুষ্ঠাব্দে তাহার যত্নে লাখেরাজদারগণ এক প্রকার বিযম রাজস্বদায় হইতে উদ্ধার পাইলেন । রাজা শ্ৰীশচন্দ্রের এই কার্য্যে বিস্তর - অর্থ ব্যয় হয়। ইহার কিছু পূর্বে তিনি ব্রাহ্মধৰ্ম্ম প্রচারে প্রবৃত্ত হইয়াছিলেন এবং সাধারণের হিতকর অনেক কাৰ্য্য করিয়াছিলেন । শ্রীশচন্দ্রের মৃত্যুর পর তাহার জ্যেষ্ঠ পুত্র সতীশচন্দ্র রাজা হইলেন। ইনি রীতিমত ইংরাজী লেখাপড়া শিথিয়ছিলেন। ইনিও ইহার পিতামহ গিরিশচন্দ্রের দ্যায় কেবল ব্যয় করিতে ভাল বাসিতেন । অনেক সময়ই তিনি পশ্চিমাঞ্চলে অতিবাহিত করিতেন । অতিশয় স্বরাপানজনিত রোগে আক্রান্ত হইয়৷ ১৮৭০ খৃষ্টাবে ( ২৫ অক্টোবর ) ইহলোক পরিত্যাগ করেন। তাহার পুত্র সন্তানাদি হয় নাই। মৃত্যুর পর ওঁtহার কনিষ্ঠ পত্নী মহারাণী ভুবনেশ্বরী সমস্ত সম্পত্তির উত্তরাধিকারিণী হইলেন। ইনিই ক্ষিতীশচন্দ্রকে দত্তক গ্রহণ করেন । রাজা ক্ষিতীশচন্দ্ৰ বুদ্ধিমান ও সদ্বিবেচক । ইহার षङ्गि কৃষ্ণনগর রাজ্যের অনেক শ্ৰীবৃদ্ধি হইয়াছে। গত ১৩১৭ সালে ইনি ইছলোক পরিত্যাগ করিলে সৰ্ব্বজনের প্রিয় ক্ষেীণীশচন্দ্র পিতৃপদ লাভ করেন। বর্তমান ১৩১৮ সালে অগ্রছায়ণ মাসের দিল্লী-দরবারে ভারতসমটি, কর্তৃক তিনি “মহারাজ” উপাধিতে ভূষিত হইয়াছেন । পরপৃষ্ঠায় কৃষ্ণনগর-রাজবংশের বংশাবলী প্রদত্ত হইল— . ...ণত্ব . . . .5রণ সরকার জন্মগ্রহণ । Á মহংপুরের মল্পিকগণ । • * 87 : (কার গোঋমিগণ সিময়; * মে \निुख प्नबूकथ***: