পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/২৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


పిరి 8 গ্রন্থদুরির কাহিনী। অপহৃত গ্রন্থের উদ্ধার। বঙ্গ-সাহিত্য পরিচয় । গোসাঞি দশ অস্ত্র ধরি দুই গাড়ী আনি দিল। ভাল মন্দ লাগি আর পথের জঞ্জাল ৷ আমি শুামানন্দ আর ঠাকুর মহাশয়। এত পথ আইলাঙ হইয়া নির্ভয় ॥ রাত্রে গোপালপুরে আসিয়া বাস করি । বহু অস্ত্রধারী যাঞ রাত্রে কৈল চুরি । গাড়ী-ভরা গ্রন্থ ছিল যত দ্রব্য আর । তারা নিজ-দেশে গেল এ দশা আমার ॥ চুরি না করিলে নহিবে কেনে তোমার আগমন। অধমেরে কৃপা করে কে আছে এমন ॥ যেমত গাড়ী-ভরা গ্রন্থ তেমত আছয় । যে উচিত শাস্তি তাহ কর মহাশয় ॥ আমার উদ্ধার লাগি তোমার আগমনে । আমা হেন মহাপাপী নাহি ত্রিভুবনে ॥ ইহা বলি কান্দে রাজা ভূমি গড়ি যায়। উঠিয়া ঠাকুরের পদ নিলেন মাথায়। দুই নয়নে ঝরে নীর নাচে মত্ত হৈঞা। কোথা রাখিয়াছ গ্রন্থ চল দেখি যাঞl ॥ যে আজ্ঞা বুলিয় রাজা যায় সঙ্গে চলি । ঠাকুর দেখিল যাঞ আছয়ে সকলি ॥ দণ্ডবৎ করে রাজা ঠাকুর আনন্দ-অন্তর। চরণে পড়িয়া রাজা কান্দয়ে বিস্তর ॥ ঠাকুর বাসাকে যান করিবারে স্নান । চন্দন তুলসী-মালা আনহ সন্নিধান। করিব গ্রন্থের পূজা সকল মঙ্গল। আপনে আনিল রাজা সাক্ষাতে সকল ॥ নবীন আসন করি করয়ে পূজন। ঠাকুর কহেন মানে করহ গমন৷ অন্তঃপুরে যাঞ রাজা করিলেন স্নান। ঠাকুর-নিকটে আসি করিলা প্রণাম ॥ ঠাকুর কহেন এবে শুনকৃষ্ণ-নাম। যে আজ্ঞ বলিঞা রাজা পাতিলেন কাণ ॥