পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/২০৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


》> と ● বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয়। o' এই স্থানে আড্ডা করি বহু তুষ্ট জন। ডাকাতি করিয়া করে জীবন-যাপন ॥ একজন লোক আসি কাইমাই করি । কি কহিল আমি সব বুঝিতে না পারি। তার বাক্যগুলি সব প্রভু সমবিয়া । কাইমাই করি তারে দিলেন বুঝিয়া । (১) সেই লোক ক্ষণকাল চাহিয়া রহিল। ইতিউতি তাকাইয়া বনে প্রবেশিল ॥ নারোজী নামেতে এক মহাবলবান। অস্ত্র-শস্ত্র সঙ্গে করি হৈল আগুয়ান ॥ দুই চারি জন ক্রমে আসি দেখা দিলা । সন্ন্যাসী দেখিয়া সবে প্রণাম করিলা ॥ নারোজী বলিলা তুমি চল মোর স্থানে। আজিকার রজনীতে থাকিবে সেখানে ॥ নারোজীর কথা শুনি প্রভু তবে বোলে। রাত্রি কাটাইব আজি থাকি বৃক্ষতলে ৷ গুনিয়া প্রভুর বাক্য নারোজী শ্রবণে । , ভিক্ষা আনি দিতে বলে দুই চারি জনে ॥ নারোজীর কথা শুনি ছুটিল সবাই । যোগাসনে হরিনামে বসিল নিমাই ॥ কেহ কাষ্ঠ চিনি আনে কেহ বা তণ্ডুল। কেহ দুগ্ধ কেহ স্থত কেহ ফলমূল ॥ রাশি রাশি খাদ্য আনি তারা যোগাইল । বহু খাদ্য দেখে মোর লালসা বাড়িল ৷ বহু দেশ ভ্ৰমিলাম প্রভুর সহিতে। . এত খাদ্য কোন স্থানে না পাই দেখিতে ॥ নানা দ্রব্য যোগাইয়া চারিদিক ঘেরি । দাড়াইলা নারোজীর লোক সারি সারি। হরিনাম করিতে করিতে প্ৰভু মোর। সেই কালে কৃষ্ণ-প্রেমে হইল বিভোর। (১) ইহার পূৰ্ব্বেই একস্থানে লিখিত আছে-এই দেশে जुबि বহুকাল। সকলের ভাষা বুঝে শচীর দুলাল।” -