পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (ব্রাহ্মণ কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জাতি-বিভাগ 德 ○〉 পূর্ণ হয়, এই জন্য পরিপক্ক শস্যের রূপ পীতবর্ণই হিন্দুশাস্ত্রে বৈশ্বের লক্ষণ, বলিয়া নির্দিষ্ট হইয়াছে । e ব্ৰহ্মা গুপুরাণে পাওয়া যাইতেছে, গুণকৰ্ম্মানুসারে ব্রাহ্মণের মধ্য হইতেই বৈখ্যজাতি উৎপন্ন হয় । পুরাণাদি পাঠে বোধ হয়, ত্রেতাযুগের শেষ ভাগে ও দ্বাপরযুগের প্রথমে বৈশ্যসমাজ গঠিত হইয়াছিল । ব্রগাণ্ড, বিষ্ণু প্রভৃতি মহাপুরাণে স্বাপরযুগের যে সকল লক্ষণ নির্দিষ্ট হইয়াছে, তাহতে বৈশ্যসমাজের ছবিই প্রকটিত হইয়াছে। কৃষ্যাদি লোকজীবিকার হেতু বৈশ্য, উরুই তাহদের প্রধান অবলম্ব । সেই জন্যই বৈশ্ব বিরাটু-পুরুষের উরুদেশ-জাত এইরূপ কল্পিতু হইয়াছিল । পুরাণেতিহাসে বৈশ্বাসমাজ-স্থাপনের সঙ্গে সঙ্গেই শূদ্রোৎপত্তির পরিচয় "શાહના નાશ ব্রহ্মা গুপুরাণ নির্দেশ করিতেছে— “পুর্বের্ণ যে সকল ব্রহ্মোৎপন্ন সিদ্ধাত্ম মানবগণের বিষয় কথিত হইয়াছে, তাহারাই ত্রেতাযুগে পূর্ব জন্মের শুভাশুভ কৰ্ম্মফলভোগের জন্য (যথাক্রমে ) শাস্তচিত্ত, তেজস্বী, কৰ্ম্মী ও দুঃখী,—ব্রাহ্মণ, ক্ষত্ৰিয়,বৈশ্ব ও শূদ্ররূপে জন্ম গ্রহণ করিলেন " (অর্থাৎ) ব্ৰহ্মপুত্রগণই চতুৰ্বর্ণ্যে বিভক্ত হইলেন। “তৎপরে শূদ্রেরও বিশেষ লক্ষণ-নির্ণয়-প্রসঙ্গে ব্রহ্মাণ্ডপুরাণে (৮১৪৯ ) লিখিত আছে,— “শোচস্তশ্চ দ্রবন্তশ্চ পরিচর্য্যাসু যে রতীঃ । নিস্তেজসোচ্ছন্নবীৰ্য্যাশ্চ শূদ্রাস্তানব্ৰবীন্তু স: ॥” ( বাহ্মণদিগের মধ্যে ) যাহারা শোকদুখঃপরায়ণ, নিস্তেজ, অল্পবীৰ্য্য ও অপরের পরিচর্য্যায় রত থাকিত, তাহারাষ্ট শূদ্র বলিয়া গণ্য হইল ।

  • দ্বিজাতির পদসেবাই শূদ্রের মুখ্য ধৰ্ম্ম । তাই শূদ্র বিরাটু-পুরুষের পাদজ বলিয়। কল্পিত হইয়াছিল ।

যদিও ত্রেতাযুগের শেষ ভাগে বৈশ্ব ও শূদ্রবর্ণের অভু্যদয় দেখি, কিন্তু (১) “সিদ্ধাত্মনস্ত যে পূৰ্ব্বং ব্যাখ্যাত প্রাকৃতে ময় । ব্রাহ্মণ মানবাস্তে বৈ উৎপন্ন ধজনাদিহ ॥ শাস্তাশ্চ শুষ্মিণশ্চৈব কষ্মিণে দুঃখিনগুদ । তত: প্রবর্তমানস্তে ত্রেতায়াং জঞ্জিরে পুনঃ ॥ ব্রাহ্মণা: ক্ষত্ৰিয় বৈষ্ঠাঃ শুদ্ৰাদ্রোজিনস্তথা । ভাবিতাঃ পূৰ্ব্বজাতিষু কৰ্ম্মভিশ্চাশুভাণ্ডভৈঃ " (অনুষঙ্গপদ ৮ম অঃ। )