পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/১৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পদাবলী—বিবিধ পদকর্তা-১৫-১৮শ শতাব্দী। >>> ললিতা বাজায় বীণা বিশাখ মৃদঙ্গ। সুচিত্রা বাজায় সপ্তস্বরা রাই দেখে রঙ্গ ॥ তুঙ্গবিদ্যা কপিলাস তুম্বুরা রঙ্গদেবী। ইন্দুরেখা পিনাক বায় মন্দিরা স্বদেবী ৷ উদ্ভট-তালে যদি হার বনমালী । চুড়া বাণী কেঢ়ে লব দিব করতালী । যদি জিন রাইকে দিব আমরা হব দাসী । নইলে কারাগারে রাখিব দুখিনী শুনে হাসি ॥ জ্ঞান হরিদাস । আর কত বল সই আর কত বল । নিভান অনল আর পুন কেন জাল ॥ যে অনলে পোড়ে হিয়া সে অনলে কি । কস্ত রী লেপিয়া অঙ্গে স্যাম-নাম লিখি। শু্যাম-পরসঙ্গ বিনে যদি প্রাণ রয়। তবুত দারুণ লোকে কত কথা কয় ॥ কামুক ঐছন বাত। মলিন বদন ভেল। শুনি সর্থী অবনত-মাথ ॥ ধীরে ধীরে চলি গেল ॥ কিছু না কহল ফেরি। আওল রাইক পাশ । লোরে পন্থ না হেরি ॥ কি কহব জ্ঞান হরিদাস ॥ দ্বিজ ভীম । কিরূপ দেখিলু মধুর মুরতি পীরিতি রসের সার। হেন লয় মনে এ তিন ভুবনে তুলনা নাহিক আর ॥ বড়ি বিনোদিয়া চূড়ার টালনি কপালে চন্দন-চাদ । জিনি বিধুবর বদন সুন্দর ভুবনমোহন ফাদ। নব জলধর রসে ঢর চর বরণ চিকণ কালা । অঙ্গের ভূষণ রজত কাঞ্চন মণিমুকুতার মালা ॥ যোড়া ভুরূ যেন কামের কণমান কেবা কৈল নিরমাণ । তরল নয়নে তেরছ চাহনি বিষম কুসুম-বাণ ॥ সুন্দর অধরে মধুর মুরলী হাসিয়া কথাটা কয়। দ্বিজ ভীম কহে ওরূপ নাগর দেখিলে পরাণ রয় ॥